মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তাকর্মীদের গাড়িবহর লক্ষ্য করে গুলি, আহত ১

ভারতের মণিপুর রাজ্যের মূখ্যমন্ত্রী এন বীরেন সিংহের ‘অ্যাডভান্স সিকিউরিটি’ দলের গাড়িবহরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। সোমবার (১০ জুন) স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কাঙ্গপোকি জেলার কেটলেন এলাকায় জাতীয় সড়ক ৩৭ নম্বরে অতর্কিত এই হামলা চালোনো হয় বলে দেশটির গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়। হামলায় একজন পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হয়েছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, মঙ্গলবার মণিপুর রাজ্যের জিরিবাম জেলায় সফর করার কথা মূখ্যমন্ত্রী বীরেন এন সিংহের। তার নিরাপত্তারক্ষী দলের গাড়িবহরটি অশান্ত জিরিবাম জেলায় যাচ্ছিল। পথে গাড়িবহরকে লক্ষ্য করে একাধিকবার গুলি চালানো হয়। এসময় পাল্টা গুলি চালায় নিরাপত্তারক্ষীরাও। তবে এই বহরে মূখ্যমন্ত্রী বীরেন ছিলেন না। তিনি বর্তমানে দিল্লিতে রয়েছেন বলে খবরে বলা হয়েছে। হামলায় ‘কুকি’রা জড়িত বলে খবরে দাবি করা হয়েছে।

শনিবার জিরিবামে ‘কুকিরা’ ২টি পুলিশ আউটপোস্ট জ্বালিয়ে দেয়। পাশাপাশি ৭০ বাড়িতেও আগুন দেয় তারা। গত ৬ জুন জিরিবামে এক ব্যক্তি খুন হন। তার জেরেই ফের অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে মণিপুর। কয়েকদিন ধরে নিখোঁজ থাকা ৫৯ বছরের সৈবাম শরত্ কুমার সিং নামে মেইতেই উপজাতির এক কৃষক খুন হন সম্প্রতি। জমিতে কাজ করতে গিয়ে তিনি নিখোঁজ হন। এরপর ৬ জুন তার মরদেহ মেলে। এতেই গত ১ বছর ধরে মেইতেই ও কুকিদের মধ্যে চলা উত্তেজনা আরও বেড়ে যায়।

কৃষকের মৃত্যুর পর এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। স্থানীয়রা জিরিবাম থানায় গিয়ে বিক্ষোভও করেছেন। মূলত এমন উত্তজেনা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে মঙ্গলবার জিরিবাম যাওয়ার কথা মূখ্যমন্ত্রী বীরেন এন সিংহের। এর আগে, তার নিরাপত্তারক্ষীরা ওই এলাকা পর্যবেক্ষণে যাচ্ছিলেন।

প্রসঙ্গত, মেইতেই, কুকি, মুসলিম, নাগা ও অ-মণিপুরী মানুষের বাসস্থান হল জিরিবাম জেলা। গতবছর মেইতেই ও কুকিদের মধ্যে যে সংঘর্ষ হয় তার খুব বেশি প্রভাব পড়েনি জিরিবামে। তবে এবার বড় সহিংসতার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।

 

কালের চিঠি / আলিফ

Tag :
Popular Post

বেরোবিতে কোঠা ইস্যুতে আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা

মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তাকর্মীদের গাড়িবহর লক্ষ্য করে গুলি, আহত ১

Update Time : ১০:০১:৪৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১০ জুন ২০২৪

ভারতের মণিপুর রাজ্যের মূখ্যমন্ত্রী এন বীরেন সিংহের ‘অ্যাডভান্স সিকিউরিটি’ দলের গাড়িবহরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। সোমবার (১০ জুন) স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কাঙ্গপোকি জেলার কেটলেন এলাকায় জাতীয় সড়ক ৩৭ নম্বরে অতর্কিত এই হামলা চালোনো হয় বলে দেশটির গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়। হামলায় একজন পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হয়েছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, মঙ্গলবার মণিপুর রাজ্যের জিরিবাম জেলায় সফর করার কথা মূখ্যমন্ত্রী বীরেন এন সিংহের। তার নিরাপত্তারক্ষী দলের গাড়িবহরটি অশান্ত জিরিবাম জেলায় যাচ্ছিল। পথে গাড়িবহরকে লক্ষ্য করে একাধিকবার গুলি চালানো হয়। এসময় পাল্টা গুলি চালায় নিরাপত্তারক্ষীরাও। তবে এই বহরে মূখ্যমন্ত্রী বীরেন ছিলেন না। তিনি বর্তমানে দিল্লিতে রয়েছেন বলে খবরে বলা হয়েছে। হামলায় ‘কুকি’রা জড়িত বলে খবরে দাবি করা হয়েছে।

শনিবার জিরিবামে ‘কুকিরা’ ২টি পুলিশ আউটপোস্ট জ্বালিয়ে দেয়। পাশাপাশি ৭০ বাড়িতেও আগুন দেয় তারা। গত ৬ জুন জিরিবামে এক ব্যক্তি খুন হন। তার জেরেই ফের অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে মণিপুর। কয়েকদিন ধরে নিখোঁজ থাকা ৫৯ বছরের সৈবাম শরত্ কুমার সিং নামে মেইতেই উপজাতির এক কৃষক খুন হন সম্প্রতি। জমিতে কাজ করতে গিয়ে তিনি নিখোঁজ হন। এরপর ৬ জুন তার মরদেহ মেলে। এতেই গত ১ বছর ধরে মেইতেই ও কুকিদের মধ্যে চলা উত্তেজনা আরও বেড়ে যায়।

কৃষকের মৃত্যুর পর এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। স্থানীয়রা জিরিবাম থানায় গিয়ে বিক্ষোভও করেছেন। মূলত এমন উত্তজেনা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে মঙ্গলবার জিরিবাম যাওয়ার কথা মূখ্যমন্ত্রী বীরেন এন সিংহের। এর আগে, তার নিরাপত্তারক্ষীরা ওই এলাকা পর্যবেক্ষণে যাচ্ছিলেন।

প্রসঙ্গত, মেইতেই, কুকি, মুসলিম, নাগা ও অ-মণিপুরী মানুষের বাসস্থান হল জিরিবাম জেলা। গতবছর মেইতেই ও কুকিদের মধ্যে যে সংঘর্ষ হয় তার খুব বেশি প্রভাব পড়েনি জিরিবামে। তবে এবার বড় সহিংসতার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।

 

কালের চিঠি / আলিফ