রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গোপালগঞ্জে বজ্রপাতে এক কৃষকসহ নিহত ২

 

গোপালগঞ্জের আলাদা দু’টি স্থানে বজ্রপাতে এক কৃষকসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। এ সময় অপর এক কৃষক আহত হন। এছাড়া বজ্রপাতে দু’টি গরুর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (৬ মে) সন্ধ্যায় কাশিয়ানী উপজেলার পাথরগ্রাম এবং কোটালীপাড়া উপজেলার চর গোপালপুর ও নলুয়া গ্রামে ঘটনা ঘটে।

কাশিয়ানী উপজেলার হাতিয়ারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দেবদুলাল বিশ্বাস ও আমতলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রাফিজা বেগম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

নিহত কৃষক আলমগীর শেখের বাড়ি কোটালীপাড়া উপজেলার আমতলী ইউনিয়নের ঊনশিয়া গ্রামে। তবে অপর নিহত কৃষকের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।

আমতলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রাফিজা বেগম বলেন, কৃষক আলমগীর শেখ পিঞ্জুরী ইউনিয়নের চর গোপালপুর গ্রামের শ্বশুরবাড়িতে ধান কাটতে যান। সন্ধ্যায় গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির মধ্যে ধান নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে হঠাৎ বজ্রপাত হলে ঘটনাস্থলে তিনি মারা যান।

অপরদিকে, কাশিয়ানী উপজেলার হাতিয়ারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দেবদুলাল বিশ্বাস জানান, দুই কৃষক বিলের মধ্যে ধান কাটছিলেন। এ সময় হঠাৎ করে বৃষ্টি হলে বজ্রপাত শুরু হয়। বজ্রপাতে দুই কৃষক মারাত্মক আহত হলে স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে সাতপাড় বাজারের এক ডাক্তারের কাছে নিয়ে আসলে একজনকে মৃত ঘোষনা করেন। অপর কৃষকের জ্ঞান না ফেরায় দু’জনকে নিয়ে খুলনা চলে যায় অপর কৃষকরা। তবে নিহত ও আহত দু’জনের নাম পরিচয় জানতে পারেননি তিনি।

অন্যদিকে, কোটালীপাড়া উপজেলার কলাবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিজন কুমার বিশ্বাস জানান, নলুয়া গ্রামের অখিল হালদারের গোয়ালে দু’টি গরু বাঁধা ছিল। বৃষ্টির মধ্যে গোয়ালের পাশে বজ্রপাত হলে গরু দু’টি মৃত্যু হয়। এতে প্রায় দুইলক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

এদিক, তীব্র তাপপ্রবাহে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছিল গোপালগঞ্জের জনজীবন। অবশেষে আজ সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টায় গোপালগঞ্জের পাঁচ উপজেলায় নামলো স্বস্তির বৃষ্টি। প্রায় দেড় ঘন্টার বৃষ্টিতে তাপমাত্রা কমে জনজীবনে কিছুটা প্রশান্তি ফিরেছে। অনুভুত হচ্ছে শীতল ভাব। তবে কালবৈশাখী ঝড় বা শিলাবৃষ্টির কোন খবর পাওয়া যায়নি।

গোপালগঞ্জ আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আবু সুফিয়ান জানিয়েছেন, সোমবার সকাল থেকে গোপালগঞ্জের আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ছিলো। তাপমাত্রা ছিলো ৩৬ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর বৃষ্টি শুরু হয় বিকেল সাড়ে ৫টায়। সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ৮.২ মিলিমিটার। আগামী ১২মে পর্যন্ত মাঝে মাঝে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

 

কালের চিঠি / আশিকুর।

Tag :

শ্রেণিকক্ষে যৌন হয়রানির অভিযোগ, ২ শিক্ষককে বরখাস্তের দাবিতে বিদ্যালয়ে তালা

গোপালগঞ্জে বজ্রপাতে এক কৃষকসহ নিহত ২

Update Time : ০৩:০২:৩৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ মে ২০২৪

 

গোপালগঞ্জের আলাদা দু’টি স্থানে বজ্রপাতে এক কৃষকসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। এ সময় অপর এক কৃষক আহত হন। এছাড়া বজ্রপাতে দু’টি গরুর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (৬ মে) সন্ধ্যায় কাশিয়ানী উপজেলার পাথরগ্রাম এবং কোটালীপাড়া উপজেলার চর গোপালপুর ও নলুয়া গ্রামে ঘটনা ঘটে।

কাশিয়ানী উপজেলার হাতিয়ারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দেবদুলাল বিশ্বাস ও আমতলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রাফিজা বেগম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

নিহত কৃষক আলমগীর শেখের বাড়ি কোটালীপাড়া উপজেলার আমতলী ইউনিয়নের ঊনশিয়া গ্রামে। তবে অপর নিহত কৃষকের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।

আমতলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রাফিজা বেগম বলেন, কৃষক আলমগীর শেখ পিঞ্জুরী ইউনিয়নের চর গোপালপুর গ্রামের শ্বশুরবাড়িতে ধান কাটতে যান। সন্ধ্যায় গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির মধ্যে ধান নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে হঠাৎ বজ্রপাত হলে ঘটনাস্থলে তিনি মারা যান।

অপরদিকে, কাশিয়ানী উপজেলার হাতিয়ারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দেবদুলাল বিশ্বাস জানান, দুই কৃষক বিলের মধ্যে ধান কাটছিলেন। এ সময় হঠাৎ করে বৃষ্টি হলে বজ্রপাত শুরু হয়। বজ্রপাতে দুই কৃষক মারাত্মক আহত হলে স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে সাতপাড় বাজারের এক ডাক্তারের কাছে নিয়ে আসলে একজনকে মৃত ঘোষনা করেন। অপর কৃষকের জ্ঞান না ফেরায় দু’জনকে নিয়ে খুলনা চলে যায় অপর কৃষকরা। তবে নিহত ও আহত দু’জনের নাম পরিচয় জানতে পারেননি তিনি।

অন্যদিকে, কোটালীপাড়া উপজেলার কলাবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিজন কুমার বিশ্বাস জানান, নলুয়া গ্রামের অখিল হালদারের গোয়ালে দু’টি গরু বাঁধা ছিল। বৃষ্টির মধ্যে গোয়ালের পাশে বজ্রপাত হলে গরু দু’টি মৃত্যু হয়। এতে প্রায় দুইলক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

এদিক, তীব্র তাপপ্রবাহে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছিল গোপালগঞ্জের জনজীবন। অবশেষে আজ সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টায় গোপালগঞ্জের পাঁচ উপজেলায় নামলো স্বস্তির বৃষ্টি। প্রায় দেড় ঘন্টার বৃষ্টিতে তাপমাত্রা কমে জনজীবনে কিছুটা প্রশান্তি ফিরেছে। অনুভুত হচ্ছে শীতল ভাব। তবে কালবৈশাখী ঝড় বা শিলাবৃষ্টির কোন খবর পাওয়া যায়নি।

গোপালগঞ্জ আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আবু সুফিয়ান জানিয়েছেন, সোমবার সকাল থেকে গোপালগঞ্জের আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ছিলো। তাপমাত্রা ছিলো ৩৬ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর বৃষ্টি শুরু হয় বিকেল সাড়ে ৫টায়। সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ৮.২ মিলিমিটার। আগামী ১২মে পর্যন্ত মাঝে মাঝে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

 

কালের চিঠি / আশিকুর।