শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভিক্ষাবৃত্তির জন্য শিশু অপহরণ: স্বামীর পর এবার স্ত্রী গ্রেফতার

গাজীপুর মহানগরের নাওজোর এলাকা থেকে ৮ মাস বয়সী অপহৃত এক শিশুকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। ভিক্ষাবৃত্তির জন্য শিশুটিকে অপহরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে এক দম্পতিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২ মে) দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানায় গাজীপুর মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার আবু তোরাব মো. শামছুর রহমান।

উদ্ধার হওয়া শিশুটির নাম আব্দুল্লাহ আল নোমান। সে গাজীপুর মহানগরের মীক্তার হোসেনের ছেলে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন বগুড়ার সারিয়াকান্দি এলাকার লুৎফর রহমানের ছেলে মো. আবু সাইদ ওরফে সুমন (৪০) ও তার স্ত্রী মোসা. আইরিন (৩৪)।

উপ-পুলিশ কমিশনার আবু তোরাব জানান, গ্রেফতার হওয়া দম্পতি ও ভুক্তভোগীর বাবা-মা গাজীপুরে একই বাসায় ভাড়া থাকতেন। গত ৩ এপ্রিল দুপুরে শিশুটির মা তাকে ঘরে শুইয়ে রেখে ওয়াশরুমে যান। পরে ফিরে এসে দেখেন, শিশুটি ঘরে নেই। এরপর আশেপাশের বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করলেও শিশুটির সন্ধান মেলেনি। একইসময় পাশের ঘরের আইরিন দম্পতিকেও পাওয়া যাচ্ছিল না এবং তাদের মোবাইল ফোনও বন্ধ ছিল।

আবু তোরাব আরও জানান, পরে ভুক্তভোগীর মা দুজনকে আসামি করে বাসন থানায় মামলা দায়ের করেন। এরপর গত ৫ এপ্রিল কুড়িগ্রাম থেকে মো.আবু সাইদ ওরফে সুমন এবং ২ মে ভোরে তার স্ত্রী আইরিনকে ময়মনসিংহের কোতোয়ালী থেকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় আইরিনের কাছ থেকে ভুক্তভোগী শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে আইরিন জানায়, শিশুটিকে সে ভিক্ষাবৃত্তির কাজে ব্যবহার করছিল। ছোট শিশুকে ব্যবহার করে ভিক্ষা করলে সহানুভুতি ও বেশি অর্থ পাওয়া যায় বলেই এ কাজ করেছিলেন তিনি। পরে আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

কালের চিঠি / আলিফ

Tag :
Popular Post

বালু ব্যবসায়ীর মিথ্যা মামলায় সাংবাদিক কারাগারে

ভিক্ষাবৃত্তির জন্য শিশু অপহরণ: স্বামীর পর এবার স্ত্রী গ্রেফতার

Update Time : ০৫:০১:৪৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২ মে ২০২৪

গাজীপুর মহানগরের নাওজোর এলাকা থেকে ৮ মাস বয়সী অপহৃত এক শিশুকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। ভিক্ষাবৃত্তির জন্য শিশুটিকে অপহরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে এক দম্পতিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২ মে) দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানায় গাজীপুর মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার আবু তোরাব মো. শামছুর রহমান।

উদ্ধার হওয়া শিশুটির নাম আব্দুল্লাহ আল নোমান। সে গাজীপুর মহানগরের মীক্তার হোসেনের ছেলে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন বগুড়ার সারিয়াকান্দি এলাকার লুৎফর রহমানের ছেলে মো. আবু সাইদ ওরফে সুমন (৪০) ও তার স্ত্রী মোসা. আইরিন (৩৪)।

উপ-পুলিশ কমিশনার আবু তোরাব জানান, গ্রেফতার হওয়া দম্পতি ও ভুক্তভোগীর বাবা-মা গাজীপুরে একই বাসায় ভাড়া থাকতেন। গত ৩ এপ্রিল দুপুরে শিশুটির মা তাকে ঘরে শুইয়ে রেখে ওয়াশরুমে যান। পরে ফিরে এসে দেখেন, শিশুটি ঘরে নেই। এরপর আশেপাশের বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করলেও শিশুটির সন্ধান মেলেনি। একইসময় পাশের ঘরের আইরিন দম্পতিকেও পাওয়া যাচ্ছিল না এবং তাদের মোবাইল ফোনও বন্ধ ছিল।

আবু তোরাব আরও জানান, পরে ভুক্তভোগীর মা দুজনকে আসামি করে বাসন থানায় মামলা দায়ের করেন। এরপর গত ৫ এপ্রিল কুড়িগ্রাম থেকে মো.আবু সাইদ ওরফে সুমন এবং ২ মে ভোরে তার স্ত্রী আইরিনকে ময়মনসিংহের কোতোয়ালী থেকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় আইরিনের কাছ থেকে ভুক্তভোগী শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে আইরিন জানায়, শিশুটিকে সে ভিক্ষাবৃত্তির কাজে ব্যবহার করছিল। ছোট শিশুকে ব্যবহার করে ভিক্ষা করলে সহানুভুতি ও বেশি অর্থ পাওয়া যায় বলেই এ কাজ করেছিলেন তিনি। পরে আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

কালের চিঠি / আলিফ