রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গা ও যশোরে দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা

 

মে দিবসে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা তাপমাত্রার পারদ উঠেছে চুয়াডাঙ্গা ও যশোরে। দুই জেলাতেই আজ বুধবার (১ মে) দুপুর তিনটায় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৪২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

 

একদিনের ব্যবধানে চুয়াডাঙ্গা ও যশোরে সামান্য তাপমাত্রা কমলেও গরমের তীব্রতা কমেনি। গতকাল মঙ্গলবার চুয়াডাঙ্গায় ৪৩ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল। যা গত ৪০ বছরে জেলার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। আর এদিন যশোরে ৪৩ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল।

 

তীব্র গরমে নাকাল হয়ে পড়েছে এসব অঞ্চলের বাসিন্দারা৷ বিশেষ করে শ্রমজীবীদের অবস্থা বেশ নাজুক।

 

এদিকে, তাপমাত্রা নিয়ে কিছুটা সুখবর দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। কাল থেকে তাপমাত্রা সহনীয় পর্যায়ে থাকবে। তবে গ্রীষ্মকাল হওয়ায় গরম অনুভূত হবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান খান। সারাদেশের তাপমাত্রা স্বস্তিদায়ক হতে আরও ৪-৫ দিন লাগবে।

 

আজ থেকে সিলেট ও চট্টগ্রামের বিভিন্ন অঞ্চল এবং কাল থেকে অন্যান্য অঞ্চলে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার কথা বলা হয়। এছাড়া, আগামীকাল ঢাকা ও আশপাশের এলাকায় দুপুর থেকে সন্ধ্যার মধ্যে সামান্য সময়ের জন্য বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা দেখছে আবহাওয়া অফিস।

 

তবে চার তারিখ পর্যন্ত রাজশাহী, চুয়াডাঙ্গা, যশোর, পাবনা ও রংপুরে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা একেবারেই কম। তবে ৫ তারিখে সারাদেশে বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানিয়েছে।

 

 

 

কালের চিঠি / আলিফ

Tag :

চুয়াডাঙ্গা ও যশোরে দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা

Update Time : ০২:১২:৩৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ মে ২০২৪

 

মে দিবসে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা তাপমাত্রার পারদ উঠেছে চুয়াডাঙ্গা ও যশোরে। দুই জেলাতেই আজ বুধবার (১ মে) দুপুর তিনটায় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৪২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

 

একদিনের ব্যবধানে চুয়াডাঙ্গা ও যশোরে সামান্য তাপমাত্রা কমলেও গরমের তীব্রতা কমেনি। গতকাল মঙ্গলবার চুয়াডাঙ্গায় ৪৩ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল। যা গত ৪০ বছরে জেলার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। আর এদিন যশোরে ৪৩ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল।

 

তীব্র গরমে নাকাল হয়ে পড়েছে এসব অঞ্চলের বাসিন্দারা৷ বিশেষ করে শ্রমজীবীদের অবস্থা বেশ নাজুক।

 

এদিকে, তাপমাত্রা নিয়ে কিছুটা সুখবর দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। কাল থেকে তাপমাত্রা সহনীয় পর্যায়ে থাকবে। তবে গ্রীষ্মকাল হওয়ায় গরম অনুভূত হবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান খান। সারাদেশের তাপমাত্রা স্বস্তিদায়ক হতে আরও ৪-৫ দিন লাগবে।

 

আজ থেকে সিলেট ও চট্টগ্রামের বিভিন্ন অঞ্চল এবং কাল থেকে অন্যান্য অঞ্চলে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার কথা বলা হয়। এছাড়া, আগামীকাল ঢাকা ও আশপাশের এলাকায় দুপুর থেকে সন্ধ্যার মধ্যে সামান্য সময়ের জন্য বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা দেখছে আবহাওয়া অফিস।

 

তবে চার তারিখ পর্যন্ত রাজশাহী, চুয়াডাঙ্গা, যশোর, পাবনা ও রংপুরে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা একেবারেই কম। তবে ৫ তারিখে সারাদেশে বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানিয়েছে।

 

 

 

কালের চিঠি / আলিফ