সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজস্থানের কাছে ৯ উইকেটে মুম্বাইয়ের হার ।

ম্যাচে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে মুম্বাই তুলেছিল ৯ উইকেটে ১৭৯ রান। ১৮০ রানের টার্গেটে ৮ বল হাতে রেখে রাজস্থান জিতেছে ৯ উইকেটে।

সেঞ্চুরি করেন রাজস্থানের ওপেনার যশস্বী জয়সোয়াল। খেলেন ম্যাচ জেতানো ইনিংস। ৬০ বলে ১০৪ রান তুলেন এই বাঁহাতি। তার ইনিংসে ছিল ৯ চার ও ৭ ছক্কার মার। ২৫ বলে ৩৫ রান করে পীযূষ চাওলার বলে আউট হন জস বাটলার।

তৃতীয় উইকেটে ৬৫ বলে ১০৯ রানের অবিচ্ছিন্ন ম্যাচ জেতানো জুটি গড়েন জয়সোয়াল ও সঞ্জু স্যামসন। ২৮ বলে ৩৮ রানে অপরাজিত ছিলেন স্যামসন। সাজান ২ চার ও ২ ছক্কায় ইনিংস।

জয়পুরে মানসিংহ স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমেছিল মুম্বাই। চার ওভারের মধ্যে প্রথম তিন ব্যাটসম্যানকে হারায় মুম্বাই।

এরপর চতুর্থ উইকেটে মুম্বাইয়ের ইনিংস মেরামত করেন নবী ও তিলক ভার্মা। এই জুটি করেন ২৬ বলে ৩২ রান। ১৭ বলে ২৩ রানে আউট হন নবী। নেহাল ওয়াধেরা ও তিলকের জুটিতে পঞ্চম উইকেটে ৫২ বলে ৯৯ রানের শক্তিশালী সংগ্রহের ভিত পায় মুম্বাই। ৩ ছক্কা ও ৫ চারে ৪৫ বলে ৬৫ রান করেন তিলক। ৪ ছক্কা ও ৩ চারে ২৪ বলে নেহাল করেন ৪৯ রান।

ইনিংসের প্রথম ১০ ওভারে ১ উইকেটে ৯৫ রান তুলে ফেলে রাজস্থান। জয়ের মুখ দেখতে শেষ ১০ ওভারে দরকার ছিল ৮৫। সমীকরণটি শেষ ৫ ওভারে ২৯ রানের লক্ষ্যে ঠিক করেন জয়সোয়াল-স্যামসন জুটি। এরপর আর জয়ের মুখ দেখতে অসুবিধা হয়নি রাজস্থানের। এই জয়ে ৮ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান সংহত করে রাজস্থান। ৭ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় কলকাতা নাইট রাইডার্স। ৮ ম্যাচে ৩ জয় ও ৫ হারে মোট ৬ পয়েন্ট নিয়ে সপ্তম মুম্বাই।

রাজস্থানের লেগ স্পিনার চাহাল ২০১৩ সাল থেকে আইপিএলে খেলছেন। ১৫৩ ম্যাচে (১৫২ ইনিংস) ২১.৬০ গড়ে নিয়েছেন ২০০ উইকেট। ১৬১ ম্যাচে (১৫৮ ইনিংস) ২৩.৮২ গড়ে ১৮৩ উইকেট নিয়ে এই তালিকায় দ্বিতীয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক অলরাউন্ডার ডোয়াইন ব্রাভো। ১৮৬ ম্যাচে (১৮৫ ইনিংস) ২৭.১৬ গড়ে ১৮২ উইকেট নিয়ে তৃতীয় হলেন মুম্বাইয়ের লেগ স্পিনার পীযূষ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

মুম্বাই ইন্ডিয়ানস : ২০ ওভারে ১৭৯/৯ ( তিলক ৬৫, নেহাল ৪৯, নবী ২৩, সূর্যকুমার ১০, পান্ডিয়া ১০; সন্দ্বীপ ৫/১৮, বোল্ট ২/৩২, চাহাল ১/৪৮, আবেশ ১/৪৯)

রাজস্থান রয়্যালস: ১৮.৪ ওভারে ১৮৩/১ (জয়সোয়াল ১০৪*, বাটলার ৩৫, স্যামসন ৩৮*; পীযূষ ১/৩৩, বুমরা ০/৩৭, নবী ০/৩০)

ফল: রাজস্থান ৯ উইকেটে জয়ী।

কালের চিঠি/ ফাহিম

Tag :

রাজস্থানের কাছে ৯ উইকেটে মুম্বাইয়ের হার ।

Update Time : ১০:০৭:০৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪

ম্যাচে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে মুম্বাই তুলেছিল ৯ উইকেটে ১৭৯ রান। ১৮০ রানের টার্গেটে ৮ বল হাতে রেখে রাজস্থান জিতেছে ৯ উইকেটে।

সেঞ্চুরি করেন রাজস্থানের ওপেনার যশস্বী জয়সোয়াল। খেলেন ম্যাচ জেতানো ইনিংস। ৬০ বলে ১০৪ রান তুলেন এই বাঁহাতি। তার ইনিংসে ছিল ৯ চার ও ৭ ছক্কার মার। ২৫ বলে ৩৫ রান করে পীযূষ চাওলার বলে আউট হন জস বাটলার।

তৃতীয় উইকেটে ৬৫ বলে ১০৯ রানের অবিচ্ছিন্ন ম্যাচ জেতানো জুটি গড়েন জয়সোয়াল ও সঞ্জু স্যামসন। ২৮ বলে ৩৮ রানে অপরাজিত ছিলেন স্যামসন। সাজান ২ চার ও ২ ছক্কায় ইনিংস।

জয়পুরে মানসিংহ স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমেছিল মুম্বাই। চার ওভারের মধ্যে প্রথম তিন ব্যাটসম্যানকে হারায় মুম্বাই।

এরপর চতুর্থ উইকেটে মুম্বাইয়ের ইনিংস মেরামত করেন নবী ও তিলক ভার্মা। এই জুটি করেন ২৬ বলে ৩২ রান। ১৭ বলে ২৩ রানে আউট হন নবী। নেহাল ওয়াধেরা ও তিলকের জুটিতে পঞ্চম উইকেটে ৫২ বলে ৯৯ রানের শক্তিশালী সংগ্রহের ভিত পায় মুম্বাই। ৩ ছক্কা ও ৫ চারে ৪৫ বলে ৬৫ রান করেন তিলক। ৪ ছক্কা ও ৩ চারে ২৪ বলে নেহাল করেন ৪৯ রান।

ইনিংসের প্রথম ১০ ওভারে ১ উইকেটে ৯৫ রান তুলে ফেলে রাজস্থান। জয়ের মুখ দেখতে শেষ ১০ ওভারে দরকার ছিল ৮৫। সমীকরণটি শেষ ৫ ওভারে ২৯ রানের লক্ষ্যে ঠিক করেন জয়সোয়াল-স্যামসন জুটি। এরপর আর জয়ের মুখ দেখতে অসুবিধা হয়নি রাজস্থানের। এই জয়ে ৮ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান সংহত করে রাজস্থান। ৭ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় কলকাতা নাইট রাইডার্স। ৮ ম্যাচে ৩ জয় ও ৫ হারে মোট ৬ পয়েন্ট নিয়ে সপ্তম মুম্বাই।

রাজস্থানের লেগ স্পিনার চাহাল ২০১৩ সাল থেকে আইপিএলে খেলছেন। ১৫৩ ম্যাচে (১৫২ ইনিংস) ২১.৬০ গড়ে নিয়েছেন ২০০ উইকেট। ১৬১ ম্যাচে (১৫৮ ইনিংস) ২৩.৮২ গড়ে ১৮৩ উইকেট নিয়ে এই তালিকায় দ্বিতীয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক অলরাউন্ডার ডোয়াইন ব্রাভো। ১৮৬ ম্যাচে (১৮৫ ইনিংস) ২৭.১৬ গড়ে ১৮২ উইকেট নিয়ে তৃতীয় হলেন মুম্বাইয়ের লেগ স্পিনার পীযূষ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

মুম্বাই ইন্ডিয়ানস : ২০ ওভারে ১৭৯/৯ ( তিলক ৬৫, নেহাল ৪৯, নবী ২৩, সূর্যকুমার ১০, পান্ডিয়া ১০; সন্দ্বীপ ৫/১৮, বোল্ট ২/৩২, চাহাল ১/৪৮, আবেশ ১/৪৯)

রাজস্থান রয়্যালস: ১৮.৪ ওভারে ১৮৩/১ (জয়সোয়াল ১০৪*, বাটলার ৩৫, স্যামসন ৩৮*; পীযূষ ১/৩৩, বুমরা ০/৩৭, নবী ০/৩০)

ফল: রাজস্থান ৯ উইকেটে জয়ী।

কালের চিঠি/ ফাহিম