শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যুক্তরাষ্ট্রে সড়ক দুর্ঘটনা, নিহত ভারতীয় ২ শিক্ষার্থী

যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা রাজ্যে সড়ক দুর্ঘটনায় ভারতীয় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। তারা ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য তেলেঙ্গানা থেকে দেশটিতে পাড়ি জমান উচ্চশিক্ষার জন্য। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, স্থানীয় সময় শনিবার রাতে পেওরিয়াতে অন্য একটি গাড়ির সঙ্গে তাদের গাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে তাদের মৃত্যু হয়। নিহত নিভেশ মুক্কা এবং গৌথাম কুমার পার্সি উভয়ের বয়স ১৯ বছর।

নিভেশ ছিলেন করিমনগর জেলার হুজুরাবাদের বাসিন্দা। আর গৌথম কুমার জানগাঁও জেলার ঘনপুর স্টেশনের বাসিন্দা। দুজনেই অ্যারিজোনা স্টেট ইউনিভার্সিটিতে কম্পিউটার সায়েন্স ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়ছিলেন।

খবরে বলা হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তাদের বন্ধুদের নিয়ে দুজনে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা আরেকটি গাড়ির সঙ্গে তাদের গাড়ির সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই নিভেশ ও গৌতম মারা যান এবং উভয় গাড়ির চালক আহত হন।

নিভেশ ডাক্তার দম্পতি নবীন ও সাথীর ছেলে। মরদেহ দেশে ফিরিয়ে আনতে ভারত সরকারের কাছে সহায়তার আবেদন জানিয়েছে ওই দুই শিক্ষার্থীর পরিবারের সদস্যরা।

কালের চিঠি / আশিকুর।

Tag :

যুক্তরাষ্ট্রে সড়ক দুর্ঘটনা, নিহত ভারতীয় ২ শিক্ষার্থী

Update Time : ১০:২১:৪৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪

যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা রাজ্যে সড়ক দুর্ঘটনায় ভারতীয় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। তারা ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য তেলেঙ্গানা থেকে দেশটিতে পাড়ি জমান উচ্চশিক্ষার জন্য। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, স্থানীয় সময় শনিবার রাতে পেওরিয়াতে অন্য একটি গাড়ির সঙ্গে তাদের গাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে তাদের মৃত্যু হয়। নিহত নিভেশ মুক্কা এবং গৌথাম কুমার পার্সি উভয়ের বয়স ১৯ বছর।

নিভেশ ছিলেন করিমনগর জেলার হুজুরাবাদের বাসিন্দা। আর গৌথম কুমার জানগাঁও জেলার ঘনপুর স্টেশনের বাসিন্দা। দুজনেই অ্যারিজোনা স্টেট ইউনিভার্সিটিতে কম্পিউটার সায়েন্স ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়ছিলেন।

খবরে বলা হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তাদের বন্ধুদের নিয়ে দুজনে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা আরেকটি গাড়ির সঙ্গে তাদের গাড়ির সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই নিভেশ ও গৌতম মারা যান এবং উভয় গাড়ির চালক আহত হন।

নিভেশ ডাক্তার দম্পতি নবীন ও সাথীর ছেলে। মরদেহ দেশে ফিরিয়ে আনতে ভারত সরকারের কাছে সহায়তার আবেদন জানিয়েছে ওই দুই শিক্ষার্থীর পরিবারের সদস্যরা।

কালের চিঠি / আশিকুর।