রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদযাত্রায় ৪১৯ দুর্ঘটনায় নিহত ৪৩৮

ঈদের দিন সদরঘাটে এমভি তাসরিফ-৪-কে এমভি ফারহান-৬ ধাক্কা দিলে রশি ছিঁড়ে একই পরিবারের তিন জনসহ ৫ জন নিহত হন।

এবারের ঈদযাত্রায় সড়ক, রেল ও নৌপথে দেশজুড়ে ৪১৯টি দুর্ঘটনায় ৪৩৮ জন নিহত হয়েছেন। এসব দুর্ঘটনায় ১ হাজার ৪২৪ জন আহত হয়েছেন।

শনিবার (২০ এপ্রিল) সকালে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সংগঠনটির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সড়ক-মহাসড়কে ৩৯৯টি দুর্ঘটনায় ৪০৭ জন নিহত এবং ১ হাজার ৩৯৮ আহত হয়েছেন। এছাড়া রেলপথের ১৮টি দুর্ঘটনায় ২৪ জন নিহত এবং ২১ জন আহত হয়েছেন। নৌপথের ২টি দুর্ঘটনায় ৭ জন নিহত এবং ৫ জন আহত হয়েছেন।

গতবারের মতো এবারও সড়ক দুর্ঘটনার শীর্ষে মোটরসাইকেল আরোহীরা। ১৯৮টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ১৬৫ জন নিহত এবং ২৪০ জন আহত হয়েছেন। যা মোট সড়ক দুর্ঘটনার প্রায় ৫০ শতাংশ। এবারের ঈদযাত্রায় যানবাহনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে ২৬ শতাংশেরও বেশি।

মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, সরকারের বিভিন্ন নিয়ন্ত্রণ সংস্থা মাঠে থাকলেও অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্য ও পথে পথে যাত্রী হয়রানি চরমে উঠেছিল। অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্যের কারণে দরিদ্র লোকজন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাসের ছাদে, ট্রেনের ছাদে, খোলা ট্রাকে ও পণ্যবাহী পরিবহনে বাড়িতে যেতে বাধ্য হয়েছে। সড়কে শৃঙ্খলা আনতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও কর্তৃপক্ষকে চাপে রাখার দাবি জানান তিনি।

কালের চিঠি / আলিফ

Tag :

ঈদযাত্রায় ৪১৯ দুর্ঘটনায় নিহত ৪৩৮

Update Time : ০৬:০৭:৩৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪

ঈদের দিন সদরঘাটে এমভি তাসরিফ-৪-কে এমভি ফারহান-৬ ধাক্কা দিলে রশি ছিঁড়ে একই পরিবারের তিন জনসহ ৫ জন নিহত হন।

এবারের ঈদযাত্রায় সড়ক, রেল ও নৌপথে দেশজুড়ে ৪১৯টি দুর্ঘটনায় ৪৩৮ জন নিহত হয়েছেন। এসব দুর্ঘটনায় ১ হাজার ৪২৪ জন আহত হয়েছেন।

শনিবার (২০ এপ্রিল) সকালে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সংগঠনটির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সড়ক-মহাসড়কে ৩৯৯টি দুর্ঘটনায় ৪০৭ জন নিহত এবং ১ হাজার ৩৯৮ আহত হয়েছেন। এছাড়া রেলপথের ১৮টি দুর্ঘটনায় ২৪ জন নিহত এবং ২১ জন আহত হয়েছেন। নৌপথের ২টি দুর্ঘটনায় ৭ জন নিহত এবং ৫ জন আহত হয়েছেন।

গতবারের মতো এবারও সড়ক দুর্ঘটনার শীর্ষে মোটরসাইকেল আরোহীরা। ১৯৮টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ১৬৫ জন নিহত এবং ২৪০ জন আহত হয়েছেন। যা মোট সড়ক দুর্ঘটনার প্রায় ৫০ শতাংশ। এবারের ঈদযাত্রায় যানবাহনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে ২৬ শতাংশেরও বেশি।

মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, সরকারের বিভিন্ন নিয়ন্ত্রণ সংস্থা মাঠে থাকলেও অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্য ও পথে পথে যাত্রী হয়রানি চরমে উঠেছিল। অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্যের কারণে দরিদ্র লোকজন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাসের ছাদে, ট্রেনের ছাদে, খোলা ট্রাকে ও পণ্যবাহী পরিবহনে বাড়িতে যেতে বাধ্য হয়েছে। সড়কে শৃঙ্খলা আনতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও কর্তৃপক্ষকে চাপে রাখার দাবি জানান তিনি।

কালের চিঠি / আলিফ