সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইরানে ইসরায়েলের হামলার খবরে বাড়ল তেল ও স্বর্ণের দাম

ইরানে ইসরায়েলের হামলার খবরে বাড়ল তেল ও স্বর্ণের দাম

ইরানে ইসরায়েলি ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানার বিষয়টি মার্কিন প্রশাসন নিশ্চিত করার পরপরই তেল ও স্বর্ণের দাম বেড়েছে।

সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, তেল ক্রয়ের আন্তর্জাতিক বেঞ্চমার্ক ব্রেন্ট ক্রুডের দাম ১ দশমিক ৮ শতাংশ বেড়ে ব্যারেল প্রতি ৮৮ ডলার হয়েছে। অন্যদিকে স্বর্ণের দামও রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে। বর্তমানে আউন্স প্রতি দুই হাজার চারশ ডলারে পৌঁছেছে।

বিনিয়োগকারীরা গত সপ্তাহে ইরান ইসরায়েলের ওপর সরাসরি ড্রোন এবং ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর থেকেই ইসরায়েলের সম্ভাব্য প্রতিক্রিয়া ঘনিষ্ঠভাবে পর্যবেক্ষণ করে আসছেন। মধ্যপ্রাচ্যে ক্রমবর্ধমান সংঘাতে তেল সরবরাহ ব্যাহত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে যা এখন উদ্বেগের বিষয়। এ সময়ে তেলের দাম বেড়েছে ৩.৫ শতাংশ।

এদিকে ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম দাবি করেছে, দেশটির ইসফাহান প্রদেশে বিস্ফোরণের খবর পাওয়া গেলেও সেখানে ‘কোনো ক্ষয়ক্ষতি’ হয়নি।

তেলের দাম বৃদ্ধির কারণে মূল্যস্ফীতি দেখা দিতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। অনেক দেশ পেট্রোল এবং ডিজেলের মতো জ্বালানির জন্য তেলের ওপর উচ্চ মাত্রায় নির্ভরশীল। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিশ্বজুড়ে জীবনযাত্রার ব্যয় বেড়ে যাওয়ার একটি বড় কারণ জ্বালানি ও শক্তি খরচ বৃদ্ধি।

মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা বেড়ে যাওয়ায় ওমান ও ইরানের মধ্যবর্তী হরমুজ প্রণালি দিয়ে জাহাজ চলাচল স্বাভাবিক থাকবে কি না তা নিয়ে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ শিপিং রুট কারণ বিশ্বের মোট তেলের প্রায় ২০ শতাংশ হরমুজ প্রণালি দিয়ে সরবরাহ করা হয়।

তেল উৎপাদনকারী কার্টেল ওপেক-এর সদস্য দেশ সৌদি আরব, ইরান, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কুয়েত এবং ইরাক এ প্রণালি দিয়েই অধিকাংশ তেল রপ্তানি করে। ইউএস এনার্জি ইনফরমেশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের তথ্য অনুসারে, ইরান বিশ্বের সপ্তম বৃহত্তম তেল উৎপাদনকারী দেশ এবং ওপেকের তৃতীয় বৃহত্তম সদস্য।

কালের চিঠি / আশিকুর।

Tag :

ইরানে ইসরায়েলের হামলার খবরে বাড়ল তেল ও স্বর্ণের দাম

Update Time : ০৩:৫৫:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

ইরানে ইসরায়েলের হামলার খবরে বাড়ল তেল ও স্বর্ণের দাম

ইরানে ইসরায়েলি ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানার বিষয়টি মার্কিন প্রশাসন নিশ্চিত করার পরপরই তেল ও স্বর্ণের দাম বেড়েছে।

সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, তেল ক্রয়ের আন্তর্জাতিক বেঞ্চমার্ক ব্রেন্ট ক্রুডের দাম ১ দশমিক ৮ শতাংশ বেড়ে ব্যারেল প্রতি ৮৮ ডলার হয়েছে। অন্যদিকে স্বর্ণের দামও রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে। বর্তমানে আউন্স প্রতি দুই হাজার চারশ ডলারে পৌঁছেছে।

বিনিয়োগকারীরা গত সপ্তাহে ইরান ইসরায়েলের ওপর সরাসরি ড্রোন এবং ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর থেকেই ইসরায়েলের সম্ভাব্য প্রতিক্রিয়া ঘনিষ্ঠভাবে পর্যবেক্ষণ করে আসছেন। মধ্যপ্রাচ্যে ক্রমবর্ধমান সংঘাতে তেল সরবরাহ ব্যাহত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে যা এখন উদ্বেগের বিষয়। এ সময়ে তেলের দাম বেড়েছে ৩.৫ শতাংশ।

এদিকে ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম দাবি করেছে, দেশটির ইসফাহান প্রদেশে বিস্ফোরণের খবর পাওয়া গেলেও সেখানে ‘কোনো ক্ষয়ক্ষতি’ হয়নি।

তেলের দাম বৃদ্ধির কারণে মূল্যস্ফীতি দেখা দিতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। অনেক দেশ পেট্রোল এবং ডিজেলের মতো জ্বালানির জন্য তেলের ওপর উচ্চ মাত্রায় নির্ভরশীল। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিশ্বজুড়ে জীবনযাত্রার ব্যয় বেড়ে যাওয়ার একটি বড় কারণ জ্বালানি ও শক্তি খরচ বৃদ্ধি।

মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা বেড়ে যাওয়ায় ওমান ও ইরানের মধ্যবর্তী হরমুজ প্রণালি দিয়ে জাহাজ চলাচল স্বাভাবিক থাকবে কি না তা নিয়ে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ শিপিং রুট কারণ বিশ্বের মোট তেলের প্রায় ২০ শতাংশ হরমুজ প্রণালি দিয়ে সরবরাহ করা হয়।

তেল উৎপাদনকারী কার্টেল ওপেক-এর সদস্য দেশ সৌদি আরব, ইরান, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কুয়েত এবং ইরাক এ প্রণালি দিয়েই অধিকাংশ তেল রপ্তানি করে। ইউএস এনার্জি ইনফরমেশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের তথ্য অনুসারে, ইরান বিশ্বের সপ্তম বৃহত্তম তেল উৎপাদনকারী দেশ এবং ওপেকের তৃতীয় বৃহত্তম সদস্য।

কালের চিঠি / আশিকুর।