শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মিয়ানমার সেনা-বিজিপির আরও ১৮ সদস্য পালিয়ে বাংলাদেশে

মিয়ানমারে চলমান সংঘর্ষের জেরে দেশটির বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি) ও সেনাবাহিনীর আরও ১৮ জন সদস্য পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। এ নিয়ে গত তিন দিনে দেশটির মোট ৩৪ জন সেনা ও বিজিপি সদস্য বাংলাদেশে আশ্রয় ‍নিয়েছেন।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদর দফতরের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরীফুল ইসলাম মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মঙ্গলবারে এখন পর্যন্ত নতুন করে আরও ১৮ জন বিজিপি ও সেনা সদস্য বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছেন। তবে কোন বাহিনীর কতজন সদস্য রয়েছেন তা এখনই বলা যাচ্ছে না। এদের মধ্যে সকালে দুই জন বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার রেজুপাড়া সীমান্ত দিয়ে এবং ১০ জন জমছড়ি সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছেন। বাইশফাড়ি সীমান্ত দিয়ে দুপুরে ১ জন এবং জমছড়ি সীমান্ত দিয়ে বিকেলেও এসেছেন ৫ জন।

উল্লেখ্য, গতকাল সোমবার (১৫ এপ্রিল) দুপুরে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশফাড়ি সীমান্ত দিয়ে মিয়ানমারের দুই জন সেনা সদস্য বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। গত রোববারও টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে পালিয়ে আসে বিজিপির ১৪ জন সদস্য।

নতুন করে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা ৩৪ জনকেই নাইক্ষ্যংছড়ি সদরে ১১ বিজিবি হেফাজতে নেয়া হয়েছে। সেখানে আগে থেকে আরও ১৮০ জন সদস্য আশ্রয়ে রয়েছেন। ফলে এ নিয়ে বর্তমানে মিয়ানমারের মোট ২১৪ জন সেনা ও বিজিপি সদস্য আশ্রয়ে রয়েছেন।

চলতি বছরে এর আগেও মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সদস্যসহ ৩৩০ নাগরিক বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছিলেন। পরে তাদেরকে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হয়।

কালের চিঠি / আলিফ

Tag :

মিয়ানমার সেনা-বিজিপির আরও ১৮ সদস্য পালিয়ে বাংলাদেশে

Update Time : ০৫:৫২:২৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪

মিয়ানমারে চলমান সংঘর্ষের জেরে দেশটির বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি) ও সেনাবাহিনীর আরও ১৮ জন সদস্য পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। এ নিয়ে গত তিন দিনে দেশটির মোট ৩৪ জন সেনা ও বিজিপি সদস্য বাংলাদেশে আশ্রয় ‍নিয়েছেন।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদর দফতরের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরীফুল ইসলাম মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মঙ্গলবারে এখন পর্যন্ত নতুন করে আরও ১৮ জন বিজিপি ও সেনা সদস্য বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছেন। তবে কোন বাহিনীর কতজন সদস্য রয়েছেন তা এখনই বলা যাচ্ছে না। এদের মধ্যে সকালে দুই জন বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার রেজুপাড়া সীমান্ত দিয়ে এবং ১০ জন জমছড়ি সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছেন। বাইশফাড়ি সীমান্ত দিয়ে দুপুরে ১ জন এবং জমছড়ি সীমান্ত দিয়ে বিকেলেও এসেছেন ৫ জন।

উল্লেখ্য, গতকাল সোমবার (১৫ এপ্রিল) দুপুরে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশফাড়ি সীমান্ত দিয়ে মিয়ানমারের দুই জন সেনা সদস্য বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। গত রোববারও টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে পালিয়ে আসে বিজিপির ১৪ জন সদস্য।

নতুন করে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা ৩৪ জনকেই নাইক্ষ্যংছড়ি সদরে ১১ বিজিবি হেফাজতে নেয়া হয়েছে। সেখানে আগে থেকে আরও ১৮০ জন সদস্য আশ্রয়ে রয়েছেন। ফলে এ নিয়ে বর্তমানে মিয়ানমারের মোট ২১৪ জন সেনা ও বিজিপি সদস্য আশ্রয়ে রয়েছেন।

চলতি বছরে এর আগেও মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সদস্যসহ ৩৩০ নাগরিক বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছিলেন। পরে তাদেরকে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হয়।

কালের চিঠি / আলিফ