রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আরও ১২ বিজিপি সদস্য আশ্রয় নিলেন বাংলাদেশে

 

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তপথে মিয়ানমারের আরও ১২ বিজিপি সদস্য বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। ফাইল ছবি
মিয়ানমারের অভ্যন্তরে চলমান সংঘাতে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তপথ দিয়ে আরও ১২ মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিজিপি) সদস্য আশ্রয় নিয়েছেন বাংলাদেশে। আজ মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) সকালে তাঁরা বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেন।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও স্থানীয়রা জানায়, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়নের আষাঢ়তলী-জামছড়ি ও ঘুমধুম ইউনিয়নের রেজু সীমান্তপথে মিয়ানমারের ১২ বিজিপি সদস্য আশ্রয় নেন বাংলাদেশে। মিয়ানমারের অভ্যন্তরে জান্তা সরকারের বাহিনীর সঙ্গে আরাকান আর্মি (এএ) বিদ্রোহীদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে সংঘাত চলে আসছে। সংঘাতে বিদ্রোহীদের সঙ্গে টিকতে না পেরে মিয়ানমারের বিজিপি সদস্যরা জীবন বাঁচাতে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিচ্ছেন।

ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য বাবুল কান্তি চাকমা জানান, ফাত্রাঝিরি রেজু আমতলীপাড়া সীমান্তপথে দুজন বিজিপি সদস্য বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিয়েছেন। সংঘাত চলমান থাকায় এদের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল আবছার ইমন বলেন, জামছড়ি সীমান্তপথে নতুন করে আরও ১০ বিজিপি সদস্য পালিয়ে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিয়েছেন। তাদের বিজিবির তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) গণ-সংযোগ কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম জানান, আজ সকালে ১২ বিজিপি সদস্য সীমান্তপথে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিয়েছেন। তাদের নিরস্ত্র করে বিজিবি ক্যাম্পে হেফাজতে রাখা হয়েছে।

এর আগে মিয়ানমারের ১৭৯ বিজিপি সদস্য বাংলাদেশে আশ্রয় নেন। আশ্রয় নেওয়া বিজিপি সদস্যদের নিরস্ত্র করে বিজিবির হেফাজতে নেওয়া হয়।

কালের চিঠি / আশিকুর।

Tag :
Popular Post

কোটা বিরোধী আন্দোলনে ঢাকায় ২ শিক্ষার্থী নিহত

আরও ১২ বিজিপি সদস্য আশ্রয় নিলেন বাংলাদেশে

Update Time : ০৩:০২:৫১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪

 

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তপথে মিয়ানমারের আরও ১২ বিজিপি সদস্য বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। ফাইল ছবি
মিয়ানমারের অভ্যন্তরে চলমান সংঘাতে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তপথ দিয়ে আরও ১২ মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিজিপি) সদস্য আশ্রয় নিয়েছেন বাংলাদেশে। আজ মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) সকালে তাঁরা বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেন।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও স্থানীয়রা জানায়, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়নের আষাঢ়তলী-জামছড়ি ও ঘুমধুম ইউনিয়নের রেজু সীমান্তপথে মিয়ানমারের ১২ বিজিপি সদস্য আশ্রয় নেন বাংলাদেশে। মিয়ানমারের অভ্যন্তরে জান্তা সরকারের বাহিনীর সঙ্গে আরাকান আর্মি (এএ) বিদ্রোহীদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে সংঘাত চলে আসছে। সংঘাতে বিদ্রোহীদের সঙ্গে টিকতে না পেরে মিয়ানমারের বিজিপি সদস্যরা জীবন বাঁচাতে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিচ্ছেন।

ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য বাবুল কান্তি চাকমা জানান, ফাত্রাঝিরি রেজু আমতলীপাড়া সীমান্তপথে দুজন বিজিপি সদস্য বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিয়েছেন। সংঘাত চলমান থাকায় এদের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল আবছার ইমন বলেন, জামছড়ি সীমান্তপথে নতুন করে আরও ১০ বিজিপি সদস্য পালিয়ে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিয়েছেন। তাদের বিজিবির তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) গণ-সংযোগ কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম জানান, আজ সকালে ১২ বিজিপি সদস্য সীমান্তপথে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিয়েছেন। তাদের নিরস্ত্র করে বিজিবি ক্যাম্পে হেফাজতে রাখা হয়েছে।

এর আগে মিয়ানমারের ১৭৯ বিজিপি সদস্য বাংলাদেশে আশ্রয় নেন। আশ্রয় নেওয়া বিজিপি সদস্যদের নিরস্ত্র করে বিজিবির হেফাজতে নেওয়া হয়।

কালের চিঠি / আশিকুর।