মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদ সালামি নিয়ে তর্ক, স্বামীকে কোপালেন স্ত্রী

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় ঈদ সালামি দেওয়াকে কেন্দ্র করে স্ত্রীর দায়ের কোপে আহত হয়েছেন স্বামী তাইজুল ইসলাম। আহত স্বামী রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ঘটনায় স্বামী ও স্ত্রী উভয়ে হাতিবান্ধা থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করেছেন। শনিবার (১৩ এপ্রিল) দুপুরে হাতীবান্ধা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নির্মল চন্দ্র রায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, উপজেলার নওদাবাস ইউনিয়নের চৌপুতি বটতলা এলাকার তাইজুল ইসলাম ঈদের দিন সকালে তার ভাতিজাদের ২০ টাকা করে সালামী দিতে থাকলে তার স্ত্রী রাশেদা বেগম ২০ টাকার পরিবর্তে ১০ টাকা দিতে বলেন। এ নিয়ে তর্ক থেকে স্বামী-স্ত্রীর হাতাহাতি শুরু হয়। একপর্যায়ে স্ত্রী রাশেদা দা দিয়ে কোপ দেয় তাইজুলকে। এতে তাইজুলের ঘাড়ের নিচে কেটে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে হাতীবান্ধা হাসপাতাল পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

তাইজুল জানান, তার স্ত্রী ঈদ সালামি নিয়ে তর্ক করার একপর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে তাকে দা দিয়ে ঘারে আঘাত করে। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। বর্তমানে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় বাদী হয়ে স্থানীয় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি।

রাশেদা জানান, তার স্বামী তাকে মারধর করে ওই দা নিয়ে আঘাত করার চেষ্টা করেন। এতে তিনি বাধা দিলে ওই দা তার স্বামীর ঘাড়ের নিচে লাগে। এ ঘটনায় তিনি হাতিবান্ধা থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

হাতীবান্ধা থানার পরিদর্শক নির্মল চন্দ্র রায় জানান, ঈদের সালামি নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মারামারি হয়েছে। এ ঘটনায় উভয়েই থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কালের চিঠি / আশিকুর।

Tag :
Popular Post

বেরোবিতে কোঠা ইস্যুতে আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা

ঈদ সালামি নিয়ে তর্ক, স্বামীকে কোপালেন স্ত্রী

Update Time : ০৩:৩১:৫২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় ঈদ সালামি দেওয়াকে কেন্দ্র করে স্ত্রীর দায়ের কোপে আহত হয়েছেন স্বামী তাইজুল ইসলাম। আহত স্বামী রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ঘটনায় স্বামী ও স্ত্রী উভয়ে হাতিবান্ধা থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করেছেন। শনিবার (১৩ এপ্রিল) দুপুরে হাতীবান্ধা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নির্মল চন্দ্র রায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, উপজেলার নওদাবাস ইউনিয়নের চৌপুতি বটতলা এলাকার তাইজুল ইসলাম ঈদের দিন সকালে তার ভাতিজাদের ২০ টাকা করে সালামী দিতে থাকলে তার স্ত্রী রাশেদা বেগম ২০ টাকার পরিবর্তে ১০ টাকা দিতে বলেন। এ নিয়ে তর্ক থেকে স্বামী-স্ত্রীর হাতাহাতি শুরু হয়। একপর্যায়ে স্ত্রী রাশেদা দা দিয়ে কোপ দেয় তাইজুলকে। এতে তাইজুলের ঘাড়ের নিচে কেটে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে হাতীবান্ধা হাসপাতাল পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

তাইজুল জানান, তার স্ত্রী ঈদ সালামি নিয়ে তর্ক করার একপর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে তাকে দা দিয়ে ঘারে আঘাত করে। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। বর্তমানে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় বাদী হয়ে স্থানীয় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি।

রাশেদা জানান, তার স্বামী তাকে মারধর করে ওই দা নিয়ে আঘাত করার চেষ্টা করেন। এতে তিনি বাধা দিলে ওই দা তার স্বামীর ঘাড়ের নিচে লাগে। এ ঘটনায় তিনি হাতিবান্ধা থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

হাতীবান্ধা থানার পরিদর্শক নির্মল চন্দ্র রায় জানান, ঈদের সালামি নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মারামারি হয়েছে। এ ঘটনায় উভয়েই থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কালের চিঠি / আশিকুর।