শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তিন ছেলে নিহত হলেও বন্ধ হবে না যুদ্ধবিরতি আলোচনা, বললেন হামাস নেতা হানিয়া

গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি বিমান হামলায় হামাসের শীর্ষ নেতা ইসমাইল হানিয়ার তিন ছেলে ও নাতি-নাতনি নিহত হয়। তবে হামাসের প্রধান ইসমাইল হানিয়া বলেছেন, ইসরায়েলের বিমান হামলায় তার তিন ছেলে ও নাতি-নাতনি নিহত হওয়ার ঘটনা গাজায় যুদ্ধবিরতি নিয়ে আলোচনায় প্রভাব ফেলবে না।

বৃহস্পতিবার, এমনটাই জানিয়েছেন হামাস নেতা ইসমাইল হানিয়া। এই নেতার দাবি, ফিলিস্তিনিদের স্বার্থ সবকিছুর ঊর্ধ্বে। এসময় নিজের সন্তানরা হামাসের যোদ্ধা ছিলো না বলেও দাবি জানান তিনি। হানিয়ার অভিযোগ, গাজায় যুদ্ধবিরতি আলোচনা প্রক্রিয়া ভেস্তে দিতেই চালানো হয়েছে এই হামলা। হামাসের রাজনৈতিক শাখার প্রধান সন্তান হারানোর পর, ইসরায়েলের সাথে চলমান যুদ্ধবিরতির আলোচনায় ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠীটির অবস্থান বদলে যাওয়ার শঙ্কা তৈরি হয়েছিলো। তবে, সেসব শঙ্কা উড়িয়েই দিলেন হানিয়া। তার দাবি, এখনও আলোচনা এগিয়ে নিতে চায়।

ইসমাইল হানিয়া বলেন, যদি তারা মনে করে এই হামলার পর হামাসের অবস্থান বদলে যাবে, তাহলে সেটি তাদের অলীক কল্পনা। নিজেদের অপরাধ ঢাকতে মিথ্যে বলছে ইসরায়েল। তাদের দাবি ভিত্তিহীন। কেউ কীভাবে শিশু সন্তানদের সাথে নিয়ে অপারেশনে যেতে পারে? তারা ঈদের দিন আত্মীয়ের সাথে দেখা করতে যাচ্ছিলো। গাজায় গণহত্যা চালিয়ে বহুবারই মিথ্যা গল্প বানিয়েছে ইসরায়েল। আমার কাছে ফিলিস্তিনিদের স্বার্থ সবার আগে, আর আমার সন্তানরাও এই ফিলিস্তিনিদের অংশ। আমরা এখনও চুক্তির জন্য তৈরি আমরা।

কালের চিঠি / আলিফ

Tag :

তিন ছেলে নিহত হলেও বন্ধ হবে না যুদ্ধবিরতি আলোচনা, বললেন হামাস নেতা হানিয়া

Update Time : ০৫:১৮:১৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪

গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি বিমান হামলায় হামাসের শীর্ষ নেতা ইসমাইল হানিয়ার তিন ছেলে ও নাতি-নাতনি নিহত হয়। তবে হামাসের প্রধান ইসমাইল হানিয়া বলেছেন, ইসরায়েলের বিমান হামলায় তার তিন ছেলে ও নাতি-নাতনি নিহত হওয়ার ঘটনা গাজায় যুদ্ধবিরতি নিয়ে আলোচনায় প্রভাব ফেলবে না।

বৃহস্পতিবার, এমনটাই জানিয়েছেন হামাস নেতা ইসমাইল হানিয়া। এই নেতার দাবি, ফিলিস্তিনিদের স্বার্থ সবকিছুর ঊর্ধ্বে। এসময় নিজের সন্তানরা হামাসের যোদ্ধা ছিলো না বলেও দাবি জানান তিনি। হানিয়ার অভিযোগ, গাজায় যুদ্ধবিরতি আলোচনা প্রক্রিয়া ভেস্তে দিতেই চালানো হয়েছে এই হামলা। হামাসের রাজনৈতিক শাখার প্রধান সন্তান হারানোর পর, ইসরায়েলের সাথে চলমান যুদ্ধবিরতির আলোচনায় ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠীটির অবস্থান বদলে যাওয়ার শঙ্কা তৈরি হয়েছিলো। তবে, সেসব শঙ্কা উড়িয়েই দিলেন হানিয়া। তার দাবি, এখনও আলোচনা এগিয়ে নিতে চায়।

ইসমাইল হানিয়া বলেন, যদি তারা মনে করে এই হামলার পর হামাসের অবস্থান বদলে যাবে, তাহলে সেটি তাদের অলীক কল্পনা। নিজেদের অপরাধ ঢাকতে মিথ্যে বলছে ইসরায়েল। তাদের দাবি ভিত্তিহীন। কেউ কীভাবে শিশু সন্তানদের সাথে নিয়ে অপারেশনে যেতে পারে? তারা ঈদের দিন আত্মীয়ের সাথে দেখা করতে যাচ্ছিলো। গাজায় গণহত্যা চালিয়ে বহুবারই মিথ্যা গল্প বানিয়েছে ইসরায়েল। আমার কাছে ফিলিস্তিনিদের স্বার্থ সবার আগে, আর আমার সন্তানরাও এই ফিলিস্তিনিদের অংশ। আমরা এখনও চুক্তির জন্য তৈরি আমরা।

কালের চিঠি / আলিফ