মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঢাকায় গ্যাস লিকেজে দগ্ধ ৬ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক

রাজধানীর মিরপুরের ভাষানটেকে গ্যাস লিকেজে বিস্ফোরণে দগ্ধ ৬ জনের অবস্থাই আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন শেখ হাসিনা বার্ন ইন্সটিটিউটের আবাসিক সার্জন পার্থ শংকর পাল।

শুক্রবার (১২ এপ্রিল) সকালে এ কথা জানান তিনি। ছয় জনের মধ্যে ১ জনকে আইসিইউতে, আর দুই জনকে এইচডিইউতে নেয়া হয়েছে।

ভাষানটেকের কালভার্ট রোডের দ্বিতীয় তলা বাড়ির নিচ তলায় গ্যাস লিকেজের এই ঘটনা ঘটে। ভোর ৪টার দিকে নামাজ পড়তে উঠে কয়েল জ্বালাতে গিয়ে লিকেজ সিলিন্ডারের জমে থাকা গ্যাস থেকে আগুনের সূত্রপাত। আহতরা সবাই একই পরিবারের।

দগ্ধদের মধ্যে মেহেরুন্নেছার (৮০) ৪৭ শতাংশ এবং তার মেয়ে সূর্য বানুর (৩০) ৮২ শতাংশ ও স্বামী মো. লিটনের (৫২) ৬৭ শতাংশ, লিটন-সূর্য বানুর সন্তান সুজন (৮) ৪৩ শতাংশ, লামিয়ার (৭) ৫৫ শতাংশ ও লিজার (১৮) ৩০ শতাংশ পুড়ে গেছে।

তাদের প্রতিবেশীরা জানান, গ্যাস সিলিন্ডারটি ঘরের বাইরে ছিল। কিন্তু পাইপের সাহায্যে ঘরের মধ্যে চুলার সংযোগ ছিল। ওই চুলার সংযোগে লিকেজ লিকেজ থাকায় ঘরে গ্যাস জমে ছিল। মশার কয়েল জ্বালানোর সঙ্গে সঙ্গে এই ঘটনাটি ঘটে।

দগ্ধ লিটন পেশায় একজন ফার্নিচার ব্যবসায়ী। দুই বছর ধরে ওই বাসাতে পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকতেন তিনি।

কালের চিঠি / আলিফ

Tag :
Popular Post

বেরোবিতে কোঠা ইস্যুতে আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা

ঢাকায় গ্যাস লিকেজে দগ্ধ ৬ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক

Update Time : ০৩:০১:৪৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪

রাজধানীর মিরপুরের ভাষানটেকে গ্যাস লিকেজে বিস্ফোরণে দগ্ধ ৬ জনের অবস্থাই আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন শেখ হাসিনা বার্ন ইন্সটিটিউটের আবাসিক সার্জন পার্থ শংকর পাল।

শুক্রবার (১২ এপ্রিল) সকালে এ কথা জানান তিনি। ছয় জনের মধ্যে ১ জনকে আইসিইউতে, আর দুই জনকে এইচডিইউতে নেয়া হয়েছে।

ভাষানটেকের কালভার্ট রোডের দ্বিতীয় তলা বাড়ির নিচ তলায় গ্যাস লিকেজের এই ঘটনা ঘটে। ভোর ৪টার দিকে নামাজ পড়তে উঠে কয়েল জ্বালাতে গিয়ে লিকেজ সিলিন্ডারের জমে থাকা গ্যাস থেকে আগুনের সূত্রপাত। আহতরা সবাই একই পরিবারের।

দগ্ধদের মধ্যে মেহেরুন্নেছার (৮০) ৪৭ শতাংশ এবং তার মেয়ে সূর্য বানুর (৩০) ৮২ শতাংশ ও স্বামী মো. লিটনের (৫২) ৬৭ শতাংশ, লিটন-সূর্য বানুর সন্তান সুজন (৮) ৪৩ শতাংশ, লামিয়ার (৭) ৫৫ শতাংশ ও লিজার (১৮) ৩০ শতাংশ পুড়ে গেছে।

তাদের প্রতিবেশীরা জানান, গ্যাস সিলিন্ডারটি ঘরের বাইরে ছিল। কিন্তু পাইপের সাহায্যে ঘরের মধ্যে চুলার সংযোগ ছিল। ওই চুলার সংযোগে লিকেজ লিকেজ থাকায় ঘরে গ্যাস জমে ছিল। মশার কয়েল জ্বালানোর সঙ্গে সঙ্গে এই ঘটনাটি ঘটে।

দগ্ধ লিটন পেশায় একজন ফার্নিচার ব্যবসায়ী। দুই বছর ধরে ওই বাসাতে পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকতেন তিনি।

কালের চিঠি / আলিফ