রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারত থেকে বাংলাদেশের ৯১ বিঘা জমি উদ্ধার

 

 

 

এর মধ্যে ৭৭ বিঘা জমি আবাদযোগ্য, ১১ বিঘা চা বাগান এবং বাকি তিন বিঘা নদী চর (নদী দ্বীপ)

 

 

ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈল উপজেলার জগদল ও বেউড়াড়ি সীমান্তে ৭০ বছর ভারতের নিয়ন্ত্রণে থাকা ৯১ বিঘা এলাকা সফলভাবে উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

 

মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) উদ্ধার করা এলাকায় সাদা পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে এ তথ্য নিশ্চিত করেন ঠাকুরগাঁওয়ে বিজিবির ৫০ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল তানজির আহমেদ।

 

 

ভূমি জরিপ করতে বিজিবির আনুষ্ঠানিক অনুরোধের পর বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে কূটনৈতিক এবং পদ্ধতিগত সম্পৃক্ততার মাধ্যমে এই ভূমি পুনরুদ্ধার সম্ভব হয়।

 

লেফটেন্যান্ট কর্নেল তানজির আহমেদ বলেন, “এই সাফল্যের শুরুতে জগদল ও বেউড়াছড়ি সীমান্তের কিছু এলাকাকে প্রাথমিকভাবে বাংলাদেশের মালিকানাধীন হিসেবে চিহ্নিত করি। আমাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিজিবি ও বিএসএফের (বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স) যৌথ জরিপে আমাদের অবস্থানকে সমর্থন করা হয়।”

 

 

তিনি আরও বলেন, “সীমান্তবর্তী মানুষ ৯১ বিঘা জমি ফিরে পাওয়ায় অত্যন্ত আনন্দিত। এই জমি সরকারি জমির নথিতে (খাস খতিয়ান) রেকর্ড করা হয়েছে।”

 

উদ্ধার করা জমির মধ্যে জগদল বিওপি (সীমান্ত ফাঁড়ি) এলাকায় প্রায় ১৫ বিঘা এবং বেউড়াছড়ি বিওপি এলাকায় প্রায় ৭৬ বিঘা জমি রয়েছে। এর মধ্যে ৭৭ বিঘা জমি আবাদযোগ্য, ১১ বিঘা চা বাগান এবং বাকি তিন বিঘা নদী চর (নদী দ্বীপ)।

 

 

এর আগে গত ৬ ও ৭ মার্চ বাংলাদেশ ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের সহকারী জরিপ কর্মকর্তা এবং ভারতীয় জরিপ অধিদপ্তরের সহকারী দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দেওয়া চূড়ান্ত জরিপ অনুযায়ী ৯১ বিঘা জমির পাশাপাশি ২৩ দশমিক ৫ বিঘা জমি ভারতের বলে জানা যায়।

 

কালের চিঠি / আশিকুর।

Tag :

ভারত থেকে বাংলাদেশের ৯১ বিঘা জমি উদ্ধার

Update Time : ০৫:৫৩:৫৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ এপ্রিল ২০২৪

 

 

 

এর মধ্যে ৭৭ বিঘা জমি আবাদযোগ্য, ১১ বিঘা চা বাগান এবং বাকি তিন বিঘা নদী চর (নদী দ্বীপ)

 

 

ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈল উপজেলার জগদল ও বেউড়াড়ি সীমান্তে ৭০ বছর ভারতের নিয়ন্ত্রণে থাকা ৯১ বিঘা এলাকা সফলভাবে উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

 

মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) উদ্ধার করা এলাকায় সাদা পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে এ তথ্য নিশ্চিত করেন ঠাকুরগাঁওয়ে বিজিবির ৫০ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল তানজির আহমেদ।

 

 

ভূমি জরিপ করতে বিজিবির আনুষ্ঠানিক অনুরোধের পর বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে কূটনৈতিক এবং পদ্ধতিগত সম্পৃক্ততার মাধ্যমে এই ভূমি পুনরুদ্ধার সম্ভব হয়।

 

লেফটেন্যান্ট কর্নেল তানজির আহমেদ বলেন, “এই সাফল্যের শুরুতে জগদল ও বেউড়াছড়ি সীমান্তের কিছু এলাকাকে প্রাথমিকভাবে বাংলাদেশের মালিকানাধীন হিসেবে চিহ্নিত করি। আমাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিজিবি ও বিএসএফের (বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স) যৌথ জরিপে আমাদের অবস্থানকে সমর্থন করা হয়।”

 

 

তিনি আরও বলেন, “সীমান্তবর্তী মানুষ ৯১ বিঘা জমি ফিরে পাওয়ায় অত্যন্ত আনন্দিত। এই জমি সরকারি জমির নথিতে (খাস খতিয়ান) রেকর্ড করা হয়েছে।”

 

উদ্ধার করা জমির মধ্যে জগদল বিওপি (সীমান্ত ফাঁড়ি) এলাকায় প্রায় ১৫ বিঘা এবং বেউড়াছড়ি বিওপি এলাকায় প্রায় ৭৬ বিঘা জমি রয়েছে। এর মধ্যে ৭৭ বিঘা জমি আবাদযোগ্য, ১১ বিঘা চা বাগান এবং বাকি তিন বিঘা নদী চর (নদী দ্বীপ)।

 

 

এর আগে গত ৬ ও ৭ মার্চ বাংলাদেশ ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের সহকারী জরিপ কর্মকর্তা এবং ভারতীয় জরিপ অধিদপ্তরের সহকারী দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দেওয়া চূড়ান্ত জরিপ অনুযায়ী ৯১ বিঘা জমির পাশাপাশি ২৩ দশমিক ৫ বিঘা জমি ভারতের বলে জানা যায়।

 

কালের চিঠি / আশিকুর।