মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদ ও পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে হিলি স্থলবন্দরে ৬ দিন আমদানি-রফতানি বন্ধ

পবিত্র ঈদুল ফিতর ও পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে হিলি স্থলবন্দরে ৬ দিনের ছুটি ঘোষণা করেছেন ব্যবসায়ীরা। মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) থেকে রোববার (১৪ এপ্রিল) পর্যন্ত ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে এই ছুটি ঘোষণা করা হয়। ছুটির দিনগুলোতে বন্দর দিয়ে সকল প্রকার পণ্য আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকবে।

হিলি স্থলবন্দর আমদানি ও রফতানিকারক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান স্বাক্ষরিত এক চিঠির মাধ্যমে এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। ছুটি শেষে আগামী ১৫ এপ্রিল থেকে বন্দরের আমদানি-রফতানি কার্যক্রম পুনরায় চালু হবে।

এদিকে ব্যবসায়ীদের ছুটির কারণে বন্দরের আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকলেও বন্দরের অভ্যন্তরে ট্রাকে পণ্য ওঠা-নামা ও ছাড়করণের কাজ স্বাভাবিক রয়েছে।

পানামা হিলি পোর্ট কর্তৃপক্ষ জানায়, ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে ৬ দিনের ছুটি ঘোষণা করা হলেও সরকারের নির্ধারিত ছুটি ছাড়া অন্যান্য দিনে বন্দরের স্বাভাবিক কাযক্রম চালু থাকবে। কোন আমদানিকারক পণ্য খালাস নিতে চাইলে তা নিতে পারবে।

এদিকে হিলি ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট এর অফিসার ইনচার্জ আশরাফুর ইসলাম জানান, ঈদের ছুটিতে বন্দরের আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকলেও ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে পাসপোর্টে যাত্রী পারাপার স্বাভাবিক থাকবে। যদি কোনো যাত্রী ঈদের দিন ভারতে যেতে চান বা ভারত থেকে বাংলাদেশে আসতে চান তাও পারবেন।

কালের চিঠি / আলিফ

Tag :
Popular Post

বেরোবিতে কোঠা ইস্যুতে আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা

ঈদ ও পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে হিলি স্থলবন্দরে ৬ দিন আমদানি-রফতানি বন্ধ

Update Time : ০৭:৪০:৩৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ এপ্রিল ২০২৪

পবিত্র ঈদুল ফিতর ও পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে হিলি স্থলবন্দরে ৬ দিনের ছুটি ঘোষণা করেছেন ব্যবসায়ীরা। মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) থেকে রোববার (১৪ এপ্রিল) পর্যন্ত ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে এই ছুটি ঘোষণা করা হয়। ছুটির দিনগুলোতে বন্দর দিয়ে সকল প্রকার পণ্য আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকবে।

হিলি স্থলবন্দর আমদানি ও রফতানিকারক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান স্বাক্ষরিত এক চিঠির মাধ্যমে এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। ছুটি শেষে আগামী ১৫ এপ্রিল থেকে বন্দরের আমদানি-রফতানি কার্যক্রম পুনরায় চালু হবে।

এদিকে ব্যবসায়ীদের ছুটির কারণে বন্দরের আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকলেও বন্দরের অভ্যন্তরে ট্রাকে পণ্য ওঠা-নামা ও ছাড়করণের কাজ স্বাভাবিক রয়েছে।

পানামা হিলি পোর্ট কর্তৃপক্ষ জানায়, ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে ৬ দিনের ছুটি ঘোষণা করা হলেও সরকারের নির্ধারিত ছুটি ছাড়া অন্যান্য দিনে বন্দরের স্বাভাবিক কাযক্রম চালু থাকবে। কোন আমদানিকারক পণ্য খালাস নিতে চাইলে তা নিতে পারবে।

এদিকে হিলি ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট এর অফিসার ইনচার্জ আশরাফুর ইসলাম জানান, ঈদের ছুটিতে বন্দরের আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকলেও ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে পাসপোর্টে যাত্রী পারাপার স্বাভাবিক থাকবে। যদি কোনো যাত্রী ঈদের দিন ভারতে যেতে চান বা ভারত থেকে বাংলাদেশে আসতে চান তাও পারবেন।

কালের চিঠি / আলিফ