রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কয়েকশ রাউন্ড গুলি ছোড়ার পর শান্ত থানচি

বান্দরবানের থানচিতে পুলিশ ও বিজিবির সাথে ব্যাপক গোলাগুলি হয়েছে সশস্ত্র গোষ্ঠী কুকি চিনের। বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) রাতে আচমকা সন্ত্রাসী গোষ্ঠী কুকি চিন থানচি থানা লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়ে হামলার প্রতিরোধ করে। পরে বিজিবিও সন্ত্রাসীদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে।

আইনশৃঙ্লা বাহিনীর তৎপরতায় পরে পিছু হটতে বাধ্য হয় সন্ত্রাসী গোষ্ঠীটি। এ সময় দুই শতাধিক রাউন্ড গুলির শব্দে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। গোলাগুলির শুরুর পরই থানচি বাজার একেবারে জনশূন্য হয়ে পড়ে।

থানচি থানার ওসি জসীম উদ্দীন রাতে জানান, পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত রয়েছে। সন্ত্রাসীরা থানার আশপাশে রয়েছে বলে তাদের কাছে খবর রয়েছে। সেজন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সতর্ক অবস্থায় রয়েছে।

গোলাগুলি শুরুর পর থানচির উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মামুন জানিয়েছিলেন, রাত সাড়ে আটটার দিকে থানচি বাজার ও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এলাকায় কেএনএফের সঙ্গে পুলিশ ও বিজিবির তুমুল সংঘর্ষ শুরু হয়।

এর আগে, বুধবার (৩ এপ্রিল) দুপুরে থানচি বাজারে গুলি চালিয়ে সোনালী ব্যাংক ও কৃষি ব্যাংকে ডাকাতি করে সশস্ত্র দুর্বৃত্তরা। এছাড়া সোনালী ব্যাংকের বান্দরবানের রুমা শাখায় ডাকাতির পর ম্যানেজার নেজাম উদ্দিনকে অপহরণ করে সন্ত্রাসীরা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় র‍্যাব ব্যাংকের ম্যানেজারকে উদ্ধার করে।

কালের চিঠি / আলিফ

Tag :

কয়েকশ রাউন্ড গুলি ছোড়ার পর শান্ত থানচি

Update Time : ০৪:৫৩:৩২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৫ এপ্রিল ২০২৪

বান্দরবানের থানচিতে পুলিশ ও বিজিবির সাথে ব্যাপক গোলাগুলি হয়েছে সশস্ত্র গোষ্ঠী কুকি চিনের। বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) রাতে আচমকা সন্ত্রাসী গোষ্ঠী কুকি চিন থানচি থানা লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়ে হামলার প্রতিরোধ করে। পরে বিজিবিও সন্ত্রাসীদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে।

আইনশৃঙ্লা বাহিনীর তৎপরতায় পরে পিছু হটতে বাধ্য হয় সন্ত্রাসী গোষ্ঠীটি। এ সময় দুই শতাধিক রাউন্ড গুলির শব্দে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। গোলাগুলির শুরুর পরই থানচি বাজার একেবারে জনশূন্য হয়ে পড়ে।

থানচি থানার ওসি জসীম উদ্দীন রাতে জানান, পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত রয়েছে। সন্ত্রাসীরা থানার আশপাশে রয়েছে বলে তাদের কাছে খবর রয়েছে। সেজন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সতর্ক অবস্থায় রয়েছে।

গোলাগুলি শুরুর পর থানচির উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মামুন জানিয়েছিলেন, রাত সাড়ে আটটার দিকে থানচি বাজার ও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এলাকায় কেএনএফের সঙ্গে পুলিশ ও বিজিবির তুমুল সংঘর্ষ শুরু হয়।

এর আগে, বুধবার (৩ এপ্রিল) দুপুরে থানচি বাজারে গুলি চালিয়ে সোনালী ব্যাংক ও কৃষি ব্যাংকে ডাকাতি করে সশস্ত্র দুর্বৃত্তরা। এছাড়া সোনালী ব্যাংকের বান্দরবানের রুমা শাখায় ডাকাতির পর ম্যানেজার নেজাম উদ্দিনকে অপহরণ করে সন্ত্রাসীরা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় র‍্যাব ব্যাংকের ম্যানেজারকে উদ্ধার করে।

কালের চিঠি / আলিফ