সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাতিল হতে পারে বাংলাদেশের মিয়ানমার সফর

এপ্রিলে মিয়ানমারের বিপক্ষে দুটি আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ খেলার কথা বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের। ফিফার সূচি অনুযায়ী হলেও ম্যাচ দুটি বাতিল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। মূলত, মিয়ানমারে চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে ম্যাচগুলো না হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

মিয়ানমারে চলছে দেশটির সেনাবাহিনীর সঙ্গে একাধিক বিদ্রোহী সশস্ত্র বাহিনীর সংঘাত। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে যা আরও তীব্র হচ্ছে। এমন অবস্থায় আগামী ৭ ও ১১ এপ্রিল মিয়ানমারে অনুষ্ঠেয় ম্যাচ দুটিতে অংশগ্রহণ না করার ভাবনা বাফুফের। ৬ এপ্রিল মিয়ানমারে পৌঁছানোর কথা ছিল সাবিনা-সানজিদাদের।

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন তুষার অবশ্য জানান, এখনই বাতিলের বিষয়টি চূড়ান্ত নয়। নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়ে আরও খোঁজখবর নেবে বাফুফে।

তুষার বলেন, ‘আমরা মেয়েদের নিরাপত্তার কথা ভেবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে একটি সুপারিশপত্র চেয়েছিলাম। এর প্রেক্ষিতে আমরা একটি চিঠি পেয়েছি। চিঠিতে বলা ছিল, এখন না গিয়ে যেন ম্যাচগুলো রি-শিডিউল করি আমরা। মিয়ানমারের সঙ্গে কথা বলছি আমরা। নিরাপত্তার ব্যাপারে আরও খোঁজখবর নিয়ে পরবর্তীতে দেখি কী করা যায়।’

কালের চিঠি/ ফাহিম

Tag :

বাতিল হতে পারে বাংলাদেশের মিয়ানমার সফর

Update Time : ১০:০৭:১৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩১ মার্চ ২০২৪

এপ্রিলে মিয়ানমারের বিপক্ষে দুটি আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ খেলার কথা বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের। ফিফার সূচি অনুযায়ী হলেও ম্যাচ দুটি বাতিল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। মূলত, মিয়ানমারে চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে ম্যাচগুলো না হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

মিয়ানমারে চলছে দেশটির সেনাবাহিনীর সঙ্গে একাধিক বিদ্রোহী সশস্ত্র বাহিনীর সংঘাত। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে যা আরও তীব্র হচ্ছে। এমন অবস্থায় আগামী ৭ ও ১১ এপ্রিল মিয়ানমারে অনুষ্ঠেয় ম্যাচ দুটিতে অংশগ্রহণ না করার ভাবনা বাফুফের। ৬ এপ্রিল মিয়ানমারে পৌঁছানোর কথা ছিল সাবিনা-সানজিদাদের।

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন তুষার অবশ্য জানান, এখনই বাতিলের বিষয়টি চূড়ান্ত নয়। নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়ে আরও খোঁজখবর নেবে বাফুফে।

তুষার বলেন, ‘আমরা মেয়েদের নিরাপত্তার কথা ভেবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে একটি সুপারিশপত্র চেয়েছিলাম। এর প্রেক্ষিতে আমরা একটি চিঠি পেয়েছি। চিঠিতে বলা ছিল, এখন না গিয়ে যেন ম্যাচগুলো রি-শিডিউল করি আমরা। মিয়ানমারের সঙ্গে কথা বলছি আমরা। নিরাপত্তার ব্যাপারে আরও খোঁজখবর নিয়ে পরবর্তীতে দেখি কী করা যায়।’

কালের চিঠি/ ফাহিম