রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী পেতে যাচ্ছে আয়ারল্যান্ড

 

 

আয়ারল্যান্ডের ক্ষমতাসীন দল ফাইন গায়েলের নেতা হিসেবে লিও ভারাদকারের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন সিমন হ্যারিস। রোববার তাকে দলটির নেতা হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে ৩৭ বছর বয়সী হ্যারিস আয়ারল্যান্ডের সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন।

 

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিলে হ্যারিস তার পূর্বসূরি ভারাদকারের রেকর্ড ভাঙবেন। ২০১৭ সালে ভারাদকার যখন প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেন, তখন তার বয়স ৩৮ বছর ছিল। আর হ্যারিসের বয়স এখন ৩৭ বছর।

 

গত বুধবার আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পদত্যাগের ঘোষণা দেন লিও ভারাদকার। এরপরই দলীয় নেতৃত্ব লাভের লড়াইয়ে নামেন হ্যারিস। নিয়ম অনুযায়ী, ক্ষমতাসীন দলের নেতাই প্রধানমন্ত্রী হন। সে অনুযায়ী, ফাইন গায়েল দলের নেতা নির্বাচিত হওয়ার মানেই হলো তিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেবেন।

 

আয়ারল্যান্ডে প্রধানমন্ত্রীকে ‘টিশক’ নামে ডাকা হয়। আয়ারল্যান্ডের সংবাদমাধ্যমগুলো ইতিমধ্যে সিমন হ্যারিসকে ‘টিকটক টিশক’ নামে ডাকতে শুরু করেছে।

 

১৬ বছর বয়সে সিমন হ্যারিস ফাইন গায়েল দলে কম বয়সীদের শাখায় যোগ দেন। পরে দ্রুতই তার রাজনৈতিক উত্থান ঘটে। ২০১৬ সালে মাত্র ২৯ বছর বয়সে হ্যারিস আয়ারল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হন।

 

 

কালের চিঠি / আশিকুর।

Tag :

সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী পেতে যাচ্ছে আয়ারল্যান্ড

Update Time : ১১:১৬:৩৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৫ মার্চ ২০২৪

 

 

আয়ারল্যান্ডের ক্ষমতাসীন দল ফাইন গায়েলের নেতা হিসেবে লিও ভারাদকারের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন সিমন হ্যারিস। রোববার তাকে দলটির নেতা হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে ৩৭ বছর বয়সী হ্যারিস আয়ারল্যান্ডের সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন।

 

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিলে হ্যারিস তার পূর্বসূরি ভারাদকারের রেকর্ড ভাঙবেন। ২০১৭ সালে ভারাদকার যখন প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেন, তখন তার বয়স ৩৮ বছর ছিল। আর হ্যারিসের বয়স এখন ৩৭ বছর।

 

গত বুধবার আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পদত্যাগের ঘোষণা দেন লিও ভারাদকার। এরপরই দলীয় নেতৃত্ব লাভের লড়াইয়ে নামেন হ্যারিস। নিয়ম অনুযায়ী, ক্ষমতাসীন দলের নেতাই প্রধানমন্ত্রী হন। সে অনুযায়ী, ফাইন গায়েল দলের নেতা নির্বাচিত হওয়ার মানেই হলো তিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেবেন।

 

আয়ারল্যান্ডে প্রধানমন্ত্রীকে ‘টিশক’ নামে ডাকা হয়। আয়ারল্যান্ডের সংবাদমাধ্যমগুলো ইতিমধ্যে সিমন হ্যারিসকে ‘টিকটক টিশক’ নামে ডাকতে শুরু করেছে।

 

১৬ বছর বয়সে সিমন হ্যারিস ফাইন গায়েল দলে কম বয়সীদের শাখায় যোগ দেন। পরে দ্রুতই তার রাজনৈতিক উত্থান ঘটে। ২০১৬ সালে মাত্র ২৯ বছর বয়সে হ্যারিস আয়ারল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হন।

 

 

কালের চিঠি / আশিকুর।