শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাংবাদিক সংগঠন তৈরি করায় ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ১০ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির (ডিআইইউ) ১০জন শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। তাদের অপরাধ- বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের অনুমতি না নিয়ে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি সাংবাদিক সমিতির (ডিআইইউসাস) নতুন কমিটি গঠন করেছেন।

 

বুধবার (১৩ মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রক্টর অধ্যাপক ড. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, তাদের বারবার মানা করা সত্ত্বেও তারা কথা শোনেনি। সে কারণে বহিষ্কার না করে উপায় ছিল না। বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান, উপাচার্য সহ সবাই সম্মিলিতভাবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কৃতরা হলেন- ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি কালাম মুহাম্মদ (এশিয়ান টিভি), সাধারণ সম্পাদক রেজোয়ানুল হক (একুশে সংবাদ), সহ-সভাপতি সাদিয়া তানজিলা সানভি (দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাস), যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাওছার আলী (রাইজিং বিডি), সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ (দৈনিক ভোরের ডাক), দফতর, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মো. রাকিবুল ইসলাম (দৈনিক আমার সংবাদ/ক্যাম্পাস টাইমস), কোষাধ্যক্ষ জাকারিয়া হুসাইন (বার্তা বিচিত্রা) ও কার্যনির্বাহী সদস্য সম্রাট (প্রিয়দেশ ২৪), ইসমাম হোসেন (দৈনিক স্বদেশ প্রতিদিন) ও মুছা মল্লিক (ঢাকা পোস্ট)।

 

বিজ্ঞপ্তিতে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বলছে, সাম্প্রতিক সময়ে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির নাম ব্যবহার করে কিছু সংখ্যক ছাত্র সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে একটি সমিতি চালাচ্ছেন। ঢাকা ইন্টান্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে এ ধরনের কোন সাংবাদিক সমিতি নেই এবং ইউনিভার্সিটির কর্তৃপক্ষ এ ধরনের সাংবাদিক সমিতিকে কোন স্বীকৃতি প্রদান করেননি। এ বিষয়ে গত ৫ মার্চ একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। ওই সাংবাদিক সমিতি ইউনিভার্সিটির অনুমতি না নিয়ে ক্যাম্পাসে ক্লাস রুম ব্যবহার করে ৯ মার্চ একটি সাধারণ সভার আয়োজন করে এবং ১০ মার্চ ২০২৪-২৫ সালের কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন করে, যা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম বহির্ভূত।

 

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, বুধবার বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান, উপাচার্য, উপ-উপাচার্য, রেজিস্ট্রার (ইনচার্জ), প্রক্টর এবং সকল বিভাগীয় প্রধানের সমন্বয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে উক্ত সাংবাদিক সমিতির সংশ্লিষ্ট সদস্যকে কেন বহিষ্কার করা হবে না এই মর্মে কারণ দর্শানো এবং একই সঙ্গে তাদেরকে সাময়িক বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রো-ভিসি গণেশ চন্দ্র সাহা আজ ব্যস্ত রয়েছেন, কাল কথা বলবেন বলে কল কেটে দেন।

 

জানতে চাইলে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান শামীম হায়দার পাটোয়ারী  বলেন, আপনাদের যা ইচ্ছে করতে পারেন। এ বিষয়ে আমি কোনো মন্তব্য করব না।

 

এদিকে বহিষ্কার হওয়া শিক্ষার্থীরা বলছেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বিভিন্ন অনিয়ম নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে বেশকিছু প্রতিবেদন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি সাংবাদিক সমিতির সাহসী সদস্যরাই এসব প্রতিবেদন করেছেন। সে কারণে প্রশাসন চায় না বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতা থাকুক। সাংবাদিকদের নামে কোন সংগঠন না থাকুক। সমিতি থাকলে তাদের আরও অনিয়ম সামনে আসবে। তাই তারা বারবার সমিতি বন্ধে নোটিশ দিয়ে আসছে এবং আজ আমাদের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

 

Tag :

সাংবাদিক সংগঠন তৈরি করায় ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ১০ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

Update Time : ০৬:১৯:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ মার্চ ২০২৪

ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির (ডিআইইউ) ১০জন শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। তাদের অপরাধ- বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের অনুমতি না নিয়ে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি সাংবাদিক সমিতির (ডিআইইউসাস) নতুন কমিটি গঠন করেছেন।

 

বুধবার (১৩ মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রক্টর অধ্যাপক ড. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, তাদের বারবার মানা করা সত্ত্বেও তারা কথা শোনেনি। সে কারণে বহিষ্কার না করে উপায় ছিল না। বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান, উপাচার্য সহ সবাই সম্মিলিতভাবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কৃতরা হলেন- ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি কালাম মুহাম্মদ (এশিয়ান টিভি), সাধারণ সম্পাদক রেজোয়ানুল হক (একুশে সংবাদ), সহ-সভাপতি সাদিয়া তানজিলা সানভি (দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাস), যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাওছার আলী (রাইজিং বিডি), সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ (দৈনিক ভোরের ডাক), দফতর, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মো. রাকিবুল ইসলাম (দৈনিক আমার সংবাদ/ক্যাম্পাস টাইমস), কোষাধ্যক্ষ জাকারিয়া হুসাইন (বার্তা বিচিত্রা) ও কার্যনির্বাহী সদস্য সম্রাট (প্রিয়দেশ ২৪), ইসমাম হোসেন (দৈনিক স্বদেশ প্রতিদিন) ও মুছা মল্লিক (ঢাকা পোস্ট)।

 

বিজ্ঞপ্তিতে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বলছে, সাম্প্রতিক সময়ে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির নাম ব্যবহার করে কিছু সংখ্যক ছাত্র সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে একটি সমিতি চালাচ্ছেন। ঢাকা ইন্টান্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে এ ধরনের কোন সাংবাদিক সমিতি নেই এবং ইউনিভার্সিটির কর্তৃপক্ষ এ ধরনের সাংবাদিক সমিতিকে কোন স্বীকৃতি প্রদান করেননি। এ বিষয়ে গত ৫ মার্চ একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। ওই সাংবাদিক সমিতি ইউনিভার্সিটির অনুমতি না নিয়ে ক্যাম্পাসে ক্লাস রুম ব্যবহার করে ৯ মার্চ একটি সাধারণ সভার আয়োজন করে এবং ১০ মার্চ ২০২৪-২৫ সালের কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন করে, যা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম বহির্ভূত।

 

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, বুধবার বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান, উপাচার্য, উপ-উপাচার্য, রেজিস্ট্রার (ইনচার্জ), প্রক্টর এবং সকল বিভাগীয় প্রধানের সমন্বয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে উক্ত সাংবাদিক সমিতির সংশ্লিষ্ট সদস্যকে কেন বহিষ্কার করা হবে না এই মর্মে কারণ দর্শানো এবং একই সঙ্গে তাদেরকে সাময়িক বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রো-ভিসি গণেশ চন্দ্র সাহা আজ ব্যস্ত রয়েছেন, কাল কথা বলবেন বলে কল কেটে দেন।

 

জানতে চাইলে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান শামীম হায়দার পাটোয়ারী  বলেন, আপনাদের যা ইচ্ছে করতে পারেন। এ বিষয়ে আমি কোনো মন্তব্য করব না।

 

এদিকে বহিষ্কার হওয়া শিক্ষার্থীরা বলছেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বিভিন্ন অনিয়ম নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে বেশকিছু প্রতিবেদন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি সাংবাদিক সমিতির সাহসী সদস্যরাই এসব প্রতিবেদন করেছেন। সে কারণে প্রশাসন চায় না বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতা থাকুক। সাংবাদিকদের নামে কোন সংগঠন না থাকুক। সমিতি থাকলে তাদের আরও অনিয়ম সামনে আসবে। তাই তারা বারবার সমিতি বন্ধে নোটিশ দিয়ে আসছে এবং আজ আমাদের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।