সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শুরু হলো পবিত্র মাহে রমজান

 

রহমত, মাগফেরাত আর নাজাতের পয়গাম নিয়ে বছর ঘুরে এলো পবিত্র কুরআন নাযিলের মাস পবিত্র মাহে রমজান। সোমবার রাতে তারাবির নামাজ আদায়ের পর ভোররাতে সেহরি খেয়ে সিয়াম সাধনার মাস রমজানের আনুষ্ঠানিকতা শুরু করেছেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। গতকাল (১১ মার্চ) সন্ধ্যায় দেশের আকাশে দেখা যায় পবিত্র মাসের চাঁদ। মহিমান্বিত এই মাস ইবাদত-বন্দেগিতে অতিবাহিত করার প্রত্যয় জানিয়েছেন মুসল্লিরা।

 

প্রথম তারাবির নামাজ পড়তে ভিড় ছিল দেশের প্রতিটি মসজিদেই। অন্যান্য স্থানের মতো জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমেও ছিল ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের ঢল। ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের সাথে এশার নামাজের পর আদায় করেন তারাবি। জীবনে প্রতিক্ষিত আরও একটি রমজান পেয়ে খুশি তারাবি পড়তে যাওয়া মুসল্লিরা। আল্লাহর নিকট ক্ষমা প্রার্থনার পাশাপাশি এই মাসে সংযমী হওয়ার কথাও জানান তারা।

 

একজন মুসল্লি বলেন, একবছর পর পবিত্র রমজান পেয়েছি। আমরা ভাগ্যবান তাই আবারও এই বরকতের মাস পেয়েছি। সিয়াম সাধনা আর আল্লাহর ইবাদত-বন্দেগিতে মাসটি কাটাতে চান তিনি।

 

আরেক বৃদ্ধ মুসল্লি বলেন, যারা ভাগ্যবান তারাই রমজান মাস পেয়ে থাকেন। জীবনের শেষবেলায় এসে আরেকটি রমজান পেয়েছি, সেজন্য আল্লাহর কাছে কোটি কোটি ‍শুকরিয়া। অনেক প্রতিক্ষিত এই মাসকে পেয়েছি। জানি না, জীবনে আর পাবো কিনা।

 

আরেক মুসল্লি বলেন, রমজানে ত্যাগ এবং সকলের সোহার্দ্যপূর্ণ জীবন কামনা করছেন তিনি। প্রথম তারাবি পড়তে পেরে আনন্দিত বলেও জানান তিনি।

 

এর আগে, সোমবার সন্ধ্যায় বায়তুল মোকাররমের ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠক বসে। পরে দেশের আকাশে পবিত্র রমজান মাসের চাঁদ দেখার ঘোষণা দেন ধর্মমন্ত্রী ফরিদুল হক খান। এসময় তিনি, দেশবাসীকে মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা ও রোজার হক আদায়ের আহ্বান জানান।

 

কালের চিঠি / আলিফ

Tag :

শুরু হলো পবিত্র মাহে রমজান

Update Time : ০৫:০৭:৩৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ মার্চ ২০২৪

 

রহমত, মাগফেরাত আর নাজাতের পয়গাম নিয়ে বছর ঘুরে এলো পবিত্র কুরআন নাযিলের মাস পবিত্র মাহে রমজান। সোমবার রাতে তারাবির নামাজ আদায়ের পর ভোররাতে সেহরি খেয়ে সিয়াম সাধনার মাস রমজানের আনুষ্ঠানিকতা শুরু করেছেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। গতকাল (১১ মার্চ) সন্ধ্যায় দেশের আকাশে দেখা যায় পবিত্র মাসের চাঁদ। মহিমান্বিত এই মাস ইবাদত-বন্দেগিতে অতিবাহিত করার প্রত্যয় জানিয়েছেন মুসল্লিরা।

 

প্রথম তারাবির নামাজ পড়তে ভিড় ছিল দেশের প্রতিটি মসজিদেই। অন্যান্য স্থানের মতো জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমেও ছিল ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের ঢল। ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের সাথে এশার নামাজের পর আদায় করেন তারাবি। জীবনে প্রতিক্ষিত আরও একটি রমজান পেয়ে খুশি তারাবি পড়তে যাওয়া মুসল্লিরা। আল্লাহর নিকট ক্ষমা প্রার্থনার পাশাপাশি এই মাসে সংযমী হওয়ার কথাও জানান তারা।

 

একজন মুসল্লি বলেন, একবছর পর পবিত্র রমজান পেয়েছি। আমরা ভাগ্যবান তাই আবারও এই বরকতের মাস পেয়েছি। সিয়াম সাধনা আর আল্লাহর ইবাদত-বন্দেগিতে মাসটি কাটাতে চান তিনি।

 

আরেক বৃদ্ধ মুসল্লি বলেন, যারা ভাগ্যবান তারাই রমজান মাস পেয়ে থাকেন। জীবনের শেষবেলায় এসে আরেকটি রমজান পেয়েছি, সেজন্য আল্লাহর কাছে কোটি কোটি ‍শুকরিয়া। অনেক প্রতিক্ষিত এই মাসকে পেয়েছি। জানি না, জীবনে আর পাবো কিনা।

 

আরেক মুসল্লি বলেন, রমজানে ত্যাগ এবং সকলের সোহার্দ্যপূর্ণ জীবন কামনা করছেন তিনি। প্রথম তারাবি পড়তে পেরে আনন্দিত বলেও জানান তিনি।

 

এর আগে, সোমবার সন্ধ্যায় বায়তুল মোকাররমের ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠক বসে। পরে দেশের আকাশে পবিত্র রমজান মাসের চাঁদ দেখার ঘোষণা দেন ধর্মমন্ত্রী ফরিদুল হক খান। এসময় তিনি, দেশবাসীকে মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা ও রোজার হক আদায়ের আহ্বান জানান।

 

কালের চিঠি / আলিফ