শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যুক্তরাষ্ট্রে ছোট বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ৫।

যুক্তরাষ্ট্রের টেনেসি অঙ্গরাজ্যের ন্যাশভিল শহরের একটি মোটরওয়ের কাছে একটি ছোট বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। এ দুর্ঘটনায় ৫ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে তিনজনই শিশু। নিহতরা সবাই কানাডিয়ান নাগরিক।

বুধবার (৬ মার্চ) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, টেনেসির ন্যাশভিলে একটি বড় মোটরওয়ের কাছে ছোট বিমান বিধ্বস্ত হয়ে তিন শিশুসহ পাঁচ কানাডিয়ান নিহত হয়েছেন বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। দুর্ঘটনার আগে স্থানীয় সময় সোমবার রাত পৌনে আটটার দিকে ন্যাশভিল বিমানবন্দরে কল করে পাইলট ইঞ্জিনের সমস্যার কথা জানিয়েছিলেন।

ন্যাশভিল পুলিশ জানিয়েছে, ন্যাশভিল বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণের জন্য বিমানটিকে অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু পাইলট এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলকে জানান, তিনি এটি করতে পারবেন না।

বিবিসি বলছে, বিধ্বস্ত হওয়ার সাথে সাথে বিমানটি অগ্নিকুণ্ডে পরিণত হয়। মূলত ন্যাশভিলে একটি কস্টকো সুপারমার্কেটের কাছে ঘাসযুক্ত এলাকায় বিমানটি আঁছড়ে পড়ে এবং এরপর এতে আগুন ধরে যায়।

মেট্রো ন্যাশভিল পুলিশের মুখপাত্র ডন অ্যারন জানিয়েছেন, বিস্ফোরণের ফলে ইন্টারস্টেট আই-৪০-এর কিছু অংশ বন্ধ হয়ে গেছে, কিন্তু বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার আগে অন্য কোনও যানবাহন বা ভবনে আঘাত করেনি।

বিমানটি অন্টারিও থেকে রওনা হয়েছিল জানিয়ে কর্মকর্তারা বলেছেন, পথে এই বিমানটি পেনসিলভানিয়া এবং কেনটাকিতে দুটি স্টপেজ দিয়েছিল। নিহতদের নাম এখনও জানা যায়নি।

ন্যাশভিল ফায়ার ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র কেন্দ্র লোনি বলেছেন, ‘বিপর্যয়কর’ দুর্ঘটনার জেরে বিমানটিতে আগুন ধরে যায় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন। অগ্নিনির্বাপক কর্মীরা আগুন নেভাতে সক্ষম হয়েছে।

বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার ঠিক আগে পাইলট একটি এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল টাওয়ারকে বলেছিলেন: ‘আমি খুব দূরে আছি, আমি এটি (জরুরি অবতরণ) করতে পারব না।’

বিবিসি বলছে, ন্যাশনাল ট্রান্সপোর্টেশন সেফটি বোর্ড এবং ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধান করছে। কর্মকর্তারা বলছেন, দুর্ঘটনার কারণ কী হতে পারে তা এখনই নির্ধারণ করা মুশকিল।

কালের চিঠি/শর্মিলী

Tag :

যুক্তরাষ্ট্রে ছোট বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ৫।

Update Time : ০৫:২০:২২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪

যুক্তরাষ্ট্রের টেনেসি অঙ্গরাজ্যের ন্যাশভিল শহরের একটি মোটরওয়ের কাছে একটি ছোট বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। এ দুর্ঘটনায় ৫ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে তিনজনই শিশু। নিহতরা সবাই কানাডিয়ান নাগরিক।

বুধবার (৬ মার্চ) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, টেনেসির ন্যাশভিলে একটি বড় মোটরওয়ের কাছে ছোট বিমান বিধ্বস্ত হয়ে তিন শিশুসহ পাঁচ কানাডিয়ান নিহত হয়েছেন বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। দুর্ঘটনার আগে স্থানীয় সময় সোমবার রাত পৌনে আটটার দিকে ন্যাশভিল বিমানবন্দরে কল করে পাইলট ইঞ্জিনের সমস্যার কথা জানিয়েছিলেন।

ন্যাশভিল পুলিশ জানিয়েছে, ন্যাশভিল বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণের জন্য বিমানটিকে অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু পাইলট এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলকে জানান, তিনি এটি করতে পারবেন না।

বিবিসি বলছে, বিধ্বস্ত হওয়ার সাথে সাথে বিমানটি অগ্নিকুণ্ডে পরিণত হয়। মূলত ন্যাশভিলে একটি কস্টকো সুপারমার্কেটের কাছে ঘাসযুক্ত এলাকায় বিমানটি আঁছড়ে পড়ে এবং এরপর এতে আগুন ধরে যায়।

মেট্রো ন্যাশভিল পুলিশের মুখপাত্র ডন অ্যারন জানিয়েছেন, বিস্ফোরণের ফলে ইন্টারস্টেট আই-৪০-এর কিছু অংশ বন্ধ হয়ে গেছে, কিন্তু বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার আগে অন্য কোনও যানবাহন বা ভবনে আঘাত করেনি।

বিমানটি অন্টারিও থেকে রওনা হয়েছিল জানিয়ে কর্মকর্তারা বলেছেন, পথে এই বিমানটি পেনসিলভানিয়া এবং কেনটাকিতে দুটি স্টপেজ দিয়েছিল। নিহতদের নাম এখনও জানা যায়নি।

ন্যাশভিল ফায়ার ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র কেন্দ্র লোনি বলেছেন, ‘বিপর্যয়কর’ দুর্ঘটনার জেরে বিমানটিতে আগুন ধরে যায় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন। অগ্নিনির্বাপক কর্মীরা আগুন নেভাতে সক্ষম হয়েছে।

বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার ঠিক আগে পাইলট একটি এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল টাওয়ারকে বলেছিলেন: ‘আমি খুব দূরে আছি, আমি এটি (জরুরি অবতরণ) করতে পারব না।’

বিবিসি বলছে, ন্যাশনাল ট্রান্সপোর্টেশন সেফটি বোর্ড এবং ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধান করছে। কর্মকর্তারা বলছেন, দুর্ঘটনার কারণ কী হতে পারে তা এখনই নির্ধারণ করা মুশকিল।

কালের চিঠি/শর্মিলী