রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বখাটেদের কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এসএসসি পরীক্ষার্থীর উপর হামলা।

বাগেহাটের রামপালে বখাটেদের কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এসএসসি পরীক্ষার্থী কিশোরী (১৬) কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত কিশোরীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় রামপাল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন কিশোরী ভিকটিমের মাতা পেয়ারা বেগম। রামপাল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার পুটিমারী (সিংগড়বুনিয়া) গ্রামের মোয়াজ্জেম হোসেনের এসএসসি পরীক্ষার্থী মেয়ে সোমবার (৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় পেড়িখালী মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বেড়াতে যায়। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলা কালে ওই কিশোরী মাঠের দক্ষিণ পাশে খাবারের দোকানে খাবার কিনতে যায়। সেখান থেকে ফেরার পথে পেড়িখালী গ্রামের মোতালেব হাওলাদারের ছেলে তৌকিম হাওলাদার, রিপন শেখের ছেলে ফাহাদ শেখ, ইমরানের ছেলে ইকরামুল, মোহাম্মদ আলীর ছেলে আবু সাইদ, নোয়াব আলীর ছেলে শফিক শেখ, শাহাদাত মোড়লের ছেলে নাইম মোড়ল, সিকিরডাঙ্গা গ্রামের জাকির মোল্লার ছেলে তৌফিক মোল্লাসহ অজ্ঞাত আসামীরা ভিকটিমের পথরোধ করে। তারা তাকে কুপ্রস্তাব দেয়। এতে রাজি না হওয়ায় তার চুলের মুঠি টেনে ধরে পেটে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে লাথি মারে। এক পর্যায়ে তারা তার গলায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করার চেষ্টা করলে ওই কিশোরী হাত দিয়ে ঠেকায়। পরে তারা তার হাতে ছুরি দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে আহত করে। খবর পেয়ে অনুষ্ঠানে থাকা তার মা পেয়ারা বেগম ছুটে এসে মেয়েকে উদ্ধার করেন। পরে তাকে তার মা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করেন।

ভিকটিমের মা ও তার মেয়ে অভিযোগ করে জানান, ভিকটিম কে দীর্ঘ দিন ধরে তৌকিমসহ তার সাঙ্গপাঙ্গরা কুপ্রস্তাবে দিয়ে আসছে। এতে বাঁধা দিলে তারা আরো বেপরোয়া হয়ে ওঠে। তাদের কথায় রাজি না হলে এসিড দিয়ে মুখ ঝলসে মুখের চেহারা পাল্টে ফেলার হুমকি দেয়। এ জন্য তারা পথে ঘাটে গতিরোধ করে ভয়ভীতি প্রদান করতে থাকে। এ পর্যায়ে সোমবার সন্ধ্যায় ফাঁকা পেয়ে ভিকটিমের উপর হামলে পড়ে।
এ বিষয়ে কথা বলার জন্য অভিযুক্তদের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাদের কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। যে কারণে তারের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে রামপাল থানার ওসি সোমেন দাশ এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, অভিযোগের লিখিত কপি পেয়েছি। তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। কারো কথামতো কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

কালের চিঠি/শর্মিলী

Tag :

শ্রেণিকক্ষে যৌন হয়রানির অভিযোগ, ২ শিক্ষককে বরখাস্তের দাবিতে বিদ্যালয়ে তালা

বখাটেদের কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এসএসসি পরীক্ষার্থীর উপর হামলা।

Update Time : ০৫:০৯:৩২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪

বাগেহাটের রামপালে বখাটেদের কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এসএসসি পরীক্ষার্থী কিশোরী (১৬) কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত কিশোরীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় রামপাল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন কিশোরী ভিকটিমের মাতা পেয়ারা বেগম। রামপাল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার পুটিমারী (সিংগড়বুনিয়া) গ্রামের মোয়াজ্জেম হোসেনের এসএসসি পরীক্ষার্থী মেয়ে সোমবার (৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় পেড়িখালী মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বেড়াতে যায়। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলা কালে ওই কিশোরী মাঠের দক্ষিণ পাশে খাবারের দোকানে খাবার কিনতে যায়। সেখান থেকে ফেরার পথে পেড়িখালী গ্রামের মোতালেব হাওলাদারের ছেলে তৌকিম হাওলাদার, রিপন শেখের ছেলে ফাহাদ শেখ, ইমরানের ছেলে ইকরামুল, মোহাম্মদ আলীর ছেলে আবু সাইদ, নোয়াব আলীর ছেলে শফিক শেখ, শাহাদাত মোড়লের ছেলে নাইম মোড়ল, সিকিরডাঙ্গা গ্রামের জাকির মোল্লার ছেলে তৌফিক মোল্লাসহ অজ্ঞাত আসামীরা ভিকটিমের পথরোধ করে। তারা তাকে কুপ্রস্তাব দেয়। এতে রাজি না হওয়ায় তার চুলের মুঠি টেনে ধরে পেটে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে লাথি মারে। এক পর্যায়ে তারা তার গলায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করার চেষ্টা করলে ওই কিশোরী হাত দিয়ে ঠেকায়। পরে তারা তার হাতে ছুরি দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে আহত করে। খবর পেয়ে অনুষ্ঠানে থাকা তার মা পেয়ারা বেগম ছুটে এসে মেয়েকে উদ্ধার করেন। পরে তাকে তার মা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করেন।

ভিকটিমের মা ও তার মেয়ে অভিযোগ করে জানান, ভিকটিম কে দীর্ঘ দিন ধরে তৌকিমসহ তার সাঙ্গপাঙ্গরা কুপ্রস্তাবে দিয়ে আসছে। এতে বাঁধা দিলে তারা আরো বেপরোয়া হয়ে ওঠে। তাদের কথায় রাজি না হলে এসিড দিয়ে মুখ ঝলসে মুখের চেহারা পাল্টে ফেলার হুমকি দেয়। এ জন্য তারা পথে ঘাটে গতিরোধ করে ভয়ভীতি প্রদান করতে থাকে। এ পর্যায়ে সোমবার সন্ধ্যায় ফাঁকা পেয়ে ভিকটিমের উপর হামলে পড়ে।
এ বিষয়ে কথা বলার জন্য অভিযুক্তদের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাদের কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। যে কারণে তারের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে রামপাল থানার ওসি সোমেন দাশ এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, অভিযোগের লিখিত কপি পেয়েছি। তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। কারো কথামতো কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

কালের চিঠি/শর্মিলী