রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

১৪৩ ম্যাচ ও ১০১ মাসের অহংকার চূর্ণ ৯০ মিনিটে ।

গতকাল চিরপ্রতিদ্বন্দ্বিতা ভুলে লিভারপুল সমর্থকেরা সবাই হয়তো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেদের সাফল্য চাইছিলেন। ইউনাইটেড ভালো করা মানেই যে শিরোপা দৌড়ে দুইয়ে থাকা ম্যানচেস্টার সিটির পা হড়কানো।

কিন্তু লিভারপুল সমর্থকদের আশা পূরণ হয়নি। সিটির মাঠে ৩-১ গোলে হেরে গেছে ইউনাইটেড। তাতে ১৪৩ ম্যাচ ধরে চলা এক রেকর্ডও ভেঙে গেছে।

গতকাল ইতিহাদ স্টেডিয়ামে শুরুটা দুর্দান্ত ছিল ইউনাইটেডের। ৮ মিনিটেই এগিয়ে দিয়েছিলেন মার্কাস রাশফোর্ড। প্রথমার্ধে এগিয়ে থেকেই মাঠ ছেড়েছিল ইউনাইটেড। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধেই সব প্রতিরোধ ভেঙে যায়।

গত কিছুদিনে গোলের ক্ষুধা জেগে ওঠা ফিল ফোডেনের জোড়া গোলের পর যোগ করা সময়ে গোল করেছেন আর্লিং হলান্ড। ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরের পর এই প্রথম এমন কিছু দেখা গেল। ১৪৩ ম্যাচ আগে সর্বশেষ প্রথমার্ধ শেষে এগিয়ে থাকার পরও হেরেছিল ইউনাইটেড। লেস্টার সিটির কাছে ৫-৩ ব্যবধানে হারের পর গত সাড়ে আট বছরে প্রথমার্ধ শেষে এগিয়ে থাকা ১৪৩টি ম্যাচের ১২৩টিতেই জিতেছিল ইউনাইটেড, ড্র করেছিল মাত্র ২০টিতে। আর কাল তো হেরেই গেল।

পুরো ম্যাচে দাপট দেখিয়েছে সিটি। একদিকে স্বাগতিক দল ২৭টি শট নিয়েছে ওদিকে ইউনাইটেড ৯০ মিনিটে মাত্র ৩টি শট নিতে পেরেছে। তবু প্রতিপক্ষের দাপট মানতে রাজি হননি ইউনাইটেড কোচ।

তাঁর দাবি, ফোডেনের প্রথম গোলে রেফারি ভুল ছিল, ‘না, আমার মনে হয় না (দুইদলের মধ্যে অনেক পার্থক্য আছে কিনা)। একদম না। আমাদের অনেক চোট সমস্যা আছে এবং এরপরও আমরা সুযোগ পেয়েছি। খুবই ন্যূনতম ব্যবধান। আমি বলব না ওয়াকার ট্যাকল করেছে, তারা দুজনই দৌড়েছে এবং রাশি (রাশফোর্ড) আমাকে নিশ্চিত করেছে দুজনের মধ্যে ধাক্কা লেগেছে এবং তা আমি আবার দেখেছি-খুবই হালকা ধাক্কা। কিন্তু পূর্ণ শক্তিতে দৌড়ানোর সময় এমন হালকা ধাক্কাই নিয়ন্ত্রণ হারানোর জন্য যথেষ্ট।’

এই ম্যাচ হেরে যাওয়ায় চারে থাকা অ্যাস্টন ভিলার চেয়ে ১১ পয়েন্ট পিছিয়ে পড়েছে ইউনাইটেড। এমন চলতে থাকলে আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগ আর খেলা হবে না ইউনাইটেডের।

কালের চিঠি/ ফাহিম

Tag :

১৪৩ ম্যাচ ও ১০১ মাসের অহংকার চূর্ণ ৯০ মিনিটে ।

Update Time : ০৭:৪৯:৫১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৪ মার্চ ২০২৪

গতকাল চিরপ্রতিদ্বন্দ্বিতা ভুলে লিভারপুল সমর্থকেরা সবাই হয়তো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেদের সাফল্য চাইছিলেন। ইউনাইটেড ভালো করা মানেই যে শিরোপা দৌড়ে দুইয়ে থাকা ম্যানচেস্টার সিটির পা হড়কানো।

কিন্তু লিভারপুল সমর্থকদের আশা পূরণ হয়নি। সিটির মাঠে ৩-১ গোলে হেরে গেছে ইউনাইটেড। তাতে ১৪৩ ম্যাচ ধরে চলা এক রেকর্ডও ভেঙে গেছে।

গতকাল ইতিহাদ স্টেডিয়ামে শুরুটা দুর্দান্ত ছিল ইউনাইটেডের। ৮ মিনিটেই এগিয়ে দিয়েছিলেন মার্কাস রাশফোর্ড। প্রথমার্ধে এগিয়ে থেকেই মাঠ ছেড়েছিল ইউনাইটেড। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধেই সব প্রতিরোধ ভেঙে যায়।

গত কিছুদিনে গোলের ক্ষুধা জেগে ওঠা ফিল ফোডেনের জোড়া গোলের পর যোগ করা সময়ে গোল করেছেন আর্লিং হলান্ড। ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরের পর এই প্রথম এমন কিছু দেখা গেল। ১৪৩ ম্যাচ আগে সর্বশেষ প্রথমার্ধ শেষে এগিয়ে থাকার পরও হেরেছিল ইউনাইটেড। লেস্টার সিটির কাছে ৫-৩ ব্যবধানে হারের পর গত সাড়ে আট বছরে প্রথমার্ধ শেষে এগিয়ে থাকা ১৪৩টি ম্যাচের ১২৩টিতেই জিতেছিল ইউনাইটেড, ড্র করেছিল মাত্র ২০টিতে। আর কাল তো হেরেই গেল।

পুরো ম্যাচে দাপট দেখিয়েছে সিটি। একদিকে স্বাগতিক দল ২৭টি শট নিয়েছে ওদিকে ইউনাইটেড ৯০ মিনিটে মাত্র ৩টি শট নিতে পেরেছে। তবু প্রতিপক্ষের দাপট মানতে রাজি হননি ইউনাইটেড কোচ।

তাঁর দাবি, ফোডেনের প্রথম গোলে রেফারি ভুল ছিল, ‘না, আমার মনে হয় না (দুইদলের মধ্যে অনেক পার্থক্য আছে কিনা)। একদম না। আমাদের অনেক চোট সমস্যা আছে এবং এরপরও আমরা সুযোগ পেয়েছি। খুবই ন্যূনতম ব্যবধান। আমি বলব না ওয়াকার ট্যাকল করেছে, তারা দুজনই দৌড়েছে এবং রাশি (রাশফোর্ড) আমাকে নিশ্চিত করেছে দুজনের মধ্যে ধাক্কা লেগেছে এবং তা আমি আবার দেখেছি-খুবই হালকা ধাক্কা। কিন্তু পূর্ণ শক্তিতে দৌড়ানোর সময় এমন হালকা ধাক্কাই নিয়ন্ত্রণ হারানোর জন্য যথেষ্ট।’

এই ম্যাচ হেরে যাওয়ায় চারে থাকা অ্যাস্টন ভিলার চেয়ে ১১ পয়েন্ট পিছিয়ে পড়েছে ইউনাইটেড। এমন চলতে থাকলে আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগ আর খেলা হবে না ইউনাইটেডের।

কালের চিঠি/ ফাহিম