রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশ -শ্রীলঙ্কা সিরিজের কথা জানে না সিলেটের লোকজনই!

 

 

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হচ্ছে আজ (৪ মার্চ)। বাঘ-সিংহের এই লড়াইয়ের পর্দা উঠবে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়। প্রস্তুত আয়োজক শহর সিলেট, প্রস্তুত সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম।

কিন্তু দুপুর পর্যন্ত স্টেডিয়াম এলাকা ফাঁকা, নেই দর্শকদের সমাগম। খেলা দেখতে আসা এক দর্শক বলেন, বিসিবির প্রচারণার কমতি রয়েছে। নিজ শহরের অনেকেই জানেন না আজ খেলা। বিপিএলের ম্যাচগুলোতেও প্রচুর দর্শক এসেছিল মাঠে। ঢাকা ও চট্টগ্রামের চেয়েও বেশি দর্শক ছিল সিলেটের স্টেডিয়ামে।

অপর একজন দর্শক বলেন, বিপিএল শেষ হয়েছে ক’দিন আগে। বেশিরভাগ মানুষ জানেন না আজ বাংলাদেশের ম্যাচ রয়েছে এই মাঠে। বিকেলের দিকে দর্শক আসতেও পারে কারণ এখনও অনেক সময় আছে খেলা শুরু হতে।

সাড়ে ১৮ হাজার ধারণক্ষমতার এই স্টেডিয়ামে গতমাসে বিপিএলের কয়েকটি ম্যাচও অনুষ্ঠিত হয়েছে। দেশের একমাত্র গ্রিন গ্যালারি ও চা-বাগান শোভিত। একদিকে একতলা গ্যালারির সাথে টিলা ও বিপরীতে দোতলা গ্যালারির উচ্ছ্বাস, সবমিলিয়ে ক্রিকেটভক্তদের অনেক পছন্দের ভেন্যু এটি।

তবে ম্যাচের দিন সকালে স্টেডিয়ামের টিকিট কাউন্টারে গিয়ে দেখা গিয়েছে ভিন্ন এক চিত্র। সাধারণ দর্শকদের অভিযোগ, ম্যাচের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না। যমুনা টেলিভিশনের ক্যামেরা কাউন্টারে প্রবেশ করলে দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মীরা ক্যামেরায় বেশি কিছু বলতে চাচ্ছিলেন না। কিন্তু কাউন্টারের টেবিলের উপরে টিকিটের একাধিক বান্ডিলসহ ব্যাগভর্তি টিকিটও দেখতে পাওয়া যায়।

খেলা দেখতে আসা এক দর্শক অভিযোগ করে বলেন, সকাল থেকে টিকিটের জন্য দাঁড়িয়ে ছিলেন। কিন্তু পাচ্ছিলেন না। যমুনা টেলিভিশনের ক্যামেরা এলে তিনি টিকিট পান। কাউন্টার থেকে নেই বললেও ম্যাচ শুরু আগে বিকেল বা সন্ধ্যার দিকে ব্ল্যাকে পাওয়া যায় স্টেডিয়াম পাড়ায়। তখন ২০০ টাকার টিকিট পাঁচশ’ বা আটশ’ টাকায় বিক্রি করে কিছু কালোবাজারি চক্র।

উল্লেখ্য, তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের সবগুলো খেলা অনুষ্ঠিত হবে সিলেটে। সিরিজ শেষে ওডিআই ও টেস্ট সিরিজও রয়েছে। প্রথমবারের মতো পুর্ণাঙ্গ সিরিজে কোনো ম্যাচ হচ্ছে না মিরপুরে।

কালের চিঠি /আলিফ

Tag :

বাংলাদেশ -শ্রীলঙ্কা সিরিজের কথা জানে না সিলেটের লোকজনই!

Update Time : ০৯:০৯:২২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৪ মার্চ ২০২৪

 

 

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হচ্ছে আজ (৪ মার্চ)। বাঘ-সিংহের এই লড়াইয়ের পর্দা উঠবে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়। প্রস্তুত আয়োজক শহর সিলেট, প্রস্তুত সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম।

কিন্তু দুপুর পর্যন্ত স্টেডিয়াম এলাকা ফাঁকা, নেই দর্শকদের সমাগম। খেলা দেখতে আসা এক দর্শক বলেন, বিসিবির প্রচারণার কমতি রয়েছে। নিজ শহরের অনেকেই জানেন না আজ খেলা। বিপিএলের ম্যাচগুলোতেও প্রচুর দর্শক এসেছিল মাঠে। ঢাকা ও চট্টগ্রামের চেয়েও বেশি দর্শক ছিল সিলেটের স্টেডিয়ামে।

অপর একজন দর্শক বলেন, বিপিএল শেষ হয়েছে ক’দিন আগে। বেশিরভাগ মানুষ জানেন না আজ বাংলাদেশের ম্যাচ রয়েছে এই মাঠে। বিকেলের দিকে দর্শক আসতেও পারে কারণ এখনও অনেক সময় আছে খেলা শুরু হতে।

সাড়ে ১৮ হাজার ধারণক্ষমতার এই স্টেডিয়ামে গতমাসে বিপিএলের কয়েকটি ম্যাচও অনুষ্ঠিত হয়েছে। দেশের একমাত্র গ্রিন গ্যালারি ও চা-বাগান শোভিত। একদিকে একতলা গ্যালারির সাথে টিলা ও বিপরীতে দোতলা গ্যালারির উচ্ছ্বাস, সবমিলিয়ে ক্রিকেটভক্তদের অনেক পছন্দের ভেন্যু এটি।

তবে ম্যাচের দিন সকালে স্টেডিয়ামের টিকিট কাউন্টারে গিয়ে দেখা গিয়েছে ভিন্ন এক চিত্র। সাধারণ দর্শকদের অভিযোগ, ম্যাচের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না। যমুনা টেলিভিশনের ক্যামেরা কাউন্টারে প্রবেশ করলে দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মীরা ক্যামেরায় বেশি কিছু বলতে চাচ্ছিলেন না। কিন্তু কাউন্টারের টেবিলের উপরে টিকিটের একাধিক বান্ডিলসহ ব্যাগভর্তি টিকিটও দেখতে পাওয়া যায়।

খেলা দেখতে আসা এক দর্শক অভিযোগ করে বলেন, সকাল থেকে টিকিটের জন্য দাঁড়িয়ে ছিলেন। কিন্তু পাচ্ছিলেন না। যমুনা টেলিভিশনের ক্যামেরা এলে তিনি টিকিট পান। কাউন্টার থেকে নেই বললেও ম্যাচ শুরু আগে বিকেল বা সন্ধ্যার দিকে ব্ল্যাকে পাওয়া যায় স্টেডিয়াম পাড়ায়। তখন ২০০ টাকার টিকিট পাঁচশ’ বা আটশ’ টাকায় বিক্রি করে কিছু কালোবাজারি চক্র।

উল্লেখ্য, তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের সবগুলো খেলা অনুষ্ঠিত হবে সিলেটে। সিরিজ শেষে ওডিআই ও টেস্ট সিরিজও রয়েছে। প্রথমবারের মতো পুর্ণাঙ্গ সিরিজে কোনো ম্যাচ হচ্ছে না মিরপুরে।

কালের চিঠি /আলিফ