রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাবা-মার কাছে টাকা চেয়েছিল মাদরাসা ছাত্র, অতঃপর…

গাইবান্ধা সাদুল্লাপুর উপজেলায় বাবা-মায়ের কাছে পাগড়ি কেনার জন্য টাকা চেয়ে না পেয়ে আত্মহত্যা করেছে জাহিদ হাসান (১৬) নামের এক হাফেজ ছাত্র। শুক্রবার (১ মার্চ) সন্ধ্যার দিকে উপজেলার খোর্দ্দকোমরপুর (ফারাজিপাড়া) গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সাদুল্লাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, জাহিদ হাসান খোর্দ্দকোমরপুর গ্রামের তৈয়ুব আলী ফারাজীর ছেলে এবং স্থানীয় চক ভগবান হাফেজিয়া মাদরাসার ছাত্র। সে পাগড়ি কেনার জন্য বাবা-মার কাছে ১ হাজার টাকা চায়। সেই টাকা না পেয়ে অভিমান করে গলার ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

জাহিদের চাচা মউবর রহমান ফারাজী জানান, জাহিদ তার বাবা-মার কাছ থেকে পাগড়ি কেনার জন্য এক হাজার টাকা চায়। এর জন্য প্রথমে তাকে ৫০০ টাকা দেয়া হয় এবং বাকি ৫০০ টাকা পরে দেয়া হবে বলে জানান তারা। এতে অভিমান করে সে। পরে নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে লুঙ্গি গলায় পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে জাহিদ। পরে তার পরিবারের লোকজন ঘরে ঢুকে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে তাকে উদ্ধার করে পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে জাহিদ মারা যায়।

এ বিষয়ে ওসি কেএম আজমিরুজ্জামান বলেন, ওই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

কালের চিঠি/ আলিফ

Tag :
Popular Post

কোটা বিরোধী আন্দোলনে ঢাকায় ২ শিক্ষার্থী নিহত

বাবা-মার কাছে টাকা চেয়েছিল মাদরাসা ছাত্র, অতঃপর…

Update Time : ০৫:১৫:৩৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২ মার্চ ২০২৪

গাইবান্ধা সাদুল্লাপুর উপজেলায় বাবা-মায়ের কাছে পাগড়ি কেনার জন্য টাকা চেয়ে না পেয়ে আত্মহত্যা করেছে জাহিদ হাসান (১৬) নামের এক হাফেজ ছাত্র। শুক্রবার (১ মার্চ) সন্ধ্যার দিকে উপজেলার খোর্দ্দকোমরপুর (ফারাজিপাড়া) গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সাদুল্লাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, জাহিদ হাসান খোর্দ্দকোমরপুর গ্রামের তৈয়ুব আলী ফারাজীর ছেলে এবং স্থানীয় চক ভগবান হাফেজিয়া মাদরাসার ছাত্র। সে পাগড়ি কেনার জন্য বাবা-মার কাছে ১ হাজার টাকা চায়। সেই টাকা না পেয়ে অভিমান করে গলার ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

জাহিদের চাচা মউবর রহমান ফারাজী জানান, জাহিদ তার বাবা-মার কাছ থেকে পাগড়ি কেনার জন্য এক হাজার টাকা চায়। এর জন্য প্রথমে তাকে ৫০০ টাকা দেয়া হয় এবং বাকি ৫০০ টাকা পরে দেয়া হবে বলে জানান তারা। এতে অভিমান করে সে। পরে নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে লুঙ্গি গলায় পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে জাহিদ। পরে তার পরিবারের লোকজন ঘরে ঢুকে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে তাকে উদ্ধার করে পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে জাহিদ মারা যায়।

এ বিষয়ে ওসি কেএম আজমিরুজ্জামান বলেন, ওই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

কালের চিঠি/ আলিফ