রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

খুচরা পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম ৮.৪৮ শতাংশ বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি

পাইকারি পর্যায়ে ৫.০৭ শতাংশ এবং খুচরা পর্যায়ে ৮.৪৮ শতাংশ বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুরের দিকে এ প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। ১লা মার্চ থেকে নতুন এই দাম কার্যকর হবে। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, পাইকারি পর্যায়ে বর্তমান দাম গড়ে প্রতি ইউনিট ৬ দশমিক ৭০ টাকা। নতুন দাম ৭ দশমিক ০৪ টাকা। খুচরা পর্যায়ে বর্তমান দাম গড়ে প্রতি ইউনিট ৮ দশমিক ২৫ টাকা, নতুন দাম ৮ দশমিক ৯৫ টাকা। সচিবালয়ে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এসব তথ্য জানান।

প্রতিমন্ত্রী জানান, মার্চ থেকে প্রতিমাসের প্রথম সপ্তাহে আন্তর্জাতিক বাজার বিবেচনা করে তেলের দামও সমন্বয় করা হবে। শিল্প ও আবাসিক খাতে গ্যাসের দাম বাড়ছে না। তবে বিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যবহৃত গ্যাসের দাম বাড়বে প্রতি ইউনিট ৭৫ পয়সা।

দাম বৃদ্ধির কারণ সম্পর্কে নসরুল হামিদ বলেন, ডলারের মূল্য বৃদ্ধি বিদ্যুতের দাম সমন্বয়ের অন্যতম কারণ। গত বছর থেকে সমস্যা হচ্ছে। সেই মূল্য কিছুটা সমন্বয় করা হয়েছে। গ্যাসের দাম ১৪ দশমিক ৭০ টাকা ধীরে ধীরে সমন্বয় করা হবে।

নসরুল হামিদ জানান, বিদ্যুতের ক্ষেত্রে ভর্তুকি হবে এ বছর ৪৩ হাজার কোটি টাকা। ধীরে ধীরে কয়েক বছর ধরে দাম সমন্বয় করা হবে। বিদ্যুতের উৎপাদন খরচ এখন প্রায় ১২ টাকা। কিন্তু বিক্রি করা হচ্ছে প্রায় ৭ টাকা। মনে হয় খুব বেশি সমস্যা হবে না।

কালের চিঠি /আলিফ

Tag :

খুচরা পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম ৮.৪৮ শতাংশ বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি

Update Time : ১১:২০:২৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাইকারি পর্যায়ে ৫.০৭ শতাংশ এবং খুচরা পর্যায়ে ৮.৪৮ শতাংশ বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুরের দিকে এ প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। ১লা মার্চ থেকে নতুন এই দাম কার্যকর হবে। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, পাইকারি পর্যায়ে বর্তমান দাম গড়ে প্রতি ইউনিট ৬ দশমিক ৭০ টাকা। নতুন দাম ৭ দশমিক ০৪ টাকা। খুচরা পর্যায়ে বর্তমান দাম গড়ে প্রতি ইউনিট ৮ দশমিক ২৫ টাকা, নতুন দাম ৮ দশমিক ৯৫ টাকা। সচিবালয়ে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এসব তথ্য জানান।

প্রতিমন্ত্রী জানান, মার্চ থেকে প্রতিমাসের প্রথম সপ্তাহে আন্তর্জাতিক বাজার বিবেচনা করে তেলের দামও সমন্বয় করা হবে। শিল্প ও আবাসিক খাতে গ্যাসের দাম বাড়ছে না। তবে বিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যবহৃত গ্যাসের দাম বাড়বে প্রতি ইউনিট ৭৫ পয়সা।

দাম বৃদ্ধির কারণ সম্পর্কে নসরুল হামিদ বলেন, ডলারের মূল্য বৃদ্ধি বিদ্যুতের দাম সমন্বয়ের অন্যতম কারণ। গত বছর থেকে সমস্যা হচ্ছে। সেই মূল্য কিছুটা সমন্বয় করা হয়েছে। গ্যাসের দাম ১৪ দশমিক ৭০ টাকা ধীরে ধীরে সমন্বয় করা হবে।

নসরুল হামিদ জানান, বিদ্যুতের ক্ষেত্রে ভর্তুকি হবে এ বছর ৪৩ হাজার কোটি টাকা। ধীরে ধীরে কয়েক বছর ধরে দাম সমন্বয় করা হবে। বিদ্যুতের উৎপাদন খরচ এখন প্রায় ১২ টাকা। কিন্তু বিক্রি করা হচ্ছে প্রায় ৭ টাকা। মনে হয় খুব বেশি সমস্যা হবে না।

কালের চিঠি /আলিফ