মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সংরক্ষিত নারী আসনে সবগুলো মনোনয়নই বৈধ

 

সংরক্ষিত নারী আসনের জন্য ৫০টি মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে। যার সবগুলোই বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) যুগ্ম সচিব ও সংরক্ষিত নারী আসনের রিটার্নিং অফিসার মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে মনোনয়ন বাছাই শেষে সাংবাদিকদের কাছে এ তথ্য জানান তিনি।

মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার বলেন, মোট ৫০টি মনোনয়নপত্র পেয়েছি। সবগুলো বাছাই করেছি। এতে ৫০টি মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করছি। সবগুলো মনোনয়নপত্র বৈধ পেয়েছি। কোনো মনোনয়নপত্রের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ আসেনি। সুতরাং সকল প্রার্থীকে বৈধ প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করছি।

তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি থেকে দুটি ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং তাদের জোট থেকে ৪৮টি মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেছি।

আপিলের বিষয়ে যুগ্ম সচিব আরও বলেন, তফসিল অনুযায়ী, আপিল দায়েরের সুযোগ আছে। ২২ ফেব্রুয়ারি আপিল দায়েরের সময় আছে। আপিল নিষ্পত্তির সময় ২৪ ফেব্রুয়ারি, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৫ ফেব্রুয়ারি। প্রার্থিতা প্রত্যাহার কেউ না করলে এবং প্রত্যাহারের সময়ের পর বৈধ প্রার্থী যারা থাকবে এ ক্ষেত্রে ২৭ ফেব্রুয়ারি প্রতীক বরাদ্দের আর প্রয়োজন হবে না, যেহেতু প্রতিদ্বন্দ্বী নেই, সেজন্য বৈধ প্রার্থীদের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করার জন্য কার্যক্রম গ্রহণ করব।

কালের চিঠি / আশিকুর।

Tag :

সংরক্ষিত নারী আসনে সবগুলো মনোনয়নই বৈধ

Update Time : ০১:০১:০৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

 

সংরক্ষিত নারী আসনের জন্য ৫০টি মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে। যার সবগুলোই বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) যুগ্ম সচিব ও সংরক্ষিত নারী আসনের রিটার্নিং অফিসার মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে মনোনয়ন বাছাই শেষে সাংবাদিকদের কাছে এ তথ্য জানান তিনি।

মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার বলেন, মোট ৫০টি মনোনয়নপত্র পেয়েছি। সবগুলো বাছাই করেছি। এতে ৫০টি মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করছি। সবগুলো মনোনয়নপত্র বৈধ পেয়েছি। কোনো মনোনয়নপত্রের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ আসেনি। সুতরাং সকল প্রার্থীকে বৈধ প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করছি।

তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি থেকে দুটি ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং তাদের জোট থেকে ৪৮টি মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেছি।

আপিলের বিষয়ে যুগ্ম সচিব আরও বলেন, তফসিল অনুযায়ী, আপিল দায়েরের সুযোগ আছে। ২২ ফেব্রুয়ারি আপিল দায়েরের সময় আছে। আপিল নিষ্পত্তির সময় ২৪ ফেব্রুয়ারি, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৫ ফেব্রুয়ারি। প্রার্থিতা প্রত্যাহার কেউ না করলে এবং প্রত্যাহারের সময়ের পর বৈধ প্রার্থী যারা থাকবে এ ক্ষেত্রে ২৭ ফেব্রুয়ারি প্রতীক বরাদ্দের আর প্রয়োজন হবে না, যেহেতু প্রতিদ্বন্দ্বী নেই, সেজন্য বৈধ প্রার্থীদের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করার জন্য কার্যক্রম গ্রহণ করব।

কালের চিঠি / আশিকুর।