রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইরানে নিজ পরিবারের ১২ জনকে গুলি করে হত্যা করলেন যুবক

ইরানে নিজ পরিবারের ১২ সদস্যকে গুলি করে হত্যা করেছেন এক যুবক।

শনিবার দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ কেরমানের ফারিয়াব গ্রামে লোমহর্ষক এই ঘটনা ঘটে। পারিবারিক কলহের জেরে ওই যুবক এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে অভিযোগ।

এদিকে, পুলিশের গুলিতে মারা গেছেন অভিযুক্ত ওই যুবক (৩০)।

তবে রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার নাম পরিচয় প্রকাশ করেনি স্থানীয় প্রশাসন।

কেরমান প্রদেশের বিচার বিভাগের প্রধান ইব্রাহিম হামিদি জানিয়েছেন, হামলাকারীর পরিবারের মধ্যে বেশ কয়েকদিন ধরে ঝামেলা চলছিল। শনিবার সেই ঝামেলা চরম পর্যায়ে পৌঁছলে ভয়াবহ এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে বসেন ওই যুবক।

জানা গেছে, হঠাৎ করেই বাইরে থেকে বাড়িতে ঢুকে পরিবারের লোকেদের ওপর হামলা চালান ওই যুবক।

কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই বন্দুক থেকে গুলি ছোড়েন তিনি। এতে তার বাবা ও ভাইসহ পরিবারের মোট ১২ সদস্য ঘটনাস্থলেই মারা যান।

স্থানীয় পুলিশের দাবি, তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পরও যুবকের হাতে বন্দুক ছিল। এমনকি, পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করেও গুলি চালান ওই যুবক।

পুলিশ বারবার তাকে আত্মসমর্পণ করার আহ্বান জানায়। কিন্তু তিনি তা না করে পুলিশের দিকে গুলি ছুড়তে ছুড়তে পালানোর চেষ্টা করেন। একপর্যায়ে পুলিশ তাকে নিরস্ত্র করতে পাল্টা গুলি চালালে নিহত হন ওই যুবক।

পুলিশ জানিয়েছে, অ্যাসল্ট রাইফেল নিয়ে অভিযুক্ত যুবক তার পরিবারের উপর হামলা চালায়। এদিকে, এই ধরনের হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে গভীর আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

কালের চিঠি / আশিকুর।

Tag :

ইরানে নিজ পরিবারের ১২ জনকে গুলি করে হত্যা করলেন যুবক

Update Time : ০৬:০৫:১৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ইরানে নিজ পরিবারের ১২ সদস্যকে গুলি করে হত্যা করেছেন এক যুবক।

শনিবার দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ কেরমানের ফারিয়াব গ্রামে লোমহর্ষক এই ঘটনা ঘটে। পারিবারিক কলহের জেরে ওই যুবক এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে অভিযোগ।

এদিকে, পুলিশের গুলিতে মারা গেছেন অভিযুক্ত ওই যুবক (৩০)।

তবে রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার নাম পরিচয় প্রকাশ করেনি স্থানীয় প্রশাসন।

কেরমান প্রদেশের বিচার বিভাগের প্রধান ইব্রাহিম হামিদি জানিয়েছেন, হামলাকারীর পরিবারের মধ্যে বেশ কয়েকদিন ধরে ঝামেলা চলছিল। শনিবার সেই ঝামেলা চরম পর্যায়ে পৌঁছলে ভয়াবহ এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে বসেন ওই যুবক।

জানা গেছে, হঠাৎ করেই বাইরে থেকে বাড়িতে ঢুকে পরিবারের লোকেদের ওপর হামলা চালান ওই যুবক।

কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই বন্দুক থেকে গুলি ছোড়েন তিনি। এতে তার বাবা ও ভাইসহ পরিবারের মোট ১২ সদস্য ঘটনাস্থলেই মারা যান।

স্থানীয় পুলিশের দাবি, তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পরও যুবকের হাতে বন্দুক ছিল। এমনকি, পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করেও গুলি চালান ওই যুবক।

পুলিশ বারবার তাকে আত্মসমর্পণ করার আহ্বান জানায়। কিন্তু তিনি তা না করে পুলিশের দিকে গুলি ছুড়তে ছুড়তে পালানোর চেষ্টা করেন। একপর্যায়ে পুলিশ তাকে নিরস্ত্র করতে পাল্টা গুলি চালালে নিহত হন ওই যুবক।

পুলিশ জানিয়েছে, অ্যাসল্ট রাইফেল নিয়ে অভিযুক্ত যুবক তার পরিবারের উপর হামলা চালায়। এদিকে, এই ধরনের হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে গভীর আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

কালের চিঠি / আশিকুর।