রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নতুন চন্দ্রবর্ষে জান্তাকে ক্ষমতাচ্যুত করার প্রতিজ্ঞা তিন বিদ্রোহী গোষ্ঠীর

নতুন চন্দ্রবর্ষে সামরিক শাসনের মূলোৎপাটন করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে মিয়ানমারের তিন বিদ্রোহী গোষ্ঠীর জোট ‘থ্রি ব্রাদারহুড অ্যালায়েন্স’। মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) এক প্রতিবেদনে মিয়ানমারের সংবাদ মাধ্যম দ্য ইরাওয়াদি নিউজ এ তথ্য জানায়।

ইরাওয়াদি’র প্রতিবেদনে বলা হয়, মূলত ‘এন্টার দ্য ড্রাগন, এক্সিট দ্য জান্তা’ স্লোগানকে সামনে রেখে নতুন চন্দ্রবর্ষ শুরু করলো মিয়ানমারের বিদ্রোহীরা। চীনা পঞ্জিকা মতে এবারের চন্দ্রবর্ষ ড্রাগন রাশির বছর। আর চীনা রীতি অনুযায়ী ড্রাগনকে মনে করা হয়, সৌভাগ্যের প্রতীক।

বিদ্রোহীদের বিশ্বাস, ড্রাগন বছরের তাৎপর্যের সাথে মিলে যায় মিয়ানমারের নাগরিকদের চাওয়া। তাই এবছরই অবসান ঘটবে সামরিক একনায়কতন্ত্রের। এমন প্রত্যাশায় আরও কঠিন অভিযানের শপথ নিয়েছে ‘থ্রি ব্রাদারহুড অ্যালায়েন্স’ এর বিদ্রোহীরা। একই ঘোষণা দিয়েছে দেশটির জাতীয় ঐক্য সরকারের প্রধানমন্ত্রী, মাহন উইন খাইং-ও।

ইতোমধ্যে শান, রাখাইন, চীনসহ ৮টি রাজ্যের বেশিরভাগ অঞ্চলই নিজেদের দখলে নিয়েছে বিদ্রোহীরা। ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাঘাট তৈরির পাশাপাশি কাজ চলছে আইন সংশোধন ও নতুন আইন তৈরির।

এদিকে, সামরিক বিশ্লেষকরা মনে করেন, থ্রিবিএইচএ’র এই ভাবনা ‘আকাশ কুসুম’ কল্পনা। উত্তর শান রাজ্যে যুদ্ধবিরতি অব্যাহত থাকলে চলতি বছর কোনোভাবেই সম্ভব নয় স্বৈরশাসনের অবসান। তবে, বিদ্রোহী জোট আর ঐক্য সরকার জোটবদ্ধ থাকলে লক্ষ্য অর্জন সম্ভব বলেও মনে করেন অনেকে।

কালের চিঠি / আলিফ

Tag :

নতুন চন্দ্রবর্ষে জান্তাকে ক্ষমতাচ্যুত করার প্রতিজ্ঞা তিন বিদ্রোহী গোষ্ঠীর

Update Time : ০৩:১৫:৩৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

নতুন চন্দ্রবর্ষে সামরিক শাসনের মূলোৎপাটন করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে মিয়ানমারের তিন বিদ্রোহী গোষ্ঠীর জোট ‘থ্রি ব্রাদারহুড অ্যালায়েন্স’। মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) এক প্রতিবেদনে মিয়ানমারের সংবাদ মাধ্যম দ্য ইরাওয়াদি নিউজ এ তথ্য জানায়।

ইরাওয়াদি’র প্রতিবেদনে বলা হয়, মূলত ‘এন্টার দ্য ড্রাগন, এক্সিট দ্য জান্তা’ স্লোগানকে সামনে রেখে নতুন চন্দ্রবর্ষ শুরু করলো মিয়ানমারের বিদ্রোহীরা। চীনা পঞ্জিকা মতে এবারের চন্দ্রবর্ষ ড্রাগন রাশির বছর। আর চীনা রীতি অনুযায়ী ড্রাগনকে মনে করা হয়, সৌভাগ্যের প্রতীক।

বিদ্রোহীদের বিশ্বাস, ড্রাগন বছরের তাৎপর্যের সাথে মিলে যায় মিয়ানমারের নাগরিকদের চাওয়া। তাই এবছরই অবসান ঘটবে সামরিক একনায়কতন্ত্রের। এমন প্রত্যাশায় আরও কঠিন অভিযানের শপথ নিয়েছে ‘থ্রি ব্রাদারহুড অ্যালায়েন্স’ এর বিদ্রোহীরা। একই ঘোষণা দিয়েছে দেশটির জাতীয় ঐক্য সরকারের প্রধানমন্ত্রী, মাহন উইন খাইং-ও।

ইতোমধ্যে শান, রাখাইন, চীনসহ ৮টি রাজ্যের বেশিরভাগ অঞ্চলই নিজেদের দখলে নিয়েছে বিদ্রোহীরা। ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাঘাট তৈরির পাশাপাশি কাজ চলছে আইন সংশোধন ও নতুন আইন তৈরির।

এদিকে, সামরিক বিশ্লেষকরা মনে করেন, থ্রিবিএইচএ’র এই ভাবনা ‘আকাশ কুসুম’ কল্পনা। উত্তর শান রাজ্যে যুদ্ধবিরতি অব্যাহত থাকলে চলতি বছর কোনোভাবেই সম্ভব নয় স্বৈরশাসনের অবসান। তবে, বিদ্রোহী জোট আর ঐক্য সরকার জোটবদ্ধ থাকলে লক্ষ্য অর্জন সম্ভব বলেও মনে করেন অনেকে।

কালের চিঠি / আলিফ