রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাফের কাঠগড়ায় ‘ম্যাচ কমিশনার’

সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নানা ঘটনার জন্ম দিয়েছে। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ ও ভারত উভয় দলকে যৌথ চ্যাম্পিয়ন করা হয়েছে। তবে টুর্নামেন্টের বাইলজে (আইন) নেই যুগ্ম শিরোপা। এরপরও সাফের স্বার্থে যৌথ চ্যাম্পিয়ন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন, সাফের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল হক হেলাল।

যুগ্ম শিরোপা দেওয়ার প্রেক্ষাপট বর্ণনা করলেন সাফ সম্পাদক। তিনি বলেন, ম্যাচ কমিশনারের ভুলে এটা হয়েছে। পরবর্তীতে ম্যাচ কমিশনার ও আমাদের পক্ষ থেকে তিনটি প্রস্তাব ছিল। ম্যাচ বাতিল করা, যুগ্ম শিরোপা দেয়া অথবা আবার সাডেন ডেথ শুরু করা।

আনোয়ারুল হক হেলাল বলেন, ভারত কোনো প্রস্তাবেই রাজি ছিল না। এরপর নানা আলোচনার পর যুগ্ম চ্যাম্পিয়নে সম্মত হয়েছে। সাফের স্বার্থে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। শ্রীলঙ্কার ম্যাচ কমিশনারের ভুল সিদ্ধান্তে এমন ঘটনা ঘটেছে বলে জানান তিনি।

এই ঘটনায় টুর্নামেন্টের আয়োজক সাফের দায় দেখছেন না ফেডারেশনটির সম্পাদক। বলেন, এটা ম্যাচ কমিশনারের ভুল। সে রেগুলেশনগুলো সঠিকভাবে পড়েননি। তিনি এএফসির শীর্ষ ম্যাচ কমিশনার। এরপরও এমন ভুল করেছে। এখানে সাফের কোনো ভুল নেই, কারণ ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্ব রেফারি ও কমিশনারের।

যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন সিদ্ধান্ত হওয়ায় ভারত চ্যাম্পিয়ন ট্রফি নিয়ে দেশে ফিরবে। বাংলাদেশকে কিছু দিন পর ট্রফি দেওয়া হবে বলেও জানান সাফ সম্পাদক। বলেন, এখন ভারত ট্রফি নিয়ে যাবে। বাংলাদেশকে কিছু দিনের মধ্যে দেয়া হবে। ‘টুর্নামেন্ট সেরা’, ‘ফেয়ার প্লে’ পুরস্কারগুলোও পরবর্তীতে দেয়া হবে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে মুখোমুখি হয় স্বাগতিক বাংলাদেশ ও ভারত। নানা নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে নির্ধারিত সময়ে খেলা শেষ হয় ১-১ গোলে। ম্যাচ গড়ায় ট্রাইব্রেকারে। যেখানেও ১১-১১ গোলে কোনো নিষ্পত্তি আসে না।

প্রথমে টসে ভারতকে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়। এরপর বাংলাদেশের প্রতিবাদের মুখে সেই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নেয় ম্যাচ কমিশনার। যা নিয়ে আপত্তি জানায় ভারত। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ-ভারত দুদলকেই যৌথভাবে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়।

কালের চিঠি / আলিফ

Tag :

সাফের কাঠগড়ায় ‘ম্যাচ কমিশনার’

Update Time : ০৫:৪৭:৩৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নানা ঘটনার জন্ম দিয়েছে। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ ও ভারত উভয় দলকে যৌথ চ্যাম্পিয়ন করা হয়েছে। তবে টুর্নামেন্টের বাইলজে (আইন) নেই যুগ্ম শিরোপা। এরপরও সাফের স্বার্থে যৌথ চ্যাম্পিয়ন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন, সাফের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল হক হেলাল।

যুগ্ম শিরোপা দেওয়ার প্রেক্ষাপট বর্ণনা করলেন সাফ সম্পাদক। তিনি বলেন, ম্যাচ কমিশনারের ভুলে এটা হয়েছে। পরবর্তীতে ম্যাচ কমিশনার ও আমাদের পক্ষ থেকে তিনটি প্রস্তাব ছিল। ম্যাচ বাতিল করা, যুগ্ম শিরোপা দেয়া অথবা আবার সাডেন ডেথ শুরু করা।

আনোয়ারুল হক হেলাল বলেন, ভারত কোনো প্রস্তাবেই রাজি ছিল না। এরপর নানা আলোচনার পর যুগ্ম চ্যাম্পিয়নে সম্মত হয়েছে। সাফের স্বার্থে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। শ্রীলঙ্কার ম্যাচ কমিশনারের ভুল সিদ্ধান্তে এমন ঘটনা ঘটেছে বলে জানান তিনি।

এই ঘটনায় টুর্নামেন্টের আয়োজক সাফের দায় দেখছেন না ফেডারেশনটির সম্পাদক। বলেন, এটা ম্যাচ কমিশনারের ভুল। সে রেগুলেশনগুলো সঠিকভাবে পড়েননি। তিনি এএফসির শীর্ষ ম্যাচ কমিশনার। এরপরও এমন ভুল করেছে। এখানে সাফের কোনো ভুল নেই, কারণ ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্ব রেফারি ও কমিশনারের।

যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন সিদ্ধান্ত হওয়ায় ভারত চ্যাম্পিয়ন ট্রফি নিয়ে দেশে ফিরবে। বাংলাদেশকে কিছু দিন পর ট্রফি দেওয়া হবে বলেও জানান সাফ সম্পাদক। বলেন, এখন ভারত ট্রফি নিয়ে যাবে। বাংলাদেশকে কিছু দিনের মধ্যে দেয়া হবে। ‘টুর্নামেন্ট সেরা’, ‘ফেয়ার প্লে’ পুরস্কারগুলোও পরবর্তীতে দেয়া হবে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে মুখোমুখি হয় স্বাগতিক বাংলাদেশ ও ভারত। নানা নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে নির্ধারিত সময়ে খেলা শেষ হয় ১-১ গোলে। ম্যাচ গড়ায় ট্রাইব্রেকারে। যেখানেও ১১-১১ গোলে কোনো নিষ্পত্তি আসে না।

প্রথমে টসে ভারতকে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়। এরপর বাংলাদেশের প্রতিবাদের মুখে সেই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নেয় ম্যাচ কমিশনার। যা নিয়ে আপত্তি জানায় ভারত। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ-ভারত দুদলকেই যৌথভাবে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়।

কালের চিঠি / আলিফ