সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মোহাম্মদপুরে ভবন থেকে পড়ে গৃহকর্মীর মৃত্যু

  • ঢাকা অফিস
  • Update Time : ০৪:১৬:৩৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • ২৫ Time View

 

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের শাহজাহান রোডের একটি বহুতল ভবন থেকে পড়ে প্রীতি উড়ান (১৫) নামের এক গৃহকর্মী মারা গেছে। মঙ্গলবার সকাল আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। প্রীতি ডেইলি স্টার–এর নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আশফাকুল হকের বাসায় কাজ করত।

 

পুলিশের সুরতহাল প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ওই ভবনের নয়তলা থেকে কিশোরী গৃহকর্মী পাশের দোতলা টিনশেডের ওপর পড়ে। তাকে উদ্ধার করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান ওই বাসার ম্যানেজার আবদুল আদেল। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই কিশোরীকে মৃত ঘোষণা করেন। তাঁর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। প্রীতি উড়ানের গ্রামের বাড়ি মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে

 

এ ঘটনার পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং বাসা থেকে গৃহকর্তা সৈয়দ আশফাকুল হক, তাঁর স্ত্রী, ছেলে, মেয়ে ও দুই স্বজনকে আটক করে মোহাম্মদপুর থানায় নিয়ে যায়। রাত ১টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি। আটক ছয়জন থানা হেফাজতে ছিলেন।

 

গৃহকর্মীর মৃত্যুর ঘটনাটি গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানান মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজুল হক ভূঁইয়া। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, মৃত্যুর রহস্য উদ্‌ঘাটনের জন্য আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

 

কালের চিঠি/ফাহিম

Tag :

মোহাম্মদপুরে ভবন থেকে পড়ে গৃহকর্মীর মৃত্যু

Update Time : ০৪:১৬:৩৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

 

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের শাহজাহান রোডের একটি বহুতল ভবন থেকে পড়ে প্রীতি উড়ান (১৫) নামের এক গৃহকর্মী মারা গেছে। মঙ্গলবার সকাল আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। প্রীতি ডেইলি স্টার–এর নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আশফাকুল হকের বাসায় কাজ করত।

 

পুলিশের সুরতহাল প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ওই ভবনের নয়তলা থেকে কিশোরী গৃহকর্মী পাশের দোতলা টিনশেডের ওপর পড়ে। তাকে উদ্ধার করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান ওই বাসার ম্যানেজার আবদুল আদেল। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই কিশোরীকে মৃত ঘোষণা করেন। তাঁর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। প্রীতি উড়ানের গ্রামের বাড়ি মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে

 

এ ঘটনার পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং বাসা থেকে গৃহকর্তা সৈয়দ আশফাকুল হক, তাঁর স্ত্রী, ছেলে, মেয়ে ও দুই স্বজনকে আটক করে মোহাম্মদপুর থানায় নিয়ে যায়। রাত ১টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি। আটক ছয়জন থানা হেফাজতে ছিলেন।

 

গৃহকর্মীর মৃত্যুর ঘটনাটি গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানান মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজুল হক ভূঁইয়া। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, মৃত্যুর রহস্য উদ্‌ঘাটনের জন্য আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

 

কালের চিঠি/ফাহিম