বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শিক্ষক সংকট নিরসনে বছরে ৪ বার নিয়োগের নির্দেশ শিক্ষামন্ত্রীর

 

সংকট নিরসনে দেশের বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে বছরে অন্তত চারবার শিক্ষক নিয়োগের ব্যবস্থা নিতে বলেছেন শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী।

আজ সোমবার রাজধানীর ইস্কাটনে বোরাক টাওয়ারে বেসরকারি নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) অফিসে এনটিআরসিএ’র চেয়ারম্যানসহ কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ নির্দেশনা দেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষকদের পেশাগত মানবৃদ্ধি, প্রশিক্ষণসহ কাউকে যদি ক্ষমতায়ন করতে হয় এনটিআরসিএকেই করতে হবে। ’

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর, দেশের সকল শিক্ষাবোর্ড, জাতীয় পাঠ্যক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডসহ সংশ্লিষ্ট সকলপক্ষের সঙ্গে সমন্বয় করে এনটিআরসিএ’র সক্ষমতা বৃদ্ধি করার প্রতি তিনি গুরুত্বারোপ করেন।

শিক্ষক নিয়োগকে আরো ত্বরান্বিত করতে যদি এমপিও নীতিমালায় সংশোধনী আনার প্রয়োজন হয় তাহলে সে বিষয়ে সুপারিশ করতে তিনি এনটিআরসিএ’র প্রতি আহ্বান জানান।

মতবিনিময় সভায় এনটিআরসিএ’র চেয়ারম্যান মো. সাইফুল্লাহিল আজম এবং এনটিআরসিএ’র কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

কালের চিঠি / আশিকুর।

Tag :

শিক্ষক সংকট নিরসনে বছরে ৪ বার নিয়োগের নির্দেশ শিক্ষামন্ত্রীর

Update Time : ০৪:০৫:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

 

সংকট নিরসনে দেশের বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে বছরে অন্তত চারবার শিক্ষক নিয়োগের ব্যবস্থা নিতে বলেছেন শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী।

আজ সোমবার রাজধানীর ইস্কাটনে বোরাক টাওয়ারে বেসরকারি নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) অফিসে এনটিআরসিএ’র চেয়ারম্যানসহ কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ নির্দেশনা দেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষকদের পেশাগত মানবৃদ্ধি, প্রশিক্ষণসহ কাউকে যদি ক্ষমতায়ন করতে হয় এনটিআরসিএকেই করতে হবে। ’

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর, দেশের সকল শিক্ষাবোর্ড, জাতীয় পাঠ্যক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডসহ সংশ্লিষ্ট সকলপক্ষের সঙ্গে সমন্বয় করে এনটিআরসিএ’র সক্ষমতা বৃদ্ধি করার প্রতি তিনি গুরুত্বারোপ করেন।

শিক্ষক নিয়োগকে আরো ত্বরান্বিত করতে যদি এমপিও নীতিমালায় সংশোধনী আনার প্রয়োজন হয় তাহলে সে বিষয়ে সুপারিশ করতে তিনি এনটিআরসিএ’র প্রতি আহ্বান জানান।

মতবিনিময় সভায় এনটিআরসিএ’র চেয়ারম্যান মো. সাইফুল্লাহিল আজম এবং এনটিআরসিএ’র কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

কালের চিঠি / আশিকুর।