সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে কর্মবিরতির ডাক চবি শিক্ষক সমিতির।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার ও উপ-উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে এবার কর্মবিরতির ডাক দিয়েছে চবি শিক্ষক সমিতি।

রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের এস রহমান হলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন চবি শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দরা। আগামীকাল সোমবার ও মঙ্গলবার (৫ ও ৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা এবং আগামী বুধবার ও বৃহস্পতিবার (৭ ও ৮ ফেব্রুয়ারি) ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত কর্মবিরতি পালন করবে শিক্ষকরা।

এ সময় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আব্দুল হক বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের মানা অনিয়ম-দুর্নীতির বিষয় তুলে ধরে বলেন, উপাচার্য এবং উপ-উপাচার্য পদত্যাগ না করা পর্যন্ত শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে চবি প্রশাসনিক ভবনের সামনে চলমান প্রশাসনের নানান অগ্রহণযোগ্য কার্যক্রম বিষয়ক সংবাদ প্রদর্শনী চলতে থাকবে। পাশাপাশি আগামীকাল সোমবার ও মঙ্গলবার (৫ ও ৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এবং আগামী বুধবার ও বৃহস্পতিবার (৭ ও ৮ ফেব্রুয়ারি) ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক সমিতি বিশ্ববিদ্যালয়ে সর্বাত্মক কর্মবিরতি (পরীক্ষা আওতামুক্ত থাকবে) ঘোষণা করছে।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের স্বার্থ বিবেচনা করে পরবর্তীতে অতিরিক্ত ক্লাস নেওয়ার মাধ্যমে সম্ভাব্য ক্ষতি পুষিয়ে দেয়ার ব্যাপারে শিক্ষক সমিতি কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করবে।

এই সংবাদ সম্মেলনে চবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মুস্তাফিজুর রহমান সিদ্দিকী, সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আলা উদ্দিন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলী আরশাদ চৌধুরী, সদস্য অধ্যাপক ড. লায়লা খালেদা ও ড. মোহাম্মদ শেখ সাদীসহ অন্যান্য শিক্ষকরা উপস্থিত ছিলেন।

Tag :

উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে কর্মবিরতির ডাক চবি শিক্ষক সমিতির।

Update Time : ০৬:০১:০৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার ও উপ-উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে এবার কর্মবিরতির ডাক দিয়েছে চবি শিক্ষক সমিতি।

রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের এস রহমান হলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন চবি শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দরা। আগামীকাল সোমবার ও মঙ্গলবার (৫ ও ৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা এবং আগামী বুধবার ও বৃহস্পতিবার (৭ ও ৮ ফেব্রুয়ারি) ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত কর্মবিরতি পালন করবে শিক্ষকরা।

এ সময় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আব্দুল হক বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের মানা অনিয়ম-দুর্নীতির বিষয় তুলে ধরে বলেন, উপাচার্য এবং উপ-উপাচার্য পদত্যাগ না করা পর্যন্ত শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে চবি প্রশাসনিক ভবনের সামনে চলমান প্রশাসনের নানান অগ্রহণযোগ্য কার্যক্রম বিষয়ক সংবাদ প্রদর্শনী চলতে থাকবে। পাশাপাশি আগামীকাল সোমবার ও মঙ্গলবার (৫ ও ৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এবং আগামী বুধবার ও বৃহস্পতিবার (৭ ও ৮ ফেব্রুয়ারি) ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক সমিতি বিশ্ববিদ্যালয়ে সর্বাত্মক কর্মবিরতি (পরীক্ষা আওতামুক্ত থাকবে) ঘোষণা করছে।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের স্বার্থ বিবেচনা করে পরবর্তীতে অতিরিক্ত ক্লাস নেওয়ার মাধ্যমে সম্ভাব্য ক্ষতি পুষিয়ে দেয়ার ব্যাপারে শিক্ষক সমিতি কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করবে।

এই সংবাদ সম্মেলনে চবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মুস্তাফিজুর রহমান সিদ্দিকী, সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আলা উদ্দিন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলী আরশাদ চৌধুরী, সদস্য অধ্যাপক ড. লায়লা খালেদা ও ড. মোহাম্মদ শেখ সাদীসহ অন্যান্য শিক্ষকরা উপস্থিত ছিলেন।