রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিয়ের অনুষ্ঠান দেখতে গিয়ে ১১ বছরের শিশু ধর্ষণের শিকার: ধর্ষক আটক !

 

গাইবান্ধা সদর উপজেলায় ১১ বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণ ঘটনায় এনামুল মিয়া (১৯) নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

রোববার (২৮ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় র‌্যাব-১৩, গাইবান্ধা ক্যাম্পের ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট (মিডিয়া) পক্ষে মাহমুদ বশির আহমেদ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গ্রেফতার ধর্ষক এনামুল মিয়া উপজেলার উত্তর গিদারী (গাছের ভিটা) গ্রামের আবুল কালাম আজাদ ও সাহানা বেগম দম্পতির ছেলে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ১২ জানুয়ারি রাত প্রায় ৮টার দিকে ওই শিশু তার বড় বোনের সঙ্গে প্রতিবেশী জুয়েল মিয়ার বিয়ের অনুষ্ঠান দেখার জন্য যায়। এরই মধ্যে এনামুল মিয়া ভিকটিমকে কৌশলে ডেকে নিয়ে উত্তর গিদারীর চয়ন মিয়ার পুকুর পাড়ে কলা গাছের নিচে নিয়ে যায় এবং বিবাহের প্রলোভনে শিশুর ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ভিকটিমের মা বাদী হয়ে গাইবান্ধা সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর থেকে আসামি এনামুল মিয়া আত্মগোপনে ছিলেন। তাকে গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রেখে শনিবার (২৭ জানুয়ারি) গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১, নারায়নগঞ্জের সহায়তায়, র‌্যাব-১৩, গাইবান্ধা ক্যাম্পের একটি যৌথ আভিযানিক দল অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থানাধীন প্রতাপ নগর এলাকা থেকে ধর্ষণ মামলার এজাহার নামীয় প্রধান আসামি এনামুল মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়।

মাহমুদ বশির আহমেদ বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামি ভিকটিমের সরলতার সুযোগ নিয়ে ভিকটিমকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। ধৃত এনামুল মিয়াকে গাইবান্ধা সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়।

Tag :
Popular Post

কোটা বিরোধী আন্দোলনে ঢাকায় ২ শিক্ষার্থী নিহত

বিয়ের অনুষ্ঠান দেখতে গিয়ে ১১ বছরের শিশু ধর্ষণের শিকার: ধর্ষক আটক !

Update Time : ০৫:০৪:৩১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৪

 

গাইবান্ধা সদর উপজেলায় ১১ বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণ ঘটনায় এনামুল মিয়া (১৯) নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

রোববার (২৮ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় র‌্যাব-১৩, গাইবান্ধা ক্যাম্পের ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট (মিডিয়া) পক্ষে মাহমুদ বশির আহমেদ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গ্রেফতার ধর্ষক এনামুল মিয়া উপজেলার উত্তর গিদারী (গাছের ভিটা) গ্রামের আবুল কালাম আজাদ ও সাহানা বেগম দম্পতির ছেলে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ১২ জানুয়ারি রাত প্রায় ৮টার দিকে ওই শিশু তার বড় বোনের সঙ্গে প্রতিবেশী জুয়েল মিয়ার বিয়ের অনুষ্ঠান দেখার জন্য যায়। এরই মধ্যে এনামুল মিয়া ভিকটিমকে কৌশলে ডেকে নিয়ে উত্তর গিদারীর চয়ন মিয়ার পুকুর পাড়ে কলা গাছের নিচে নিয়ে যায় এবং বিবাহের প্রলোভনে শিশুর ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ভিকটিমের মা বাদী হয়ে গাইবান্ধা সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর থেকে আসামি এনামুল মিয়া আত্মগোপনে ছিলেন। তাকে গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রেখে শনিবার (২৭ জানুয়ারি) গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১, নারায়নগঞ্জের সহায়তায়, র‌্যাব-১৩, গাইবান্ধা ক্যাম্পের একটি যৌথ আভিযানিক দল অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থানাধীন প্রতাপ নগর এলাকা থেকে ধর্ষণ মামলার এজাহার নামীয় প্রধান আসামি এনামুল মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়।

মাহমুদ বশির আহমেদ বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামি ভিকটিমের সরলতার সুযোগ নিয়ে ভিকটিমকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। ধৃত এনামুল মিয়াকে গাইবান্ধা সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়।