সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জাতিসংঘের ফিলিস্তিনি ত্রাণ সংস্থায় ৯ দেশের অর্থায়ন স্থগিত

 

যুক্তরাষ্ট্রের পর জাতিসংঘের ফিলিস্তিনি ত্রাণ সংস্থায় অর্থায়ন স্থগিত করছে একে একে ৯টি দেশ। এ তালিকায় যোগ হয়েছে অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, ফিনল্যান্ড, জার্মানি, ইতালি, নেদারল্যান্ডস, সুইডেন, যুক্তরাজ্য।

 

রোববার (২৮ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। পশ্চিমা দেশগুলোর এমন সিদ্ধান্তের নিন্দা জানিয়েছেন ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।

 

 

ফিলিস্তিনিদের জন্য জাতিসংঘের ত্রাণ ও কর্মসংস্থান সংস্থা-ইউএনআরডব্লিউএ’তে অর্থায়ন দেওয়া বন্ধ করেছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, ইতালি ও কানাডা। গত ৭ অক্টোবর ইসরাইলে স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাসের হামলার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে সংস্থাটি তাদের কয়েকজন কর্মীকে বরখাস্তের ঘোষণা দেওয়ার পর দেশগুলো এ পদক্ষেপ নিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র প্রথমে অর্থ বন্ধের ঘোষণা দেয়ার পর সেই পথ অনুসরণ করলো বাকি দেশগুলোও।

 

গাজায় ইউএনআরডব্লিউএয়ের ১৩ হাজার কর্মী রয়েছেন। যাদের মধ্যে বেশিরভাগই ফিলিস্তিনি স্কুলের শিক্ষক, চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী এবং ত্রাণকর্মী। ইসরাইলের দেয়া তথ্য তদন্ত করে দেখবে বলে জানিয়েছে ইউএনআরডব্লিউএ। সংস্থাটির ১২ কর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। অস্ট্রেলিয়া সংস্থাটির বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ ওঠায় উদ্বেগ জানিয়েছেন। কানাডা এই অভিযোগের তদন্ত চলাকালে ইউএনআরডব্লিউএকে কোনো অতিরিক্ত তহবিল সরবরাহ করবে না বলে জানিয়েছে।

 

২০২২ সালে ইউএনআরডব্লিউএয়ের শীর্ষস্থানীয় দাতাদের মধ্যে ছিল যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলো। গাজায় মানবিক সহায়তা পরিচালনার সক্ষমতা ফুরিয়ে আসছে- তা বারবারই বলে আসছে সংস্থাটি । এরমধ্যে শীর্ষস্থানীয় দাতারা তহবিল বন্ধ করে দিলে ফিলিস্তিনিরা আরও নির্মম পরিস্থিতির শিকার হবেন।

 

কালের চিঠি/শর্মিলী

Tag :

শ্রেণিকক্ষে যৌন হয়রানির অভিযোগ, ২ শিক্ষককে বরখাস্তের দাবিতে বিদ্যালয়ে তালা

জাতিসংঘের ফিলিস্তিনি ত্রাণ সংস্থায় ৯ দেশের অর্থায়ন স্থগিত

Update Time : ০৫:১৭:৩৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৪

 

যুক্তরাষ্ট্রের পর জাতিসংঘের ফিলিস্তিনি ত্রাণ সংস্থায় অর্থায়ন স্থগিত করছে একে একে ৯টি দেশ। এ তালিকায় যোগ হয়েছে অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, ফিনল্যান্ড, জার্মানি, ইতালি, নেদারল্যান্ডস, সুইডেন, যুক্তরাজ্য।

 

রোববার (২৮ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। পশ্চিমা দেশগুলোর এমন সিদ্ধান্তের নিন্দা জানিয়েছেন ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।

 

 

ফিলিস্তিনিদের জন্য জাতিসংঘের ত্রাণ ও কর্মসংস্থান সংস্থা-ইউএনআরডব্লিউএ’তে অর্থায়ন দেওয়া বন্ধ করেছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, ইতালি ও কানাডা। গত ৭ অক্টোবর ইসরাইলে স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাসের হামলার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে সংস্থাটি তাদের কয়েকজন কর্মীকে বরখাস্তের ঘোষণা দেওয়ার পর দেশগুলো এ পদক্ষেপ নিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র প্রথমে অর্থ বন্ধের ঘোষণা দেয়ার পর সেই পথ অনুসরণ করলো বাকি দেশগুলোও।

 

গাজায় ইউএনআরডব্লিউএয়ের ১৩ হাজার কর্মী রয়েছেন। যাদের মধ্যে বেশিরভাগই ফিলিস্তিনি স্কুলের শিক্ষক, চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী এবং ত্রাণকর্মী। ইসরাইলের দেয়া তথ্য তদন্ত করে দেখবে বলে জানিয়েছে ইউএনআরডব্লিউএ। সংস্থাটির ১২ কর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। অস্ট্রেলিয়া সংস্থাটির বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ ওঠায় উদ্বেগ জানিয়েছেন। কানাডা এই অভিযোগের তদন্ত চলাকালে ইউএনআরডব্লিউএকে কোনো অতিরিক্ত তহবিল সরবরাহ করবে না বলে জানিয়েছে।

 

২০২২ সালে ইউএনআরডব্লিউএয়ের শীর্ষস্থানীয় দাতাদের মধ্যে ছিল যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলো। গাজায় মানবিক সহায়তা পরিচালনার সক্ষমতা ফুরিয়ে আসছে- তা বারবারই বলে আসছে সংস্থাটি । এরমধ্যে শীর্ষস্থানীয় দাতারা তহবিল বন্ধ করে দিলে ফিলিস্তিনিরা আরও নির্মম পরিস্থিতির শিকার হবেন।

 

কালের চিঠি/শর্মিলী