শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

৬ গোলের ম্যাচে বার্সাকে হারিয়ে সেমিতে অ্যাথলেটিক বিলবাও

 

কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচে বার্সেলোনাকে ৪-২ গোলে হারিয়ে কোপা ডেল রের সেমি-ফাইনালে উঠেছে অ্যাথলেটিক বিলবাও। নির্ধারিত সময়ে ২-২ গোলে ড্র হলে অতিরিক্ত সময়ে অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের সামনে দাঁড়াতে পারেনি বার্সা। যোগ করা সময়েই খেয়ে বসে ২ গোল।

 

বুধবার (২৪ জানুয়ারি) রাতে বিলবাওয়ের মাঠ সান মামেসে কোয়ার্টার-ফাইনালের ম্যাচে বার্সাকে ৪-২ গোলে হারিয়েছে অ্যাথলেটিক বিলবাও।

 

এদিন ম্যাচের প্রথম মিনিটেই এগিয়ে যায় বিলবাও। ডান পায়ের হাফ ভলিতে লক্ষ্যভেদ করে দলকে প্রথম গোলের জয়ে ভাসান স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড গোর্কা।

 

ধাক্কা সামলে ধীরে ধীরে ম্যাচে ফিরতে শুরু করে বার্সা। ২৬ মিনিটে ভাগ্যের সহায়তায়, দলকে সমতায় ফেরান লেভানডোভস্কি। বক্সে বিলবাওয়ের এক ডিফেন্ডার বল ক্লিয়ার করতে গেলে, বল লেভান্ডোভস্কির পায়ে লেগে খুঁজে নেয় জালের ঠিকানা।

 

এরপর ৩২ মিনিটে ইয়ামালের দূর্দান্ত গোলে আবারও এগিয়ে যায় বার্সা। পরে ২-১ গোলের লিড নিয়ে বিরতিতে যায় জাভির দল।

 

তবে, বিরতির পর মাঠে নেমেই সমতা আনে বিলবাও। উইলিয়ামসের ক্রসে সানসেটের হেডে আসে দ্বিতীয় গোল। ৬৫তম মিনিটে দলকে আবার এগিয়ে নেওয়ার সুবর্ণ সুযোগ হারান ইয়ামাল। ৭৪ মিনিটে সুযোগ নষ্ট করে স্বাগতিকরাও।

 

অতিরিক্ত সময়ের শেষদিকে আবারও এগিয়ে যায় বিলবাও। উইলিয়ামসের শট প্রথমবার আটকে দিলেও ফিরতি শটে জালে বল জড়ান এই ফরোয়ার্ড।

 

এরপর ম্যাচে ফেরার একাধিক চেষ্টা করেও পারেনি বার্সা। উল্টো যোগ করা সময়ে নিকো উইলিয়ামসের গোলে জয় নিশ্চিত করে বিলবাও। উল্লাসে ফেটে পড়ে গোটা সান মামেস। সেমিতে ওঠার আনন্দ নিয়ে মাঠ ছাড়েন দ্য লায়ন্সরা।

 

কালের চিঠি/ ফাহিম

Tag :

৬ গোলের ম্যাচে বার্সাকে হারিয়ে সেমিতে অ্যাথলেটিক বিলবাও

Update Time : ০৭:৩৫:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২৪

 

কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচে বার্সেলোনাকে ৪-২ গোলে হারিয়ে কোপা ডেল রের সেমি-ফাইনালে উঠেছে অ্যাথলেটিক বিলবাও। নির্ধারিত সময়ে ২-২ গোলে ড্র হলে অতিরিক্ত সময়ে অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের সামনে দাঁড়াতে পারেনি বার্সা। যোগ করা সময়েই খেয়ে বসে ২ গোল।

 

বুধবার (২৪ জানুয়ারি) রাতে বিলবাওয়ের মাঠ সান মামেসে কোয়ার্টার-ফাইনালের ম্যাচে বার্সাকে ৪-২ গোলে হারিয়েছে অ্যাথলেটিক বিলবাও।

 

এদিন ম্যাচের প্রথম মিনিটেই এগিয়ে যায় বিলবাও। ডান পায়ের হাফ ভলিতে লক্ষ্যভেদ করে দলকে প্রথম গোলের জয়ে ভাসান স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড গোর্কা।

 

ধাক্কা সামলে ধীরে ধীরে ম্যাচে ফিরতে শুরু করে বার্সা। ২৬ মিনিটে ভাগ্যের সহায়তায়, দলকে সমতায় ফেরান লেভানডোভস্কি। বক্সে বিলবাওয়ের এক ডিফেন্ডার বল ক্লিয়ার করতে গেলে, বল লেভান্ডোভস্কির পায়ে লেগে খুঁজে নেয় জালের ঠিকানা।

 

এরপর ৩২ মিনিটে ইয়ামালের দূর্দান্ত গোলে আবারও এগিয়ে যায় বার্সা। পরে ২-১ গোলের লিড নিয়ে বিরতিতে যায় জাভির দল।

 

তবে, বিরতির পর মাঠে নেমেই সমতা আনে বিলবাও। উইলিয়ামসের ক্রসে সানসেটের হেডে আসে দ্বিতীয় গোল। ৬৫তম মিনিটে দলকে আবার এগিয়ে নেওয়ার সুবর্ণ সুযোগ হারান ইয়ামাল। ৭৪ মিনিটে সুযোগ নষ্ট করে স্বাগতিকরাও।

 

অতিরিক্ত সময়ের শেষদিকে আবারও এগিয়ে যায় বিলবাও। উইলিয়ামসের শট প্রথমবার আটকে দিলেও ফিরতি শটে জালে বল জড়ান এই ফরোয়ার্ড।

 

এরপর ম্যাচে ফেরার একাধিক চেষ্টা করেও পারেনি বার্সা। উল্টো যোগ করা সময়ে নিকো উইলিয়ামসের গোলে জয় নিশ্চিত করে বিলবাও। উল্লাসে ফেটে পড়ে গোটা সান মামেস। সেমিতে ওঠার আনন্দ নিয়ে মাঠ ছাড়েন দ্য লায়ন্সরা।

 

কালের চিঠি/ ফাহিম