শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গাইবান্ধায় জেলা ইজতেমার জুমার নামাজে হাজারো মুসল্লির ঢল 

গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার মাঠের হাটে অনুষ্ঠিত জেলা ইজতেমার ২য় দিন শুক্রবারে জুমার নামাজে হাজারো মুসল্লীর ঢল নামে। ইজতেমা অঞ্চল ছাড়াও এদিন বিশাল এলাকায় মুসল্লীদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো।

১৯ জানুয়ারি শুক্রবার সকাল থেকেই জুমার নামাজের জন্য সকাল থেকেই গাইবান্ধা জেলাসহ আশেপাশের জেলা থেকে দলে দলে ধর্ম প্রাণ মুসল্লীরা ইজতেমা ময়দানে আসতে থাকে। খুৎবার আগেই ইজতেমা এলাকা জনসমুদ্রে পরিণত হয়। প্রায় অর্ধলক্ষ মুসল্লির উপস্থিতিতে তাবলীগ জামাতের মুফতি মাওলানা আজিম উদ্দিন জুমার নামাজের ইমামতি করেন।

 

৩দিন ব্যাপী এ ইজতেমা শনিবার আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবে বলে তাবলীগ জামাতের দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে। ইজতেমার নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য ৩ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে ।

 

এর আগে ১৮ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার ফজরের নামাজের পর আম বয়ানের মধ্য দিয়ে তিনদিন ব্যাপী গাইবান্ধা জেলা ইজতেমার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয় যা আগামী ২০ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবে।

 

গাইবান্ধা জেলা ইজতেমা পরিচালনা কমিটির সমন্বয়ক শাহজাহান কবির জানান, জেলা ভিত্তিক আঞ্চলিক ইজতেমার অংশ হিসেবে গাইবান্ধায় এ আয়োজন করা হয়েছে। বৃহৎ এই গনজমায়েতের পরিবেশ সুষ্ঠু রাখতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের পাশাপাশি আমাদের নিজস্ব শতাধিক স্বেচ্ছাসেবক রয়েছে।

 

গাইবান্ধার পুলিশ সুপার মো. কামাল হোসেন জানান, ইজতেমা ময়দানে নিরাপত্তার জন্য পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সার্বক্ষণিক নিয়োজিত রয়েছে।

Tag :

গাইবান্ধায় জেলা ইজতেমার জুমার নামাজে হাজারো মুসল্লির ঢল 

Update Time : ০১:২৭:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২৪

গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার মাঠের হাটে অনুষ্ঠিত জেলা ইজতেমার ২য় দিন শুক্রবারে জুমার নামাজে হাজারো মুসল্লীর ঢল নামে। ইজতেমা অঞ্চল ছাড়াও এদিন বিশাল এলাকায় মুসল্লীদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো।

১৯ জানুয়ারি শুক্রবার সকাল থেকেই জুমার নামাজের জন্য সকাল থেকেই গাইবান্ধা জেলাসহ আশেপাশের জেলা থেকে দলে দলে ধর্ম প্রাণ মুসল্লীরা ইজতেমা ময়দানে আসতে থাকে। খুৎবার আগেই ইজতেমা এলাকা জনসমুদ্রে পরিণত হয়। প্রায় অর্ধলক্ষ মুসল্লির উপস্থিতিতে তাবলীগ জামাতের মুফতি মাওলানা আজিম উদ্দিন জুমার নামাজের ইমামতি করেন।

 

৩দিন ব্যাপী এ ইজতেমা শনিবার আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবে বলে তাবলীগ জামাতের দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে। ইজতেমার নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য ৩ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে ।

 

এর আগে ১৮ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার ফজরের নামাজের পর আম বয়ানের মধ্য দিয়ে তিনদিন ব্যাপী গাইবান্ধা জেলা ইজতেমার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয় যা আগামী ২০ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবে।

 

গাইবান্ধা জেলা ইজতেমা পরিচালনা কমিটির সমন্বয়ক শাহজাহান কবির জানান, জেলা ভিত্তিক আঞ্চলিক ইজতেমার অংশ হিসেবে গাইবান্ধায় এ আয়োজন করা হয়েছে। বৃহৎ এই গনজমায়েতের পরিবেশ সুষ্ঠু রাখতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের পাশাপাশি আমাদের নিজস্ব শতাধিক স্বেচ্ছাসেবক রয়েছে।

 

গাইবান্ধার পুলিশ সুপার মো. কামাল হোসেন জানান, ইজতেমা ময়দানে নিরাপত্তার জন্য পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সার্বক্ষণিক নিয়োজিত রয়েছে।