মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ড.নুরুন নবী’র সংগ্রামমুখর জীবন নিয়ে তৈরি হচ্ছে বিশেষ প্রামাণ্য চিত্র

বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিজ্ঞানী, রাজনীতিক, একটিভিস্ট এবং লেখক ড. নূরুন নবীর বর্ণাঢ্য ও সংগ্রামমুখর অনুকরণীয় জীবনের ওপর ভিত্তি করে একটি প্রামাণ্য চিত্র নির্মাণ করেছেন স্বনামধন্য ডকুমেন্টারি নির্মাতা নাদিম ইকবাল। এই প্রামাণ্য চিত্রের নাম ’ড. নুরুন নবী, আজীবন মুক্তিযোদ্ধা’ বা ‘আ ফ্রিডম ফাইটার ফরএভার’।

 

১৯৭১ সালে ড. নূরুন নবী কাদেরিয়া বাহিনীতে নাম লেখান। মুক্তিযুদ্ধে তার দায়িত্ব ছিল কমান্ডার কাদের সিদ্দিকীর পরামর্শক হিসাবে যুদ্ধের কৌশল নির্ধারণ এবং ভারতের কাছ থেকে অস্ত্র সংগ্রহ ও বহন করে নিয়ে আসা। তিনি যমুনা নদী দিয়ে নৌকায় অস্ত্র নিয়ে আসতেন। নদীপথের সেই অঞ্চলসহ (ভুয়াপুর ও বাহদুরাবাদ) আসামের গৌহাটি, মেঘালয়ের তুরা ট্রেনিং ক্যাম্প যেখানে ছিল সেখানে শুটিং হয় এই ডকুমেন্টারির। এছাড়াও ড. নূরুন নবীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে, টাঙ্গাইলে একাত্তরের স্মৃতিবিজড়িত এলাকায় শুটিং হয়। ভারতের ২৮ জন সেনা কর্মকর্তা যাদের সাথে একাত্তরে যোগাযোগ ও বৈঠক হয় ড. নূরুন নবীর তাদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হয় নতুন দিল্লীসহ অন্যান্য শহরে।

 

এই ডকুমেন্টারিতে মুক্তিযুদ্ধের অরিজিনাল ফুটেজও ব্যবহৃত হয়েছে। সেই সাথে ড. নূরুন নবীর কর্মকান্ড সম্পর্কে যারা জানেন এমন বিশিষ্টজনদের সাক্ষাৎকার ও মন্তব্য গ্রহণ করা হয়েছে। এরা হলেন শাহরিয়ার কবির, মুহাম্মদ জাফর ইকবাল, কবি আসাদ চৌধুরী, প্রবীণ সাংবাদিক সৈয়দ মোহাম্মদউল্লাহ, বেলাল বেগ, মুক্তিযোদ্ধা তাজুল ইমাম, সাপ্তাহিক বাঙালী সম্পাদক কৌশিক আহমেদ, বিশিষ্ট অভিনেত্রী ও আবৃত্তিকার লুৎফুন নাহার লতা প্রমুখ।

 

ড. নবীর লেখা সাড়া জাগানো বই ‘বুলেটস অব সেভেন্টি ওয়ান- আ ফ্রিম ফাইটার্স স্টোরি’ অবলম্বনে এই ডকুমেন্টারিটির দৈর্ঘ্য ১ ঘন্টা ১৫ মিনিট। নাদিম ইকবাল নির্মিত ‘আ ফ্রিডম ফাইটার ফরএভার’এর চিত্রধারণ করেছেন তিনি নিজেই। ডকুমেন্টারিটি মুক্তি পাবে সহসাই।

Tag :

ড.নুরুন নবী’র সংগ্রামমুখর জীবন নিয়ে তৈরি হচ্ছে বিশেষ প্রামাণ্য চিত্র

Update Time : ১২:৫৮:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জানুয়ারী ২০২৪

বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিজ্ঞানী, রাজনীতিক, একটিভিস্ট এবং লেখক ড. নূরুন নবীর বর্ণাঢ্য ও সংগ্রামমুখর অনুকরণীয় জীবনের ওপর ভিত্তি করে একটি প্রামাণ্য চিত্র নির্মাণ করেছেন স্বনামধন্য ডকুমেন্টারি নির্মাতা নাদিম ইকবাল। এই প্রামাণ্য চিত্রের নাম ’ড. নুরুন নবী, আজীবন মুক্তিযোদ্ধা’ বা ‘আ ফ্রিডম ফাইটার ফরএভার’।

 

১৯৭১ সালে ড. নূরুন নবী কাদেরিয়া বাহিনীতে নাম লেখান। মুক্তিযুদ্ধে তার দায়িত্ব ছিল কমান্ডার কাদের সিদ্দিকীর পরামর্শক হিসাবে যুদ্ধের কৌশল নির্ধারণ এবং ভারতের কাছ থেকে অস্ত্র সংগ্রহ ও বহন করে নিয়ে আসা। তিনি যমুনা নদী দিয়ে নৌকায় অস্ত্র নিয়ে আসতেন। নদীপথের সেই অঞ্চলসহ (ভুয়াপুর ও বাহদুরাবাদ) আসামের গৌহাটি, মেঘালয়ের তুরা ট্রেনিং ক্যাম্প যেখানে ছিল সেখানে শুটিং হয় এই ডকুমেন্টারির। এছাড়াও ড. নূরুন নবীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে, টাঙ্গাইলে একাত্তরের স্মৃতিবিজড়িত এলাকায় শুটিং হয়। ভারতের ২৮ জন সেনা কর্মকর্তা যাদের সাথে একাত্তরে যোগাযোগ ও বৈঠক হয় ড. নূরুন নবীর তাদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হয় নতুন দিল্লীসহ অন্যান্য শহরে।

 

এই ডকুমেন্টারিতে মুক্তিযুদ্ধের অরিজিনাল ফুটেজও ব্যবহৃত হয়েছে। সেই সাথে ড. নূরুন নবীর কর্মকান্ড সম্পর্কে যারা জানেন এমন বিশিষ্টজনদের সাক্ষাৎকার ও মন্তব্য গ্রহণ করা হয়েছে। এরা হলেন শাহরিয়ার কবির, মুহাম্মদ জাফর ইকবাল, কবি আসাদ চৌধুরী, প্রবীণ সাংবাদিক সৈয়দ মোহাম্মদউল্লাহ, বেলাল বেগ, মুক্তিযোদ্ধা তাজুল ইমাম, সাপ্তাহিক বাঙালী সম্পাদক কৌশিক আহমেদ, বিশিষ্ট অভিনেত্রী ও আবৃত্তিকার লুৎফুন নাহার লতা প্রমুখ।

 

ড. নবীর লেখা সাড়া জাগানো বই ‘বুলেটস অব সেভেন্টি ওয়ান- আ ফ্রিম ফাইটার্স স্টোরি’ অবলম্বনে এই ডকুমেন্টারিটির দৈর্ঘ্য ১ ঘন্টা ১৫ মিনিট। নাদিম ইকবাল নির্মিত ‘আ ফ্রিডম ফাইটার ফরএভার’এর চিত্রধারণ করেছেন তিনি নিজেই। ডকুমেন্টারিটি মুক্তি পাবে সহসাই।