সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঘরে বসে ফোনেই দেখা যাবে নির্বাচনী সব তথ্য

 

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সারাদেশের ৪২ হাজারেরও বেশি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হবে। এই বিশাল কর্মযজ্ঞের সব তথ্য যে কেউ ঘরে বসেই জানতে পারবেন।

 

শুধু আপনার ভোটার নম্বর, কেন্দ্রের নাম ও লোকেশনই নয়, ভোট পড়ার হার, প্রার্থীদের হলফনামাসহ নির্বাচনের বিভিন্ন তুলনামূলক চিত্রও ঘরে বসেই জানতে পারবেন যে কেউ।

 

 

ভোটার, ভোট কেন্দ্র ও ভোটের সব তথ্য জানার উপায় কী?

 

ভোটার হিসেবে আপনি কোন ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেবেন সেটি গুরুত্বপূর্ণ। সঠিক কেন্দ্রে না গেলে আপনি ভোট দিতে পারবেন না। ভোট দিতে হলে আপনাকে অবশ্যই নির্ধারিত ভোট কেন্দ্রে উপস্থিত হতে হবে।

 

 

আপনি কোন ভোটকেন্দ্রে যাবেন তা জেনে নেয়া যাবে নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইট থেকে। নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে (http://www.ecs.gov.bd/page/gadgets-for-12th-national-parliament-election) ৩০০ নির্বাচনী আসনের কেন্দ্র তালিকা রয়েছে। এ তালিকা থেকে ভোটাররা জানতে পারবেন তার ওয়ার্ডের জন্য কোনো কেন্দ্র নির্ধারিত রয়েছে।

 

তবে এখান থেকে আপনার কেন্দ্র কোনটি সেটি জানতে হলে আগে জানতে হবে, আপনি কোন আসনের ভোটার এবং ওই আসনের কত নম্বর ওয়ার্ডের ভোটার। এটি জানা থাকলে ওই আসনের ভোটকেন্দ্রের তালিকায় আপনার ওয়ার্ডের ভোট কোন কেন্দ্রে হবে সেটি আপনি দেখে নিতে পারবেন।

 

 

 

গত নির্বাচনের সময় এসএমএসের মাধ্যমে ভোটকেন্দ্র সম্পর্কে জানার ব্যবস্থা থাকলেও সেই সুযোগ এই নির্বাচনে নেই।

 

তবে এবার ভোটকেন্দ্র সম্পর্কিত সব তথ্য জানতে পারবেন স্মার্ট ইলেকশন ম্যানেজমেন্ট ডটবিডি (smartelectionmanagement.BD) নামে একটি অ্যাপ থেকে। নির্বাচন কমিশন এই অ্যাপটি চালু করেছে। অ্যাপল-স্টোর বা গুগল প্লে-স্টোর থেকে এই অ্যাপটি ডাউনলোড করে ইন্সটল করা যাবে।

 

নির্বাচন কমিশন জানায়, অ্যাপটি ফোনে ইনস্টলের পর ভোটের ফলাফল, আইন ও বিধি, নিবন্ধিত দলের তালিকা, আসনভিত্তিক প্রার্থীর তালিকা, ভোট পড়ার হার, দলভিত্তিক প্রাপ্ত আসন সংখ্যাসহ নানা পরিসংখ্যা বা তুলনামূলক চিত্রও পাওয়া যাবে। মিলবে আগের নির্বাচনের তথ্যও।

 

যেভাবে ব্যবহার করতে হবে

 

অ্যাপটি ব্যবহার করতে হলে জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর, জন্ম তারিখ ও মোবাইল নম্বর দিয়ে নিবন্ধন করতে হয়। পরবর্তী সময়ে কেন্দ্রের নাম, কেন্দ্রের লোকেশন, ভোটার নম্বর, প্রার্থীদের নাম ও ছবি প্রভৃতি তথ্য জানতে জাতীয় পরিচয়পত্র ও জন্ম তারিখ দিলেই নিমিষেই মেলে চাহিদা মোতাবেক তথ্য।

 

এরমধ্যে বর্তমানে কততম পার্লামেন্ট নির্বাচন হচ্ছে, আপনার ভোটার আইডি নম্বর, আপনি কোন ভোট কেন্দ্রে ভোট দিতে পারবেন তার নাম, ভোট কেন্দ্রের ঠিকানা, আপনার ভোট দেওয়ার সিরিয়াল নম্বর বা ভোটিং সিরিয়াল নম্বরসহ বিভিন্ন তথ্য থাকে।

 

এমনকি আপনি কোন আসনের ভোটার এবং ওই আসনে কোন কোন প্রার্থী কী কী প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সে সম্পর্কিত তথ্যও জেনে নিতে পারবেন এই অ্যাপ থেকে।

 

ভোটার তালিকা দেখার উপায় কী?

 

নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, অনলাইন বা কোন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ভোটার তালিকা দেখার কোনো সুযোগ নেই। কারণ বাংলাদেশের ভোটারের সংখ্যা অনেক বলে এতে মানুষের তালিকা অনলাইনে প্রকাশ একটা দুরূহ কাজ।

 

এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের সচিব জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ১২ কোটি লোকের ভোটার তালিকা প্রকাশ করা কি সম্ভব?

 

এছাড়া ভোটারদের ব্যক্তিগত গোপনীয়তারও একটি বিষয় রয়েছে বলে জানান তিনি। তবে অনলাইনে পাওয়া না গেলেও ভোট দেয়ার আগেই ভোটার তালিকার তথ্য জানার ব্যবস্থা রয়েছে।

 

ইসি সচিব বলেন, ভোটারদের তালিকা প্রতিটি থানা এবং উপজেলা পর্যায়ে নির্বাচন অফিসে রয়েছে। সেখানে ভোটারদের তালিকা নির্বাচনের আগেই পাঠিয়ে দেওয়া হয়। সেখান থেকে এলাকাভিত্তিক ভোটাররা তাদের তালিকা সম্পর্কে জানতে পারবেন।

 

সেটা যদি সম্ভব না হয় তাহলে নির্বাচনের আগেই সাধারণত স্থানীয় প্রার্থীরা ভোটারদের বাড়িতে তাদের তালিকার নম্বর লিখে পাঠিয়ে দেয়।

 

আর নির্বাচনের দিন ভোট কেন্দ্রের বাইরে যেসব প্রার্থী থাকবেন, তাদের কাছে ভোটার তালিকার কপি থাকে। তারাও ভোটারদের তালিকা সম্পর্কে জানিয়ে থাকে বলে জানান ইসি সচিব।

Tag :

ঘরে বসে ফোনেই দেখা যাবে নির্বাচনী সব তথ্য

Update Time : ০২:৫৭:০১ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জানুয়ারী ২০২৪

 

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সারাদেশের ৪২ হাজারেরও বেশি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হবে। এই বিশাল কর্মযজ্ঞের সব তথ্য যে কেউ ঘরে বসেই জানতে পারবেন।

 

শুধু আপনার ভোটার নম্বর, কেন্দ্রের নাম ও লোকেশনই নয়, ভোট পড়ার হার, প্রার্থীদের হলফনামাসহ নির্বাচনের বিভিন্ন তুলনামূলক চিত্রও ঘরে বসেই জানতে পারবেন যে কেউ।

 

 

ভোটার, ভোট কেন্দ্র ও ভোটের সব তথ্য জানার উপায় কী?

 

ভোটার হিসেবে আপনি কোন ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেবেন সেটি গুরুত্বপূর্ণ। সঠিক কেন্দ্রে না গেলে আপনি ভোট দিতে পারবেন না। ভোট দিতে হলে আপনাকে অবশ্যই নির্ধারিত ভোট কেন্দ্রে উপস্থিত হতে হবে।

 

 

আপনি কোন ভোটকেন্দ্রে যাবেন তা জেনে নেয়া যাবে নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইট থেকে। নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে (http://www.ecs.gov.bd/page/gadgets-for-12th-national-parliament-election) ৩০০ নির্বাচনী আসনের কেন্দ্র তালিকা রয়েছে। এ তালিকা থেকে ভোটাররা জানতে পারবেন তার ওয়ার্ডের জন্য কোনো কেন্দ্র নির্ধারিত রয়েছে।

 

তবে এখান থেকে আপনার কেন্দ্র কোনটি সেটি জানতে হলে আগে জানতে হবে, আপনি কোন আসনের ভোটার এবং ওই আসনের কত নম্বর ওয়ার্ডের ভোটার। এটি জানা থাকলে ওই আসনের ভোটকেন্দ্রের তালিকায় আপনার ওয়ার্ডের ভোট কোন কেন্দ্রে হবে সেটি আপনি দেখে নিতে পারবেন।

 

 

 

গত নির্বাচনের সময় এসএমএসের মাধ্যমে ভোটকেন্দ্র সম্পর্কে জানার ব্যবস্থা থাকলেও সেই সুযোগ এই নির্বাচনে নেই।

 

তবে এবার ভোটকেন্দ্র সম্পর্কিত সব তথ্য জানতে পারবেন স্মার্ট ইলেকশন ম্যানেজমেন্ট ডটবিডি (smartelectionmanagement.BD) নামে একটি অ্যাপ থেকে। নির্বাচন কমিশন এই অ্যাপটি চালু করেছে। অ্যাপল-স্টোর বা গুগল প্লে-স্টোর থেকে এই অ্যাপটি ডাউনলোড করে ইন্সটল করা যাবে।

 

নির্বাচন কমিশন জানায়, অ্যাপটি ফোনে ইনস্টলের পর ভোটের ফলাফল, আইন ও বিধি, নিবন্ধিত দলের তালিকা, আসনভিত্তিক প্রার্থীর তালিকা, ভোট পড়ার হার, দলভিত্তিক প্রাপ্ত আসন সংখ্যাসহ নানা পরিসংখ্যা বা তুলনামূলক চিত্রও পাওয়া যাবে। মিলবে আগের নির্বাচনের তথ্যও।

 

যেভাবে ব্যবহার করতে হবে

 

অ্যাপটি ব্যবহার করতে হলে জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর, জন্ম তারিখ ও মোবাইল নম্বর দিয়ে নিবন্ধন করতে হয়। পরবর্তী সময়ে কেন্দ্রের নাম, কেন্দ্রের লোকেশন, ভোটার নম্বর, প্রার্থীদের নাম ও ছবি প্রভৃতি তথ্য জানতে জাতীয় পরিচয়পত্র ও জন্ম তারিখ দিলেই নিমিষেই মেলে চাহিদা মোতাবেক তথ্য।

 

এরমধ্যে বর্তমানে কততম পার্লামেন্ট নির্বাচন হচ্ছে, আপনার ভোটার আইডি নম্বর, আপনি কোন ভোট কেন্দ্রে ভোট দিতে পারবেন তার নাম, ভোট কেন্দ্রের ঠিকানা, আপনার ভোট দেওয়ার সিরিয়াল নম্বর বা ভোটিং সিরিয়াল নম্বরসহ বিভিন্ন তথ্য থাকে।

 

এমনকি আপনি কোন আসনের ভোটার এবং ওই আসনে কোন কোন প্রার্থী কী কী প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সে সম্পর্কিত তথ্যও জেনে নিতে পারবেন এই অ্যাপ থেকে।

 

ভোটার তালিকা দেখার উপায় কী?

 

নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, অনলাইন বা কোন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ভোটার তালিকা দেখার কোনো সুযোগ নেই। কারণ বাংলাদেশের ভোটারের সংখ্যা অনেক বলে এতে মানুষের তালিকা অনলাইনে প্রকাশ একটা দুরূহ কাজ।

 

এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের সচিব জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ১২ কোটি লোকের ভোটার তালিকা প্রকাশ করা কি সম্ভব?

 

এছাড়া ভোটারদের ব্যক্তিগত গোপনীয়তারও একটি বিষয় রয়েছে বলে জানান তিনি। তবে অনলাইনে পাওয়া না গেলেও ভোট দেয়ার আগেই ভোটার তালিকার তথ্য জানার ব্যবস্থা রয়েছে।

 

ইসি সচিব বলেন, ভোটারদের তালিকা প্রতিটি থানা এবং উপজেলা পর্যায়ে নির্বাচন অফিসে রয়েছে। সেখানে ভোটারদের তালিকা নির্বাচনের আগেই পাঠিয়ে দেওয়া হয়। সেখান থেকে এলাকাভিত্তিক ভোটাররা তাদের তালিকা সম্পর্কে জানতে পারবেন।

 

সেটা যদি সম্ভব না হয় তাহলে নির্বাচনের আগেই সাধারণত স্থানীয় প্রার্থীরা ভোটারদের বাড়িতে তাদের তালিকার নম্বর লিখে পাঠিয়ে দেয়।

 

আর নির্বাচনের দিন ভোট কেন্দ্রের বাইরে যেসব প্রার্থী থাকবেন, তাদের কাছে ভোটার তালিকার কপি থাকে। তারাও ভোটারদের তালিকা সম্পর্কে জানিয়ে থাকে বলে জানান ইসি সচিব।