সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে ইতিহাস গড়ল টাইগাররা

  • Reporter Name
  • Update Time : ১০:৫৮:০১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৩ ডিসেম্বর ২০২৩
  • ১৭ Time View

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে নয় উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে রেকর্ড গড়েছে বাংলাদেশ। একদিনের ক্রিকেটে নিজেদের ইতিহাসে নিউজিল্যান্ডকে কখনোই তাদের মাটিতে হারাতে পারেনি বাংলাদেশ। অবশেষে সেই আক্ষেপ মোচন হয়েছে আজ। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তাদের মাঠে টানা ১৮ ওয়ানডে হারার পর এই সংস্করণে প্রথম জয়ের স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ।

এর আগে পুরো দুল মিলে স্কোরবোর্ডে একশ রানও তুলতে পারেনি—অলআউট হয়েছে মাত্র ৯৮ রানে, যা বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডেতে তাদের সর্বনিম্ন সংগ্রহ, ঘরের মাঠে চতুর্থ সর্বনিম্ন সংগ্রহ এবং ২০০৭ সালের পর দেশের মাটিতে তাদের সর্বনিম্ন সংগ্রহ। বোলারদের এমন বীরত্বের পর বাকি কাজটা সহজেই সেরেছেন ব্যাটাররা। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে তাদের বিপক্ষে ২০তম ম্যাচে এসে প্রথম জয়ের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ। সেটাও ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে।

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুইটিতে হেরে সিরিজ খুইয়ে আজ কিউইদের বিপক্ষে লাল-সবুজের দল মাঠে নামে ধবলধোলাই এড়ানোর লক্ষ্যে। সে লক্ষ্যে টসে জিতে স্বাগতিকদের আগে ব্যাটিংয়ে পাঠান অধিনায়ক নাজমুল শান্ত। এরপর বল হাতে তোপ দাগেন শরিফুল-সাকিব-সৌম্যরা। ফলে টাইগার পেসারদের বোলিং তোপে মাত্র ৯৮ রানেই অল আউট হয় ব্ল্যাক ক্যাপসরা। এরপর ৯৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১৫.১ ওভারেই ৯ উইকেটের দুর্দান্ত এক জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ। কিউইদের বিপক্ষে তাদেরই মাটিতে ওয়ানডেতে এটিই বাংলাদেশের প্রথম জয়।

কিউইদের দেয়া ৯৯ রানের লক্ষ্যে আজ টাইগারদের হয়ে ব্যাটিং ইনিংসের সূচনা করেন সৌম্য এবং এনামুল হক বিজয়। তবে বল হাতে তিন উইকেট তুলে নেয়ার পর আজ ব্যাট হাতে নিজের পারফর্ম্যান্স দেখানোর সুযোগ পাননি আগের ম্যাচে ১৬৯ রান করা সৌম্য। ১৬ বল খেলে ৪ রান করার পর রিটায়ার্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি। এরপর ক্রিজে বিজয়ের সঙ্গী হন অধিনায়ক শান্ত। আর এ দুইজনের ব্যাটেই আজ ইতিহাস গড়া এক বিজয়ের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ। এই দুই টাইগার ব্যাটার মিলে পরে গড়েছেন ৬৯ রানের এক জুটি।

তবে দলীয় ৮৪ রানে উইলিয়াম ওরুর্কির শিক্র হয়ে ৩৩ বলে ৭ চারে ৩৭ রান করে সাজঘরে ফিরেন বিজয়। তবে বিজয় ফিরলেও এদিন সহজেই ঐতিহাসিক এক জয়ের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ। বিজয় সাজঘরে ফেরার পর ক্রিজে অধিনায়ক শান্তর সঙ্গী হন লিটন দাস। এ দুজন মিলেই পরে জয়ের বন্দরে ভিড়িয়েছেন বাংলাদেশকে। আর জয়ের পথে দুর্দান্ত এক শতক তুলে নিয়েছেন শান্ত, করেছেন ৪২ বলে ৮ চারে ৫১ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

নিউজিল‍্যান্ড: ৩১.৪ ওভারে ৯৮ (ইয়াং ২৬, রবীন্দ্র ৮, নিকোলস ১, ল‍্যাথাম ২১, ব্লান্ডেল ৪, চ‍্যাপম‍্যান ২, ক্লার্কসন ১৬ , মিল্ন ৪, আশোক ১০, ডাফি ১*, ও’রোক ১; শরিফুল ৭-০-২২-৩, তানজিম ৭-২-১৪-৩, মুস্তাফিজ ৭.৪-০-৩৬-১, সৌম‍্য ৬-১-১৮-৩, মিরাজ ১-০-৩-০, রিশাদ ৩-০-৪-০)।

বাংলাদেশ: ১৫.১ ওভারে ৯৯/১ (সৌম‍্য ৪ আহত অবসর, এনামুল ৩৭, শান্ত ৫১*, লিটন ১*; মিল্ন ৪-০-১৮-০, ডাফি ৫-০-২৭-০, ক্লার্কসন ২-০-১৯-০, ও’রোক ৪-০-৩৩-১, অশোক ০.১-০-২-০)।

ফল: বাংলাদেশ ৯ উইকেটে জয়ী।

সিরিজ: ৩ ম্যাচ সিরিজে নিউ জিল্যান্ড ২-১ ব্যবধানে জয়ী।

ম্যান অব দা ম্যাচ: তানজিম হাসান।

ম্যান অব দা সিরিজ: উইল ইয়াং।

Tag :

নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে ইতিহাস গড়ল টাইগাররা

Update Time : ১০:৫৮:০১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৩ ডিসেম্বর ২০২৩

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে নয় উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে রেকর্ড গড়েছে বাংলাদেশ। একদিনের ক্রিকেটে নিজেদের ইতিহাসে নিউজিল্যান্ডকে কখনোই তাদের মাটিতে হারাতে পারেনি বাংলাদেশ। অবশেষে সেই আক্ষেপ মোচন হয়েছে আজ। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তাদের মাঠে টানা ১৮ ওয়ানডে হারার পর এই সংস্করণে প্রথম জয়ের স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ।

এর আগে পুরো দুল মিলে স্কোরবোর্ডে একশ রানও তুলতে পারেনি—অলআউট হয়েছে মাত্র ৯৮ রানে, যা বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডেতে তাদের সর্বনিম্ন সংগ্রহ, ঘরের মাঠে চতুর্থ সর্বনিম্ন সংগ্রহ এবং ২০০৭ সালের পর দেশের মাটিতে তাদের সর্বনিম্ন সংগ্রহ। বোলারদের এমন বীরত্বের পর বাকি কাজটা সহজেই সেরেছেন ব্যাটাররা। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে তাদের বিপক্ষে ২০তম ম্যাচে এসে প্রথম জয়ের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ। সেটাও ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে।

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুইটিতে হেরে সিরিজ খুইয়ে আজ কিউইদের বিপক্ষে লাল-সবুজের দল মাঠে নামে ধবলধোলাই এড়ানোর লক্ষ্যে। সে লক্ষ্যে টসে জিতে স্বাগতিকদের আগে ব্যাটিংয়ে পাঠান অধিনায়ক নাজমুল শান্ত। এরপর বল হাতে তোপ দাগেন শরিফুল-সাকিব-সৌম্যরা। ফলে টাইগার পেসারদের বোলিং তোপে মাত্র ৯৮ রানেই অল আউট হয় ব্ল্যাক ক্যাপসরা। এরপর ৯৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১৫.১ ওভারেই ৯ উইকেটের দুর্দান্ত এক জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ। কিউইদের বিপক্ষে তাদেরই মাটিতে ওয়ানডেতে এটিই বাংলাদেশের প্রথম জয়।

কিউইদের দেয়া ৯৯ রানের লক্ষ্যে আজ টাইগারদের হয়ে ব্যাটিং ইনিংসের সূচনা করেন সৌম্য এবং এনামুল হক বিজয়। তবে বল হাতে তিন উইকেট তুলে নেয়ার পর আজ ব্যাট হাতে নিজের পারফর্ম্যান্স দেখানোর সুযোগ পাননি আগের ম্যাচে ১৬৯ রান করা সৌম্য। ১৬ বল খেলে ৪ রান করার পর রিটায়ার্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি। এরপর ক্রিজে বিজয়ের সঙ্গী হন অধিনায়ক শান্ত। আর এ দুইজনের ব্যাটেই আজ ইতিহাস গড়া এক বিজয়ের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ। এই দুই টাইগার ব্যাটার মিলে পরে গড়েছেন ৬৯ রানের এক জুটি।

তবে দলীয় ৮৪ রানে উইলিয়াম ওরুর্কির শিক্র হয়ে ৩৩ বলে ৭ চারে ৩৭ রান করে সাজঘরে ফিরেন বিজয়। তবে বিজয় ফিরলেও এদিন সহজেই ঐতিহাসিক এক জয়ের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ। বিজয় সাজঘরে ফেরার পর ক্রিজে অধিনায়ক শান্তর সঙ্গী হন লিটন দাস। এ দুজন মিলেই পরে জয়ের বন্দরে ভিড়িয়েছেন বাংলাদেশকে। আর জয়ের পথে দুর্দান্ত এক শতক তুলে নিয়েছেন শান্ত, করেছেন ৪২ বলে ৮ চারে ৫১ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

নিউজিল‍্যান্ড: ৩১.৪ ওভারে ৯৮ (ইয়াং ২৬, রবীন্দ্র ৮, নিকোলস ১, ল‍্যাথাম ২১, ব্লান্ডেল ৪, চ‍্যাপম‍্যান ২, ক্লার্কসন ১৬ , মিল্ন ৪, আশোক ১০, ডাফি ১*, ও’রোক ১; শরিফুল ৭-০-২২-৩, তানজিম ৭-২-১৪-৩, মুস্তাফিজ ৭.৪-০-৩৬-১, সৌম‍্য ৬-১-১৮-৩, মিরাজ ১-০-৩-০, রিশাদ ৩-০-৪-০)।

বাংলাদেশ: ১৫.১ ওভারে ৯৯/১ (সৌম‍্য ৪ আহত অবসর, এনামুল ৩৭, শান্ত ৫১*, লিটন ১*; মিল্ন ৪-০-১৮-০, ডাফি ৫-০-২৭-০, ক্লার্কসন ২-০-১৯-০, ও’রোক ৪-০-৩৩-১, অশোক ০.১-০-২-০)।

ফল: বাংলাদেশ ৯ উইকেটে জয়ী।

সিরিজ: ৩ ম্যাচ সিরিজে নিউ জিল্যান্ড ২-১ ব্যবধানে জয়ী।

ম্যান অব দা ম্যাচ: তানজিম হাসান।

ম্যান অব দা সিরিজ: উইল ইয়াং।