সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চারদিন ঘোরেন, তারপর ইন্টারভিউ: সাংবাদিককে সাকিব

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৪:১৪:৩৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৩ ডিসেম্বর ২০২৩
  • ১২ Time View

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মাগুরা-১ আসনে আওয়ামী লীগের নৌকার মাঝি বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। আর সেই কারণেই গণমাধ্যমের হট সিটে পরিণত হয়েছে মাগুরার এ আসনটি। কিন্তু সাকিবের অশোভন আচরণের কারণে ক্ষুব্ধ স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীরা। বাইশ গজের ক্রিকেট আর ভোটের মাঠের হিসাব নিকাশ এক কথা নয়। এখানে সাধারণ মানুষের মন জয় করেই জিততে হয় নির্বাচনের খেলা। তবে কেন তিনি ভোটের মাঠে নায়ক থেকে ভিলেন হলেন। আর নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণার সংবাদ সংগ্রহকারী সাংবাদিকদের সঙ্গে কী কারণে তার এমন বিমাতাসুলভ আচরণ?

মাগুরা-১ আসনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন গণমাধ্যমকর্মীরা ঢাকা থেকে মাগুরা যাচ্ছেন সাকিবের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা সংবাদ সংগ্রহ করতে কিংবা নির্বাচন নিয়ে বিশেষ সাক্ষাৎকার নিতে। আর তখনই বাধা বিপত্তি। বিশেষ করে কয়েকজন তার সাক্ষাৎকার গ্রহণ করতে পারলেও মূলধারার অনেক গণমাধ্যমকে ফিরতে হয় খালি হাতে। এছাড়া অনেককে হতে হয় তিক্ত অভিজ্ঞতা মুখোমুখি।

শুক্রবার (২২ ডিসেম্বর) ভোরের কাগজের সিনিয়র মাল্টিমিডিয়া প্রতিবেদক আর কে জ্যান মাগুরায় সাকিবের সাক্ষাৎকার নিতে চাইলে তিনি বলেন, অনেকেই তিন থেকে চার দিন ধরে ইন্টারভিউর জন্য সময় চাচ্ছে তারাইতো পাচ্ছে না। আপনিও আগে তিন চার দিন আমার সঙ্গে ঘোরেন। তারপর সাক্ষাৎকারের বিষয়টি ভেবে দেখবো।

এমন ঘটনার পর খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মাগুরার স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে সাকিবের সম্পর্ক খুব একটা ভালো নয়। যার কারণে তার প্রচারণা কার্যক্রমে স্থানীয় সাংবাদিকদের অংশগ্রহণও চোখে পরার মত নয়। তবে কী কারণে তার এমন বিমাতাসুলভ আচরণ?

সাকিবের এমন অশোভন আচরণের বিষয়ে মাগুরা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শামীম খান বলেন, সাকিব আল হাসানের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণার সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে আমাদের নানা তিক্ত অভিজ্ঞতার শিকার হতে হয়।

নাম সর্বস্ব ইউটিউব ও ফেসবুক লাইভের উপর নির্ভরশীলতার বিষয়টি উল্লেখ করে শামীম খান আরো বলেন, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সাকিবের শতাধিক বন্ধু মাগুরায় এসেছে। আর তারাই সাকিবের চারপাশ ঘিরে থাকেন।

এদিকে নির্বাচনী এলাকা ঘুরে জানা যায়, নৌকার প্রার্থী সম্পর্কে জানেন না অনেকেই। এছাড়া ভোটের মাঠে সাধারণ মানুষের সঙ্গে সাকিবের গড়ে ওঠেনি তেমন সখ্যতাও।

এর আগে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের কারণে শোকজ করা হয় সাকিবকে। বাইশ গজের এই তারকা ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত থাকাকালীন অনেকটা গোপনেই মাগুরায় যাতায়ত করতেন। এরফলে সাধারণ মানুষের সঙ্গে তার সখ্যতাও তেমনটা হয়নি বলে জানান অনেকে।

Tag :

শ্রেণিকক্ষে যৌন হয়রানির অভিযোগ, ২ শিক্ষককে বরখাস্তের দাবিতে বিদ্যালয়ে তালা

চারদিন ঘোরেন, তারপর ইন্টারভিউ: সাংবাদিককে সাকিব

Update Time : ০৪:১৪:৩৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৩ ডিসেম্বর ২০২৩

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মাগুরা-১ আসনে আওয়ামী লীগের নৌকার মাঝি বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। আর সেই কারণেই গণমাধ্যমের হট সিটে পরিণত হয়েছে মাগুরার এ আসনটি। কিন্তু সাকিবের অশোভন আচরণের কারণে ক্ষুব্ধ স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীরা। বাইশ গজের ক্রিকেট আর ভোটের মাঠের হিসাব নিকাশ এক কথা নয়। এখানে সাধারণ মানুষের মন জয় করেই জিততে হয় নির্বাচনের খেলা। তবে কেন তিনি ভোটের মাঠে নায়ক থেকে ভিলেন হলেন। আর নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণার সংবাদ সংগ্রহকারী সাংবাদিকদের সঙ্গে কী কারণে তার এমন বিমাতাসুলভ আচরণ?

মাগুরা-১ আসনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন গণমাধ্যমকর্মীরা ঢাকা থেকে মাগুরা যাচ্ছেন সাকিবের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা সংবাদ সংগ্রহ করতে কিংবা নির্বাচন নিয়ে বিশেষ সাক্ষাৎকার নিতে। আর তখনই বাধা বিপত্তি। বিশেষ করে কয়েকজন তার সাক্ষাৎকার গ্রহণ করতে পারলেও মূলধারার অনেক গণমাধ্যমকে ফিরতে হয় খালি হাতে। এছাড়া অনেককে হতে হয় তিক্ত অভিজ্ঞতা মুখোমুখি।

শুক্রবার (২২ ডিসেম্বর) ভোরের কাগজের সিনিয়র মাল্টিমিডিয়া প্রতিবেদক আর কে জ্যান মাগুরায় সাকিবের সাক্ষাৎকার নিতে চাইলে তিনি বলেন, অনেকেই তিন থেকে চার দিন ধরে ইন্টারভিউর জন্য সময় চাচ্ছে তারাইতো পাচ্ছে না। আপনিও আগে তিন চার দিন আমার সঙ্গে ঘোরেন। তারপর সাক্ষাৎকারের বিষয়টি ভেবে দেখবো।

এমন ঘটনার পর খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মাগুরার স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে সাকিবের সম্পর্ক খুব একটা ভালো নয়। যার কারণে তার প্রচারণা কার্যক্রমে স্থানীয় সাংবাদিকদের অংশগ্রহণও চোখে পরার মত নয়। তবে কী কারণে তার এমন বিমাতাসুলভ আচরণ?

সাকিবের এমন অশোভন আচরণের বিষয়ে মাগুরা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শামীম খান বলেন, সাকিব আল হাসানের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণার সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে আমাদের নানা তিক্ত অভিজ্ঞতার শিকার হতে হয়।

নাম সর্বস্ব ইউটিউব ও ফেসবুক লাইভের উপর নির্ভরশীলতার বিষয়টি উল্লেখ করে শামীম খান আরো বলেন, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সাকিবের শতাধিক বন্ধু মাগুরায় এসেছে। আর তারাই সাকিবের চারপাশ ঘিরে থাকেন।

এদিকে নির্বাচনী এলাকা ঘুরে জানা যায়, নৌকার প্রার্থী সম্পর্কে জানেন না অনেকেই। এছাড়া ভোটের মাঠে সাধারণ মানুষের সঙ্গে সাকিবের গড়ে ওঠেনি তেমন সখ্যতাও।

এর আগে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের কারণে শোকজ করা হয় সাকিবকে। বাইশ গজের এই তারকা ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত থাকাকালীন অনেকটা গোপনেই মাগুরায় যাতায়ত করতেন। এরফলে সাধারণ মানুষের সঙ্গে তার সখ্যতাও তেমনটা হয়নি বলে জানান অনেকে।